ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯, ০২ কার্তিক ১৪২৬, ১৭ সফর ১৪৪১ হিজরী

মহানগর

বুড়িগঙ্গার তীরে উচ্ছেদ অভিযান

দখল করে অবৈধভাবে রাখা মালামাল বিক্রি করে ৮৮ লাখ টাকা আদায়

কেরানীগঞ্জ (ঢাকা) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৭ জুলাই, ২০১৯, ৭:৩৯ পিএম

ঢাকার কেরানীগঞ্জে বুড়িগঙ্গার দক্ষিন তীরে হাসনাবাদ থেকে পানগাঁও পর্যন্ত উচ্ছেদ অভিযান চালিয়েছে বিআইডব্লিউটিএ। আজ বুধবার (১৭জুলাই)সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত চলা অভিযানে ৬১টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। এসময় নদী তীরের বিভিন্ন স্থানে রাখা মালামাল নিলামের মাধ্যমে বিক্রি করে ৮৮ লাখ ২০ হাজার টাকা আদায় করা হয়েছে। এছাড়াও উচ্ছেদ কাজে বাধা দেয়ার অভিযোগে ৪ জনকে আটক করা হয়। পরে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে ২ লাখ টাকা জরিমানা করে তাদের ছেড়ে দেয়া হয়েছে। বিআইডব্লিউটিএ’র নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট হাবিবুর রহমানের নেতৃত্বে উচ্ছেদ অভিযানে উপস্থিত ছিলেন যুগ্ম পরিচালক একেএম আরিফ উদ্দিন, উপ-পরিচালক মিজানুর রহমান, সহকারি পরিচালক নুর হোসেন প্রমুখ।

ঢাকা নদী বন্দরের উপ-পরিচালক মিজানুর রহমান জানান, বুধবারের অভিযানের মাধ্যমে ৬১টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করে নদী তীরের সাড়ে ৩ একর জায়গা দখলমুক্ত করা হয়েছে। উচ্ছেদকরা স্থাপনার মধ্যে রয়েছে, দোতলা ভবন ১টি, একতলা ভবন ৬টি, আধাপাকা ঘর ২৩টি ও টিনের ঘর ৩১টি। তিনি আরও জানান, অভিযানের সময় তীরের বিভিন্ন স্থানে রাখা ইটবালু, সিমেন্ট, রড, একটি পল্টুন, একটি ট্রাক ও একটি এস্কেলেটর তাৎক্ষনিক নিলামের মাধ্যমে বিক্রি করে ৮৮ লাখ ২০ হাজার টাকা রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জমা করা হয়। এছাড়াও উচ্ছেদ কাজে বাধা দেয়ার অভিযোগে ৪ জনকে আটক করা হয়। পরে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে তাদের ২ লাখ টাকা জরিমানা করে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
মোয়াজ্জেম হোসেন ১৮ জুলাই, ২০১৯, ৫:১০ পিএম says : 0
বুড়িগঙ্গা নদীর দুই তীরে যে অবৈধ দখল গড়ে উঠেছে; তা সম্পূর্ণ দখলমুক্ত করতে হবে এবং অভিযান বন্ধ করা যাবে না, অভিযান অব্যাহত রাখতে হবে। যারা নদীর তীর দখল করে, তারা নদীর দুশমন। তাদের আইনের আওতায় এনে শাস্তিমূলক অপরাধ হিসাবে গণ্য করতে হবে।
Total Reply(0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন