ঢাকা, বুধবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৩ ফাল্গুন ১৪২৬, ০১ রজব ১৪৪১ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

যোগির রাজ্যে কাওয়ালি নাচ নিয়ে লুকোচুরি

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৯ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:০১ এএম

কাওয়ালি নাচের জেরে ভারতের উত্তরপ্রদেশে রোষের শিকার কত্থক নৃত্যশিল্পী মঞ্জরী চতুর্বেদী। ওই শিল্পীর অভিযোগ, বিনা নোটিসেই তার অনুষ্ঠান থামিয়ে দেওয়া হয়। সেখানে কাওয়ালি নাচ চলবে না বলে তাকে সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়। অনেকেই মনে করছেন, কাওয়ালি অহিন্দু সংস্কৃতি বলেই যোগি আদিত্যনাথের সরকারের অনুষ্ঠানে ‘ব্রাত্য’ কাওয়ালি। যদিও যোগির সরকার সেই অভিযোগ খারিজ করে দিয়েছে। বৃষ্টির কারণে দ্রæত অনুষ্ঠান শেষ করতেই নৃত্যশিল্পী কম সময় মঞ্চে থাকতে পেরেছেন বলে দাবি সরকারি কর্মকর্তাদের। ঘটনাটি ঘটেছে গত বৃহস্পতিবার। ওই দিনই লখনৌতে সরকারি অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত ছিলেন কত্থক নৃত্যশিল্পী মঞ্জরী চতুর্বেদী। শিল্পীর দাবি, ৪৫ মিনিট তাকে অনুষ্ঠান করতে হবে বলে জানানো হয়েছিল। তাদের কথা অনুসারে রাজি হয়ে যান মঞ্জরী। অনুষ্ঠান মঞ্চে কাওয়ালি নৃত্য শুরু করেন। দর্শক সারিতে বসে থাকা ব্যক্তিরা দিব্যি শিল্পীর নাচ উপভোগ করছিলেন। কিন্তু হঠাৎ করেই বিঘ্ন ঘটে। মঞ্চে উঠে আসেন এক ব্যক্তি। তিনি ঘোষণা করতে থাকেন মঞ্জরী চতুর্বেদীর অনুষ্ঠান শেষ। এবার মঞ্চে উঠবেন অন্য এক শিল্পী। প্রথমে তিনি ভেবেছিলেন, কোনো যান্ত্রিক ত্রæটি সামাল দিতেই হয়তো উদ্যোক্তারা অনুষ্ঠান মাঝপথে থামিয়ে দিলেন। কিন্তু উদ্যোক্তাদের সঙ্গে কথা বলার পর সেই ভুল ভাঙে তার। শিল্পীর দাবি, উদ্যোক্তাদের মধ্যে বেশ কয়েকজন তাকে বলেন, এখানে কাওয়ালি চলবে না। কিন্তু কেন চলবে না কাওয়ালি? অনেকেই বলছেন, কাওয়ালি ইসলামিক সংস্কৃতি। তাই হয়তো কাওয়ালি বন্ধ করার নির্দেশ দিয়েছে যোগি প্রশাসন। অনুষ্ঠানের অভিজ্ঞতা কোনোদিন ভোলা সম্ভব নয় বলে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে উল্লেখ করেন কত্থক নৃত্যশিল্পী। পরে বিস্তারিতভাবে ঘটনা জানাব বলেও লেখেন তিনি। যদিও চাপের মুখে ওই ঘটনায় মুখ খোলেন যোগির রাজ্যের প্রশাসনিক কর্মকর্তারা। উদ্যোক্তারা শিল্পীর দাবি খারিজ করে বলেন, আমরা জানতাম মঞ্জরী চতুর্বেদী কাওয়ালি নৃত্য করবেন। তাতে কোনো সমস্যা নেই। তারা আরো বলেন, অনুষ্ঠানের দিন প্রচÐ বৃষ্টি হচ্ছিল। তাই আমন্ত্রিতরা ঘণ্টাখানেক দেরিতে অনুষ্ঠানে আসেন। ঠিক সময়ে যাতে অনুষ্ঠান শেষ করা যায় তাই বাধ্য হয়েই ১৫ মিনিটে তাকে মঞ্চ ছেড়ে দেওয়ার অনুরোধ করা হয়েছে। এনডিটিভি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন