ঢাকা, মঙ্গলবার, ১১ আগস্ট ২০২০, ২৭ শ্রাবণ ১৪২৭, ২০ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

সারা বাংলার খবর

৫৭ বছর পর ক্যাথল্যাব পেল মমেক হাসপাতাল

বিশেষ সংবাদদাতা, ময়মনসিংহ | প্রকাশের সময় : ২১ জানুয়ারি, ২০২০, ৫:৪৪ পিএম

র্দীঘ ৫৭ বছর পর ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থাপিত হয়েছে ক্যাথল্যাব। এতে করে বৃহত্তর ময়মনসিংহ অঞ্চলের প্রায় দুই কোটি মানুষের চিকিৎসা সেবায় নবদিগন্ত সুচিত হয়েছে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।
মঙ্গলবার দুপুরে খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক বিগ্রেডিয়ার মোঃ নাসির উদ্দিন আহমেদ। তিনি জানান, হাসপাতালটি প্রতিষ্ঠার প্রায় ৫৭ বছর পর এই ক্যাথল্যাব মেশিন স্থাপন করা হয়েছে। এতে করে এই হাসপাতালের চিকিৎসা সেবায় আরো এক ধাপ এগিয়ে গেল। তবে ইতিমধ্যে ক্যাথল্যাব মেশিন স্থাপন করা হলেও আগামী ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝি সময় থেকে ক্যাথল্যাবের আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হবে তিনি নিশ্চিত করেছেন।
হাসপাতাল সূত্র জানায়, ক্যাথল্যাব মেশিন দিয়ে হৃদরোগ বিষেশজ্ঞগন হার্টের নিজস্ব রক্তনালির রক্ত চলাচল কেমন আছে তা সরাসরি দেখতে পারেন এবং প্রয়োজন অনুযায়ী বন্ধ রক্তনালির রক্ত চলাচলে বেলুন ও রিং (স্টেন্ট) এর মাধ্যমে সচল করে দিতে পারেন। এর মাধ্যমে হার্ট এটাকের রোগীরা পুনরায় স্বাভাবিক জীবন ফিরে পেতে পারেন। এখন থেকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ক্যাথল্যাব মেশিনে এ ধরনের সকল সেবা পাওয়া যাবে।
সংশ্লিষ্ট চিকিৎসরা আরো জানান, এনজিওগ্রাম করলেই রিং বা স্টেন্ট পরাতে হয় না। তবে রক্তনালির ভেতরে রক্তচলাচল বেশী ভাবে কমে গেলে বা বন্ধ হয়ে গেলে বেলুনের মাধ্যমে রিং বা কার্ডিয়াক স্টেন্ট স্থাপন করতে হবে এ ক্যাথল্যাব মেশিনের মাধ্যমে।
হাসপাতাল সূত্র আরো জানায়, সরকারি হাসপাতালে সরকার নির্ধারিত এনজিওগ্রামের ফি রয়েছে। এছাড়া রিং বা স্টেন্ট পরানোর জন্য প্রয়োজনীয় বেলুন, স্টেন্ট, ক্যাথেটারসহ অন্যান্য উপকরণে সরকার নির্ধারিত মূল্য রয়েছে। এগুলো সংশ্লিষ্ট রোগীকে বহন করতে হবে। এসবের মূল্য তালিকা হাসপাতালের কার্ডিওলজি বিভাগে দেয়া থাকবে। সেই সাথে টেম্পোরারি পেসমেকার, পার্মানেন্ট পেসমেকার স্থাপন করার কাজ চলবে সরকারি মূল্যেই। তবে গরীব রোগীদের যথাযথ প্রমান সাপেক্ষে ফ্রী এনজিওগ্রাম এবং প্রয়োজনে ফ্রী স্টেন্ট পরানোর ব্যবস্থা করার সুযোগ রয়েছে।
এবিষয়ে হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডা: লক্ষী নারায়ণ মজুমদার বলেন, যোগ্য পরিচালকের প্রচেষ্টায় ক্যাবল্যাব মেশিনটি এ হাসপাতালের নতুন সংযোজন। এটা ছিল সময়ের দাবি। কারণ দিনে দিনে হার্টের রোগী বৃদ্ধি পাচ্ছে। ফলে হার্টের রোগীদেরকে অনেক কষ্ট করে ঢাকায় আনা-নেওয়া করতে হত। কিন্তু এখন থেকে এ হাসপাতালে ক্যাথল্যাব মেশিন চালু হওয়ায় বৃহত্তর ময়মনসিংহের হার্টের রোগীরা উপকৃত হবে। আমি মনে করি বর্তমান সরকারের এ উদ্যোগ প্রশংসার দাবি রাখে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন