ঢাকা, বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৩ আশ্বিন ১৪২৬, ১৮ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী।

স্বাস্থ্য

রোজায় ডায়াবেটিক রোগীর খাদ্য ব্যবস্থাপনা

প্রকাশের সময় : ২৯ জুন, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ডায়াবেটিক রোগীকে রোজা রাখার সময় সবচেয়ে বেশি সতর্ক থাকতে হবে খাদ্য ব্যবস্থাপনায়। পরবর্তী অংশটুকুতে এ ব্যাপারে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো-
সেহ্রীর খাবার সেহ্রীর শেষ সময়ের অল্প কিছুক্ষণ আগে খাওয়া।
ইফতারের সময় অধিক পরিমাণে মিষ্টি ও চর্বি জাতীয় খাবার গ্রহণ না করা।
ডায়াবেটিক রোগীদের পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি ও পুষ্টিকর খাবার খেতে হবে যেন তারা পানি শূণ্যতায় না ভোগেন। খেজুর খেলে একটা খেজুর খেতে পারেন। ফলমূল, শাকসবজি, ডাল ও টক দই তালিকাভূক্ত করতে পারেন। ডাবের পানি পান করতে পারেন। যদি কোন পানীয় পান করেন তবে চিনিমুক্ত পানি বেছে নিতে পারেন। যদি মিষ্টি পানীয় পছন্দ করেন, তবে সুইটনার যেমন- ক্যানডেরাল বা সুইটেক্স ব্যবহার করতে পারেন। ভাজা পোড়া খাবার যেমন- পিঁয়াজু, বেগুনী, পুরি, পরোটা কাবাব অল্প পরিমাণে খেতে পারেন।
খাদ্যের ক্যালরি ঠিক রেখে খাওয়ার পরিমাণ এবং ধরণ ঠিক করতে হবে। সঠিক সময়ে সঠিক পরিমাণ খাওয়া প্রয়োজন।
রমজানের পূর্বে যে পরিমাণ ক্যালরি যুক্ত খাবার খেতেন রমজানে ক্যালরির পরিমাণ ঠিক রেখে খাবার সময় এবং ধরণ বদলাতে হবে। প্রয়োজন হলে নিউট্রিশনিস্টের সঙ্গে যোগাযোগ করে খাবার তালিকা ঠিক করে নিতে হবে। লক্ষ্য রাখতে হবে ওষুধের সঙ্গে খাবারের যেন সামঞ্জস্য থাকে। ইফতারের সময় অতি ভোজন এবং শেষ রাতে অল্প আহার পরিহার করতে হবে।

রোজার সময় খাবারের তালিকার নমুনা
ইফতার
বুট ভূনা- ১/২ কাপ (২৫ গ্রাম কাঁচা বুট)
পিঁয়াজু- ১টা বড় মাপের (২০ গ্রাম ডাল)
বেগুনী- ১টা মাঝারি (১০ গ্রাম বেশন)
মুড়ি- ২ কাপ (২৫ গ্রাম)
ফলের রস (কাঁচা আম, আমড়া, সবুজ আপেল, মাল্টা, কমলা ইত্যাদি) যে কোন একটি।
[শশা, ক্ষীরা, আমড়া, কাজি পেয়ারা, ডাবের পানি, লেবুর পানি, (চিনি ছাড়া) ও অন্যান্য টক ফল ইচ্ছেমত খাওয়া যাবে।]

সন্ধ্যা রাত
আটার রুটি- ৯০ গ্রাম (৩টা ছোট পাতলা) বা ভাত ১.৭৫ (পনে দুই) কাপ।
মাছ বা মাংস- ১ টুকরা
ডাল- ২ কাপ মাঝারি ঘন বা দুধ ১ কাপ (সর ছাড়া)
সবজি (আলু বাদে) ইচ্ছেমত

সেহ্রী
ভাত- ২.৫ কাপ (৩০০ গ্রাম)
মাছ বা মাংস- ১ টুকরা
ডাল- ২ কাপ মাঝারি ঘন বা দুধ ১ কাপ (সর ছাড়া)
সবজি (আলু বাদে) ইচ্ছেমত
সেহ্রীতে যত বেশি পরিমাণে সম্ভব পানি বা তরল খাদ্য গ্রহণের চেষ্টা করতে হবে।
যাদের দুধ খেলে হজমের সমস্যা হয়, তাদের দুধ না খাওয়ায় ভালো।
ষ ডা. শাহজাদা সেলিম
সহকারী অধ্যাপক, এন্ডোক্রাইনোলজি বিভাগ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, হরমোন ও ডায়াবেটিস বিশেষজ্ঞ
কমফোর্ট ডক্টর’স চেম্বার :
১৬৫-১৬৬, গ্রীনরোড, ঢাকা,
ফোন : ৮১২৪৯৯০, ৮১২৯৬৬৭ এক্স- ১১৯, মোবা : ০১৭৩১৯৫৬০৩৩, ০১৫৫২৪৬৮৩৭৭, ০১৯১৯০০০০২২,
ংবষরসংযধযলধফধ@মসধরষ.পড়স

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন