ঢাকা, শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৫ আশ্বিন ১৪২৬, ২০ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

মানুষ অর্থের জন্য অন্ধ হয়ে যায়: প্রধানমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৮ আগস্ট, ২০১৯, ১২:২৮ পিএম | আপডেট : ৩:৪৬ পিএম, ১৮ আগস্ট, ২০১৯

যে ঘুষ নেবে তার বিরুদ্ধে তো ব্যবস্থা নিতে হবেই, যে ঘুষ দেবে তার বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নিতে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

রোববার (১৮ আগস্ট) সকালে প্রধানমন্ত্রী তার কার্যালয়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে পবিত্র ঈদুল আজহা পরবর্তী শুভেচ্ছা বিনিময়কালে এ কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সম্মেলনকক্ষে এ শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠিত হয়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘দুর্নীতিতে যে ঘুষ নেবে শুধু সে অপরাধী নয়, যে দেবে সেও অপরাধী। এই জিনিসটা মাথায় রাখা এবং সেভাবে ব্যবস্থা নেওয়া দরকার। তাহলে আমাদের অনেক কাজ দ্রুত হবে।’

সম্পদের প্রতি মানুষের লোভের সমালোচনা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘সম্পদের তো সীমা আছে। মানুষ আসলে অন্ধ হয়ে যায় অর্থের জন্য। কিন্তু এটা ভুলে যায় যে মরে গেলে কিছু সাথে নেওয়া যাবে না, কবরে একাই যেতে হবে।’

‘যা রেখে যাবে সেটা আর কোনোদিন কাজে লাগবে না। আর যদি বেশি রেখে যায় তবে ছেলে-মেয়ের সম্পর্ক নষ্ট হয়ে যায়। ওই নিয়ে মারামারি কাটাকাটি শুরু হয়ে যাবে। এখন যেটা যথেষ্ট দেখা যায়।’

তিনি বলেন, ‘এই অন্ধের মত ছুটে বেড়ানো। আর নিজের সবকিছু নষ্ট করার কী অর্থ থাকে? কার কত আয়, আয় বুঝে ব্যয়; জীবনটা সবার ভালোভাবে চলুক সেটা আমরা চাই।’

‘কিন্তু সঙ্গে সঙ্গে এই বিষয়টা সামনে নিয়ে আসা- যে ঘুষ দেবে সেও যেমন দোষী, যে নেবে সে দোষী। তাহলে এভাবে যদি আমরা ব্যবস্থা নিতে পারি, এটা নিয়ন্ত্রণ, করলে আমাদের অনেক কাজ আমরা দ্রুত করতে পারবো।’

দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) যথেষ্ট সক্রিয় আছে বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী।

কে কত খরচ করলো তারও একটা হিসাব নেওয়ার ওপর গুরুত্বারোপ করেন সরকারপ্রধান।

প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা ও সচিবসহ তার কার্যালয়ের কর্মকর্তারা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (2)
ম নাছিরউদ্দীন শাহ ১৮ আগস্ট, ২০১৯, ৩:০৭ পিএম says : 0
মাননীয় প্রধান মন্ত্রী আপনাকে শত শহস্র সালাম বিরাট নৈতিকতার প্রশ্নে রাষ্ট্রের কর্মকর্তাদের কবরের হাসরের সম্পদের বাণী বলার জন্য। দর্নীতিবাজ নৈতিক চরিত্রহীন আদশ্যহীন মানুষ গুলো হেদায়েতের বাণী কখনো শুনবে না। রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি থেকে পিয়ন পযর্ন্ত দুর্নীতির করেন। দুর্নীতির মহামারীতে বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ। একমাত্র আপনি পারবেন। আপনার দ্বারা সম্ভব বাংলাদেশ টাকে শৃংখলার মাঝে আনা। দুর্নীতি মুক্ত করা। বিরাট কমসৃচি বিরাট কর্মপরিকল্পনা এখন নিতে হবে। দুর্নীতি মুক্ত প্রশাসন দুর্নীতি মুক্ত বাংলাদেশ শিরোনাম প্রত্যেক টি প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের আলাদা আলাদা আপনাকে বসতে সারাদেশে ব্যাপক দুর্নীতি বিরোধী কার্যক্রম পরিচালনার জন্য সৎ ন্যায়পরায়ণ মানুষের কথা শুনতে আপনাকে দাওয়াত দিতে হবে। দুর্নীতি মুক্ত বাংলাদেশের জন্য ক্ষুদা দারিদ্র্য মুক্ত বালাদেশের স্বপ্ন জাতির পিতার এই সংগ্রামে কোটি কোটি সাধারন মানুষ আপনার সাথে। দক্ষিণ এশিয়ার লৌহ মানবী বিশ্বের প্রভাবশালী নেতা বিরাট অর্থনৈতিক উন্নয়নশীল জাতির প্রধান মন্ত্রী আপনি আপনার হারাবার কিছুই নেই। আপনার সুস্বাস্হ দীর্ঘায়ু কামনায়। বঙ্গবন্ধুর জম্ন শতবার্ষীকি হোক দুর্নীতি মুক্ত বাংলাদেশ
Total Reply(0)
Twocents ১৮ আগস্ট, ২০১৯, ৮:০২ পিএম says : 0
Bribe.....thy name is Bangladesh. Where the politicians get the money to spend so lavishly? And Govt employees? Very easy formula.... Come to work to get the salary; Do the work to get the bribe. Giving lessons of Kabar and hashar after amassing so much wealth??? That doesn't work. Allah is the best judge.
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন