ঢাকা, সোমবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১১ ফাল্গুন ১৪২৬, ২৯ জামাদিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

সারা বাংলার খবর

রংপুর-৩ আসনের উপ নির্বাচনের আর মাত্র কয়েক ঘন্টার অপেক্ষা

কঠোর নিরাপত্তার মধ্যে নির্বাচনী সরঞ্জাম বিতরন শেষঃ বিজিবি-র‌্যাবের টহল শুরু

হালিম আনছারী, রংপুর থেকে | প্রকাশের সময় : ৪ অক্টোবর, ২০১৯, ৭:৫৩ পিএম

আর মাত্র কয়েক ঘন্টা পর কাল শনিবার রংপুর ৩ (সদর) আসনের উপ নির্বাচন। নির্বাচন উপলক্ষে ইতিমধ্যে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে নির্বাচন কমিশন। মোট ১’শ ৭৫টি ভোট কেন্দ্রের সকল ভোট কেন্দ্রেই কড়া নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে ইভিএম মেশিন সহ নির্বাচনী সরঞ্জাম পৌঁছানো হয়েছে। বেলা ১১ টা থেকে পুলিশ হল থেকে নির্বাচনী সরঞ্জাম পাঠানো শুরু করে নির্বাচন কমিশন। কঠোর পুলিশী পাহারায় এসব সরঞ্জাম প্রিজাইডিং অফিসারের নেতৃত্বে ভোট কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয়। ভোট কেন্দ্র ছাড়াও গোটা নির্বাচনী এলাকার আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে ইতিমধ্যে পর্যাপ্ত বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। আজ দুপুরের পর থেকেই বিজিবি টহল শুরু করেছে। বিজিবির পাশাপাশি র‌্যাবের ভ্রাম্যমান টিমও টহলে রাখা হয়েছে।
নির্বাচন কমিশন সুত্রে জানা গেছে, আর মাত্র কয়েক ঘন্টা পরই ভোট। আগামীকাল ৫ অক্টোবর সকাল ৯ টা থেকে ভোট গ্রহন শুরু হবে। সে কারনে আজ শুক্রবার বেলা ১১টা থেকে ভোট কেন্দ্রে ইভিএম মেশিন সহ সকল নির্বাচনী সামগ্রী বুঝে নিয়ে প্রিজাইডিং অফিসারের নেতৃত্বে পুলিশ ও ভিডিপির সদস্যরা স্ব স্ব ভোট কেন্দ্রে ট্রাকে করে মালামাল নিয়ে যাচ্ছেন। এ জন্য কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে। সকাল থেকে প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে নির্বাচনী সরঞ্জাম নেয়ার জন্য প্রিজাইডিং অফিসারের নেতৃত্বে পুলিশ আনসার সহ নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা মালামাল বুঝে নিয়ে ট্রাকে করে স্ব স্ব ভোট কেন্দ্রে নিয়ে যায়।
এ ব্যাাপারে রংপুরের পুলিশ সুপার বিপ্লব কুমার সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে যাতে নির্বাচনী মালামাল নির্বিঘেœ পৌছে যায় সে জন্য প্রতিটি ট্রাকে প্রিজাইডিং অফিসারের নেতৃুত্বে পর্যাপ্ত পুলিশ ও আনসার বাহিনী সদস্য দেয়া হয়েছে। এ ছাড়াও পুলিশের পেট্রোলিং থাকছে সার্বক্ষনিক। তিনি জানান রাতে প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে নির্বাচনের সাথে সংশ্লিষ্ঠ সকল কর্মকর্তা কর্মচারী ও আইন শৃংখলা বাহিনীর সদস্যরা ভোট কেন্দ্রে অবস্থান করবেন। তাদের নিরাপত্তার জন্য সকল ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে। ভোট কেন্দ্রে নিরাপত্তার পাশাপাশি ভোটাররা যাতে নিরাপদে ভোট কেন্দ্রে এসে আবারো নিরাপদে বাসায় ফিরে যেতে পারে সে জন্য ষ্ট্রাইকিং এবং মোবাইল টীম সারাক্ষন পেট্রোল ডিউটি করবে।
অপরদিকে রিটানিং অফিসার জিএম শাহাতাব উদ্দিন বলেছেন, নির্বাচনী সরঞ্জাম নিয়ে প্রিজাইডিং অফিসারের নেতৃত্বে পুলিশ আনসার সহ নির্বাচন কর্মকর্তারা ভোট কেন্দ্রে মালামাল সহ রাত্রি যাপন করবে। শনিবার সকাল ৯ থেকে বিকেল ৫ টা পর্যন্ত বিরতীহিন ভাবে ভোট গ্রহন করা হবে। তিনি ভোটারদের ভোট কেন্দ্রে উৎসব মুখর পরিবেশে ভোট দেয়ার আহবার জানান।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ভোট গ্রহণের আগের দিন অর্থাৎ আজ রাত ১২টা থেকে ভোটের পরের দিন পর্যন্ত নির্বাচনী এলাকাতে ১৮ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন থাকবে। এছাড়াও র‌্যাবের ২০টি ইউনিট, পুলিশ ও আনসারের ৩ হাজার সদস্য দায়িত্ব পালন করবে। নিরাপত্তা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ ও ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনায় থাকবে ১৮ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও চারজন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট।
এ ব্যাপারে বাংলাদেশ পুলিশের রংপুর রেঞ্জ ডিআইজি দেবদাস ভট্টাচার্য্য জানান, নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে ভোটের আগের দিন থেকে ফলাফল ঘোষণার পরের দিন পর্যন্ত নির্বাচনী এলাকাতে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, আনসার, ভিডিপি, পুলিশ ও বিজিবি, র‌্যাবের সদস্যরাসহ গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরা নিয়োজিত থাকবেন। আমরা নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা বলয় তৈরি করেছি। কেউ কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটানোর চেষ্টা করলে তা কঠোরভাবে মোকাবিলা করা হবে।
উল্লেখ্য রংপুর সদর ৩ আসনে মোট ভোটার ৪ লাখ ৪১ হাজার ২২৪জন। এদের মধ্যে পুরুষ ভোটার ২ লাখ ২০ হাজার ৮২৩জন এবং নারী ভোটার ২ লাখ ২০ হাজার ৪০১ জন। নির্বাচনে জাতীয় পার্টি বিএনপি সহ ৬ জন প্রার্থী প্রতিদন্দ্বিতা করছেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন