ঢাকা, রোববার , ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১০ রবিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

জরুরি ব্যবস্থায় ‘ডেঙ্গু সেন্টার’ খোলার দাবি ড. মোশাররফের

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৩১ জুলাই, ২০১৯, ৫:০৫ পিএম

দেশের কিছু সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালকে নির্দিষ্ট করে জরুরি ব্যবস্থায় অনতিবিলম্বে ‘ডেঙ্গু সেন্টার’ খোলার দাবি জানিয়েছেন ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন। বুধবার এক আলোচনা সভায় তিনি এই দাবি জানান।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সাবেক স্বাস্থ্য মন্ত্রী বলেন, আমি সরকারকে বলতে চাই, এই ডেঙ্গুর ব্যাপারে জরুরি একটা ব্যবস্থা- আইন বলেন আর যাই বলেন ‘জরুরি ব্যবস্থা’ নেয়া উচিত। জরুরি ব্যবস্থার মধ্যে নিয়ে কতগুলো সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালকে ডেঙ্গু সেন্টার হিসেবে ঘোষণা করা হোক। সেই সাথে অযথা জনগণকে আতংকিত না করে সরকারি-বেসরকারি সকল চিকিৎসাকে ঘোষিত ডেঙ্গু সেন্টারে ব্যবহার করা হোক।

ড. মোশাররফ বলেন, দ্রুত কার্যকর ঔষধ আমদানি করে যেসব জায়গাগুলোতে এই ডেঙ্গু মশা উৎপন্ন হয় সেখানে সেই ওষুধ ছিটিয়ে অনতিবলম্বে নির্মূল করার ব্যবস্থা করা হোক। আমি সকলকে ব্যবসায়িক মনোবৃত্তি পরিহার করার আহবান জানাচ্ছি, অতিদ্রুত কার্যকর ওষুধ আনার আহবান জানাচ্ছি, ডেঙ্গু সেন্টার নামে কতগুলো সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালকে নির্দিষ্ট করে দেয়া এবং সেখানে চিকিৎসা খরচ ও পরীক্ষা খরচ নিদিষ্ট করে দেয়ার কথা তিনি বলেন। সরকারের বেঁধে দেয়া চিকিসা খরচ ও পরীক্ষা খরচ যারা না মানবে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণেরও দাবি জানান সাবেক এই স্বাস্থ্য মন্ত্রী।

খন্দকার মোশাররফ হোসেন অভিযোগ করে বলেন, এই সরকার যেকোনো ব্যর্থতাকে আড়াল করার জন্য এটা গুজব্ বলে। দেশে যে ৩০ তারিখে নির্বাচন হওয়ার কথা ছিলো সেটা ২৯ তারিখ রাতে ডাকাতি হয়েছে। তারা (সরকার ) বলেছে এটা গুজব কিন্তু সারাদেশের মানুষ সকলে জানে এটাই সত্য। ২৯ তারিখ রাতেই সরকার ভোট ডাকাতি করে জনগণের অধিকার কেরে নিয়েছে। এই যে বন্যা হয়েছে -এটা কী গুজব? গণপিটুনিতে মানুষ মারা যাচ্ছে-এটা কী গুজব? দিন দুপুরে হত্যাকান্ড -এটা কী গুজব? এই যে দেশে সকল ব্যাপারে আমাদের সমাজে পচন লেগেছে এটা কী গুজব? শিশু ধর্ষিত হচ্ছে এটাও কী গুজব? এসব গুজব নয়। এই গুলো হলো এই সরকারের ব্যর্থতা। তারা যেহেতু নির্বাচিত সরকার নয়, জনগনের সরকার নয়, জনগনের প্রতি তাদের কোনো দায়বদ্ধতা নেই। আমি বলতে চাই, গুজব হতেই পারে না যদি সরকার এসকল বিষয়ে আন্তরিক হতো। যেহেতু তারা সকল কিছুকে গুজব বলে তাদের ব্যর্থতাকে এড়িয়ে যেতে চায়, তাদের উদাসিনতা, তাদের জনগনের প্রতি অবজ্ঞার কারনে কোনো সমস্যার সমাধান করতে পারে না এবং সেসবকে গুজব বলে ব্যর্থতাকে আড়াল করে তারা আরো কিছুদিন থাকতে চায়।

দেশের বর্তমান পরিস্থিতিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার লন্ডন দীর্ঘ সময়ের সফরের সমালোচনা করে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী বিনা কারণে লন্ডনে। যে বন্যা ও ডেঙ্গুর পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে যদি গণতান্ত্রিক সরকারের কোনো প্রধানমন্ত্রী হতেন তাহলে এমন পরিস্থিতিতে বিদেশে অবস্থান করতে পারতেন না। আমরা অতীতে দেখেছি, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া যদি কোনো দুর্যোগের সময়ে সরকারি সফরেও বিদেশে গিয়েছেন সেই সফর সংক্ষিপ্ত করে দেশে ফিরে এসেছেন। অথচ আজকে প্রধানমন্ত্রী দেশ নেই, আজকে স্বাস্থ্য মন্ত্রীও দেশে নেই। জনগণের পাশে কেউ নেই।

জাতীয় প্রেস ক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী হলে ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ-ড্যাব এর উদ্যোগে ‘ডেঙ্গুরোগ, বর্তমান প্রেক্ষাপট ও আমাদের করণীয়’ শীর্ষক এই আলোচনা সভা হয়। অনুষ্ঠানে ডেঙ্গু জ্বর ও করনীয় বিষয়ের ওপর একটি প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন মেডিসিন বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক একেএম আমিনুল হক। আলোচনা সভার পর ডেঙ্গু রোগে সচেতনতা সৃষ্টির জন্য র‌্যালি ও লিফলেট বিতরন কর্মসূচিতে অংশ নেন ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন।

ড্যাবের সভাপতি অধ্যাপক হারুন আল রশিদের সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক আব্দুস সালামের পরিচালনায় আলোচনা সভায় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শওকত মাহমুদ, কেন্দ্রীয় নেতা রিয়াজুল ইসলাম রিজু, কাদের গনি চৌধুরী, শামীমুর রহমান শামীম, ড্যাবের সিনিয়র নেতা অধ্যাপক আবদুল মান্নান মিয়া, ডা. মো. আবদুস সেলিম, ডা. রফিকুল ইসলাম, ডা. জহিরুল ইসলাম সাকিল প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন