ঢাকা শুক্রবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৩ আশ্বিন ১৪২৭, ২৯ মুহাররম ১৪৪২ হিজরী

সারা বাংলার খবর

দেশে জেনা বেড়েছে -রাউজানে আল্লামা শাহ আহমদ শফি

রাউজান উপজেলা সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ১৮ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:০১ এএম

হেফাজতে ইসলামের আমির আল্লামা শাহ আহমদ শফি বলেছেন, দেশে জেনা বেড়ে গেছে। স্কুল-কলেজে জেনা চলছে প্রতিনিয়ত। তিনি বলেন, নারী পুরুষ এক সাথে বসে পড়াশোনা করাকে সহাশিক্ষা বলে। আমি নারী শিক্ষার বিরোধী নই। সহশিক্ষার বিরোধী। কেননা সহশিক্ষার কারণে ছাত্র-ছাত্রীরা অবৈধ সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে। এমনকি পিতৃতুল্য শিক্ষকও অবৈধ সম্পর্ক গড়ে তোলে। এসব সহশিক্ষার কুফল। আমি সহ-শিক্ষার বিরোধী। আপনারা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অনুরোধ করবেন সে যেন নারীদের আলাদা শিক্ষা ব্যবস্থা চালু করে। নারীদের নিরাপদ আলাদা শিক্ষা ব্যবস্থা চালু হলে নারীরা ধর্ষণ, যৌন হয়রানি থেকে রেহাই পাবে।
তিনি আরো বলেন, মুসলমানদের ঘরে এখন কোরআন তেলাওয়াত নেই। আপনারা আমার সাথে ওয়াদা করেন, আজ থেকে কোরআন পড়বেন। আপনাদের বিবিদের পর্দা মেনে চলতে আদেশ করবেন। কেননা ইসলামে পর্দা ফরজ।
আল্লামা আহমদ শফি আরো বলেন, আপনারা মাহফিলে এসেছেন, দ্বীনের অনেক কথা শুনেছেন, যদি এসব মতে আমল না করেন তাহলে কোনো লাভ নেই, ওয়াজ শুনে আমল করতে পারলে তবেই কামিয়াবি।
তিনি বলেন, এক ওয়াক্ত নামাজ না পড়লে ২ কোটি ৮০ লাখ বছর জাহান্নামে জ্বলতে হবে। তাই নিয়মিত নামাজ আদায় করবেন। অন্যথায় জাহান্নামের কঠিন আজাব ভোগ করতে হবে। মাতা-পিতার হক আদায় করবেন, নেক নজরে মা’র চেহারা দেখলে একটি মকবুল হজের সওয়াব পাওয়া যায়। সমাজ এখন অনেক খারাপ, মদপানের টাকা না দিলে মা-বাবার উপর অত্যাচার করে অনেক যুব সমাজ! সাবধান, সবাইকে মরতে হবে, এ কথা স্মরণ রাখবেন যুবক। তিনি গতকাল বিকালে ঐতিহ্যবাহী দ্বীনি ও সেবামূলক সংগঠন রাউজান ইসলামী নবজাগরণ ও ইসলামী সম্মেলন সংস্থার যৌথ উদ্যোগে রাউজান পৌর এলাকার গহিরা উচ্চ বিদ্যালয় ময়দানে আয়োজিত বিশাল তাফসিরুল কোরআন মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখছিলেন। মাওলানা হারুনুর রশিদের সঞ্চালনায় ও বাস্তবায়ন কমিটির সচিব মুহাম্মদ হানিফের তদারকিতে উক্ত তাফসিরুল কোরআন মাহফিলে প্রধান মুফাচ্ছির ছিলেন বিশিষ্ট দাঈ মাওলানা মুফতি নজরুল ইসলাম কাসেমী। প্রধান বক্তা ছিলেন মাওলানা ফরিদ উদ্দীন আল-মোবারক। বক্তব্য রাখেন মাওলানা আজিজুল ইসলাম জালালী, মাওলানা মুফতি মেরাজুল হক মাজহারী, মুফতি নুরুল আমিন ফরিদী, মাওলানা ইসমাঈল খান, মাওলানা মোস্তফা নূরী, গাজী মাওলানা ছানাউল্লাহ, মাওলানা হারুন আজিজী নদভী।

 

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (8)
Md Omar Faruk ১৮ জানুয়ারি, ২০২০, ১:২৯ এএম says : 1
সঠিক বলেছেন তিনি
Total Reply(0)
মশিউর ইসলাম ১৮ জানুয়ারি, ২০২০, ১:৩২ এএম says : 0
ইসলাম ব্যভিচারকে সুস্পষ্ট হারাম ও জঘন্য অপরাধ হিসাবে ঘোষণা করেছে। এই অপরাধের কঠিন শাস্তির বিধানও রয়েছে ইসলামে।
Total Reply(0)
সাইফুল ইসলাম চঞ্চল ১৮ জানুয়ারি, ২০২০, ১:৩২ এএম says : 0
বর্তমান সমাজে ব্যভিচার ব্যাপকহারে বেড়ে গেছে। সমাজের উঁচু স্তর থেকে শুরু করে নিম্নতম স্তরের অনেকেই ব্যভিচারে লিপ্ত। এ নিয়ে আতঙ্কিত হয়ে পড়ছে সর্বস্তরের মানুষ।
Total Reply(0)
তোফাজ্জল হোসেন ১৮ জানুয়ারি, ২০২০, ১:৩৩ এএম says : 0
পবিত্র কোরআন মজিদের সুরা আল ইসরার ৩২ নম্বর আয়াতে মহান আল্লাহ রাব্বুল আল-আমীন বলেন, ‘ব্যভিচারের কাছেও যেয়োও না। নিশ্চয়ই এটা অশ্লীল কাজ এবং মন্দ পথ।’
Total Reply(0)
কাজী হাফিজ ১৮ জানুয়ারি, ২০২০, ১:৩৩ এএম says : 0
বিবাহবহির্ভূত যে কোনো যৌন সঙ্গমই পবিত্র ইসলাম ধর্মে গুরুতর অপরাধ হিসেবে গণ্য। ইসলামি আইনে ব্যভিচারকারীর কঠোর শাস্তির বিধান রয়েছে।
Total Reply(0)
কে এম শাকীর ১৮ জানুয়ারি, ২০২০, ১:৩৩ এএম says : 0
রাসুলুল্লাহ (সা.) এবং তাঁর সাহাবীদের আমল থেকে ব্যভিচারকারীকে কঠিন শাস্তি দেওয়া হতো। কেউই এই শাস্তি থেকে রেহাই পেতো না।
Total Reply(0)
মরিয়ম বিবি ১৮ জানুয়ারি, ২০২০, ১:৩৩ এএম says : 0
ইসলামে ব্যভিচারের শাস্তি ব্যক্তিভেদে কিছুটা ভিন্ন হয়ে থাকে। ব্যভিচারী বা ধর্ষক যদি বিবাহিত হয়, তাহলে তাকে প্রকাশ্যে পাথর মেরে মৃত্যুদণ্ড দেওয়ার বিধান রয়েছে। আর ধর্ষক যদি অবিবাহিত হয়, তাহলে তাকে প্রকাশ্যে একশ’ ছড়ি মারার বিধান রয়েছে।
Total Reply(0)
Abdul Wahab ১৮ জানুয়ারি, ২০২০, ১০:০২ এএম says : 0
এক ওয়াক্ত নামাজ না পড়লে ২ কোটি ৮০ লাখ বছর জাহান্নামে জ্বলতে হবে । এটার কোন দলিল আছে?
Total Reply(0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন