ঢাকা, মঙ্গলবার , ১৯ নভেম্বর ২০১৯, ০৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ২১ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

সারা বাংলার খবর

ফুলপুর থেকে অপহৃত যমজ বোন ঝিনাইগাতী থেকে উদ্ধার, আটক-৬

ফুলপুর (ময়মনসিংহ) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৯ জুন, ২০১৯, ১:২৭ পিএম

ময়মনসিংহের ফুলপুর উপজেলার ভাইটকান্দি দক্ষিণপাড়া গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে শনিবার ভোর রাতে অপহৃত যমজ তিন বোন পপি, সোমা ও চম্পাকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। এর মধ্যে সোমবার বিকালে ফুলপুর উপজেলার হোসেনপুর ছয়মাইলের মোড় থেকে পপিকে এবং মঙ্গলবার রাতে শেরপুর জেলার ঝিনাইগাতী উপজেলার নকশী বাজার সংলগ্ন জুয়েলের বাড়ি থেকে সোমা ও চম্পাকে উদ্ধার করা হয়। এসময় পুলিশ ৬ জনকে আটক করেছে।
জানা যায়, ফুলপুর উপজেলার ভাইটকান্দি দক্ষিণপাড়া গ্রামের ধান ব্যবসায়ী আব্দুর রহমানের যমজ তিন কন্যা পপি, সোমা ও চম্পা উপজেলার ভাইটকান্দি স্কুল অ্যান্ড কলেজের নবম শ্রেণীর ছাত্রী। এর আগে তারা ময়মনসিংহ নাসিরাবাদ তুহফাতুল জান্নাত মহিলা মাদরাসায় পড়াশোনার সুবাদে সদর উপজেলার তিলকান্দি গ্রামের সুমাইয়া রাহা, মোমেন ও মুন্নার সাথে পরিচয় ও বন্ধুত্ব হয়। সেই সুবাদে ওরা এই তিন কন্যার বাড়িতে যাতায়াত করতো। এরই সূত্র ধরে ১৫ জুন শনিবার ভোর রাতে সুমাইয়া রাহা, মোমেন, মুন্না ও মাসুদ গোপনে তাদেরকে ফুঁসলিয়ে বাড়ি থেকে বের করে এবং জোরপূর্বক অপহরণ করে শেরপুর জেলার ঝিনাইগাতী উপজেলার নকশী বাজার সংলগ্ন জুয়েলের বাড়িতে নিয়ে যায়। সেখানে আটক অবস্থায় মঙ্গলবার আবিদা সুলতানা পপি কৌশলে জুয়েলের বাড়ি থেকে পালিয়ে আসে। সংবাদ পেয়ে পুলিশ তাকে ফুলপুর উপজেলার হোসেনপুর ছয়মাইলের মোড় থেকে অসুস্থ্য অবস্থায় উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। পপির দেওয়া তথ্যমতে, ফুলপুর পুলিশ ও ডিবি পুলিশ ঝিনাইগাতী পুলিশের সহায়তায় মঙ্গলবার মধ্য রাতে ঝিনাইগাতীর নকশী বাজার সংলগ্ন জুয়েলের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে অপহৃত সোমা ও চম্পাকে উদ্ধার করে এবং অপহরণের ঘটনার সাথে জড়িত মোমেন মিয়া, সুমাইয়া, জুয়েল, মুন্না, রূপ চান মিয়া ও মাসুদ রানাকে আটক করে ফুলপুর থানায় নিয়ে আসে। ফুলপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ইমারত হোসেন গাজী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন