ঢাকা মঙ্গলবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২০, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৫ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

সারা বাংলার খবর

আশুলিয়ায় মাতাল যুবলীগ নেতার কান্ড

স্টাফ রিপোর্টার, সাভার | প্রকাশের সময় : ১৮ অক্টোবর, ২০১৯, ৩:৩২ পিএম

ঢাকার সাভারের আশুলিয়ায় মদ খেয়ে মাতাল অবস্থায় রবি (৩৩) নামের এক শ্রমিককে পিটিয়ে তার বাম পা ভেঙ্গে দিয়ে হাসপাতালে পাঠিয়েছে কথিত যুবলীগ নেতা ও তার বাহিনী। এ ঘটনায় টানা দশ দিন চিকিৎসা শেষে ওই শ্রমিক শুক্রবার দুপুরে আশুলিয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।
এর আগে গত ৮ অক্টোবর রাত দশটার দিকে নরসিংহপুর এলাকার স্থানীয় একটি শাখা সড়কে এ ঘটনা ঘটে।
আহত শ্রমিক রবি বলেন, তিনি আশুলিয়ার জামগড়া এলাকায় ভাড়া বাড়িতে থেকে পোশাক কারখানায় চাকরী করতেন। তবে গত দুই মাস আগে শারীরিক অসুস্থ্যার কারনে চাকরী ছেড়ে দেন। এর পরে গত কয়েক দিন যাবৎ পুনরায় চাকুরীর খোঁজ করছিলেন।
চাকরীর খোঁজ করতে ঘটনার রাতে তার এক সহকর্মীর বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা দেয়। এসময় স্থানীয় একটি শাখা সড়কের পাশে দাড়িয়ে কথিত যুবলীগ নেতা রাজন ভুইয়া, রাসেল, মাসুদ ওরফে পালসার মাসুদসহ আরো বেশ কয়েজন মদ খেয়ে মাতলামো করছিলেন। হঠাৎ করেই রাজন ভুইয়া ও তার বাহিনীর সদস্যরা তাকে ডেকে নিয়ে মারধর শুরু করেন। এক পর্যায়ে রবি মারধরের প্রতিবাদ করলে তাকে পিটিয়ে বাম পা ভেঙ্গে দেয়। আশঙ্কাজনক অবস্থায় ওই শ্রমিককে টাঙ্গাইলের একটি গাড়ীতে উঠিয়ে দিয়ে জামগড়া এলাকা ছেড়ে দেওয়ার জন্য নির্দেশও দেয়।
এদিকে রবি টানা দশ দিন টাঙ্গাইল সদর হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে শুক্রবার আশুলিয়া থানায় এ ঘটনায় একটি লিখিত অভিযোগ দেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে।
স্থানীয়রা জানায়, রাজন ভুইয়া এলাকায় অবৈধভাবে গ্যাস সংযোগ দিয়ে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। অবৈধ গ্যাস সংযোগ নিয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্যের সাথে দুই গ্রুপের সংঘর্ষ হয়। এছাড়াও কথিত ওই যুবলীগ নেতা প্রায় রাতে মদ খেয়ে সড়কের উপর দাড়িয়ে মাতলামো করেন বলেও তারা অভিযোগ করেন।
এ বিষয়ে জানতে রাজন ভুইয়ার সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করলে তাকে পাওয়া যায়নি।
আশুলিয়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) জাবেদ মাসুদ বলেন, এ ঘটনায় লিখিত অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
OmarFaruq ১৯ অক্টোবর, ২০১৯, ১০:৪৩ পিএম says : 0
রাজন ভুইয়া আজকের চাঁদাবাজ নয় , সে এই প্রথম নয় , কত নারী কর্মী তার লালসার সিকার হয়েছে তা তার কাছেও হিসাব নেই। প্রতিনিয়মিত সে মদ পান করে গার্মেন্টসকর্মীদের কি কাজ টা করে থাকে। ভয়ে কেহ মুখ খুলতে পারে না ।
Total Reply(0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন