ঢাকা, সোমবার ২২ জুলাই ২০১৯, ০৭ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৮ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

সারা বাংলার খবর

ঈদ আনন্দ থেকে বঞ্চিত ৪ হাজার অবসরপ্রাপ্ত রেল কর্মচারী

বৈশাখী ভাতা, ঈদ বোনাসসহ ৩ মাসের বেতন বকেয়া

আদমদীঘি (বগুড়া) উপজেলা সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ১৬ জুন, ২০১৯, ১২:০৯ এএম

পোস্ট অফিসের মাধমে পেনশন (বেতন) নেওয়া পশ্চিমাঞ্চলের প্রায় ৪ হাজার অবসরপ্রাপ্ত রেল কর্মচারী ঈদের আনন্দ থেকে বঞ্চিত হয়েছেন। বৈশাখী ভাতা, ঈদ বোনাসসহ ৩ মাস যাবত পেনশন (বেতন) না পাওয়ায় তারা মানবেতর জীবন যাপন করছেন।

ভুক্তভুগিদের অভিযোগে জানাযায়, পশ্চিমাঞ্চলের প্রায় ৪ হাজার অবসরপ্রাপ্ত রেল কর্মচারী বিভিন্ন স্থানের পোস্ট অফিসের মাধমে পেনশন (বেতন) গ্রহণ করেন। বৈশাখী ভাতা ঈদ বোনাসসহ গত ৩ মাস যাবত এসব রেল কর্মকর্তা-কর্মচারী পেনশন না পাওয়ায় তারা মানবেতর জীবন যাপন করছেন। এই অবসরপ্রাপ্ত রেল কর্মকর্তা-কর্মচারীরা বৈশাখী ভাতা ও দীর্ঘ ৩ মাস যাবত বেতন ও ঈদ বোনাস না পাওয়ায এবার ঈদুল ফিতরের আনন্দ থেকে বঞ্চিত হয়েছেন রেলের অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ তাদের পরিবারের সদস্যরা।

রেল সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা যায়,সান্তাহার রেলওয়ে জংশনের প্রায় ৪শ’ অবসরপ্রাপ্ত রেল কর্মচারী সান্তাহারের পোস্ট অফিসে বেতন গ্রহণ করেন। তারা বৈশাখী ভাতা, ঈদবোনাসসহ ৩ মাস যাবত পেনশন পাননি। সান্তাহার রেলওয়ের নিরাপত্তাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত প্রহরী আব্দুস ছামাদ বলেন, আমরা বৈশাখী ভাতা পাইনি। ৩ মাস যবত বেতন এমনকি ঈদ বোনাসও পাইনি। আমদের সংসার চলছে না। ছেলেমেয়েদের পড়াশোনার খরচ দিতে পারছিনা। রেলওয়ের অবসরপ্রাপ্ত খালাসী আদমদীঘি উপজেলার কায়েত পাড়া গ্রামের হাফিজার রহমান বলেন, পোস্ট অফিসে সহজেই পেনশন পাব আশা করে সেখানে পেনশন চালু করেছি। কিন্তু সেখান থেকে সঠিক সময় পেনশন পাচ্ছিনা, সংসারও চলছেনা। মাত্র কয়েক দিন আগে ঈদুল ফিতর উৎযাপিত হলো। এদিন সবার ঘরে আনন্দ থাকলেও আমাদের ঘরে অনন্দ ছিলনা। সান্তাহার স্টেশন মাস্টার রেজাউল করিম বলেন, পোস্ট অফিসের গাফিলতির কারণে অবসরপ্রাপ্ত কর্মচারিরা সময়মত পেনশনের টাকা পাচ্ছেন না। এ বিষয়ে রাজশাহী প্রধান পোস্ট অফিসের এপিএম মনিরা পারভীন মোবাইল ফোনে বলেন, এ ক্ষেত্রে পোস্ট অফিসের কোন গাফিলতি নেই। রেলওয়ে সংশ্লিষ্ট দপ্তর সময় মতো টাকা দিতে না পারায় আমরা প্রতি মাসের টাকা পাঠাতে পারি না। টাকা আমাদের হাতে আসা মাত্র আমরা স্ব স্ব পোস্ট অফিসের শাখায় পাঠিয়ে দেই। এবিষয়ে মোবাইল ফোনে রেলওয়ে পশ্চিমাঞ্চলের মহাব্যবস্থাপক (জিএম) একেএম শহিদুল ইসলামের সাথে কথা বললে তিনি বলেন, রেলওয়ে রাজশাহী অঞ্চলের এফএন্ডসিও ও অতিরিক্ত এফএন্ডসিও না থাকায় এ ধরনের জটিলতার সৃষ্টি হতে পারে। তবে বিষয়টি গুরুত্বের সাথে দেখে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন