ঢাকা মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৪ আশ্বিন ১৪২৭, ১১ সফর ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

আক্রান্ত দুই বাংলাদেশির একজন আইসিইউতে

করোনাভাইরাস সন্দেহে সিঙ্গাপুরে ১০ জনকে কোয়ারেন্টাইনে

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২:০১ এএম

নতুন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হতে পারে এই সন্দেহে ১০ জন বাংলাদেশীকে কোয়ারেন্টাইনে রেখেছে সিঙ্গাপুর সরকার। ইতিমধ্যে আক্রান্ত দুইজন বাংলাদেশীর একজন আইসিইউতে আপর জন ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। দ্বিতীয় আক্রান্ত ব্যক্তি প্রথমজনের সংস্পর্শে ছিল। এই রোগীদের সংস্পর্শে ছিল ১০ বাংলাদেশীসহ এমন ১৯ জন এখন কোয়ারাইন্টাইনে। সিঙ্গাপুর সরকার তাদের চিকিৎসার দায়িত্ব নিয়েছেন, তারা নিয়মিত আমাদের দূতাবাস, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে যোগাযোগ করছে। আর দূতাবাস এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় আমাদের সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ করছে। গতকাল রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের (আইইডিসিআর) পরিচালক প্রফেসর ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা এসব কথা জানান। করোনাভাইরাস নিয়ে নিয়মিত সংবাদ সম্মেলনে এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন প্রতিষ্ঠানের প্রিন্সিপাল সায়েন্টিফিক অফিসার ড. এ এস এম আলমগীর।

প্রফেসর ফ্লোরা বলেন, চীনের পাশাপাশি এখন সিঙ্গাপুরের প্রতি বিশেষ নজর দিচ্ছে বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা। সেখানে দুই জন বাংলাদেশী সনাক্ত হওয়ায় আমরাও বিশেষ নজর দিচ্ছি। সিঙ্গাপুরে যাতায়াতের ক্ষেত্রে বিশেষ নির্দেশনা দেওয়া হবে কীনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, আলাদা করে এখনও নির্দেশনা দিচ্ছি না। কারণ সব এয়ারলাইন্সকে স্ক্রিনিং-এর আওতায় আনা হয়েছে। তবে চীন থেকে আসা ফ্লাইটের মতো সিঙ্গাপুর থেকে আসা ফ্লাইটেও বিশেষ নজরদারি হবে। যারা সিঙ্গাপুর থেকে দেশে আসছেন তাদের প্রতি অনুরোধ জানিয়ে প্রফেসর ফ্লোরা বলেন, তারা যেন নিজেদের মধ্যে ঘরের মধ্যে সেলফ কোয়ারাইন্টাইনে থাকেন।

আইইডিসিআরের হটলাইনে গত ২৪ ঘণ্টায় ১৩০টি ফোন কলের মধ্যে নতুন এই ভাইরাস নিয়ে কল এসেছে ১০৭টি। এছাড়া ৫৯টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে, যার মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় পরীক্ষা হয়েছে তিনটি। তবে এসব নমুনার মধ্যে এখন পর্যন্ত নতুন এই করোনাভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া যায়নি। তিনি বলেন, এই মুহুর্তে আইসোলেশনে কোনও রোগী নেই। গত ১ ফেব্রুয়ারি চীনে থেকে ফেরা হজ ক্যাম্পে অবস্থারত বাংলাদেশীদের আগামী ১৫ ফেব্রুয়ারি বিকাল পর্যন্ত কোয়ারাইন্টাইনে রাখা হবে। তারপরে ছাড়পত্র দিয়ে তাদের কিভাবে গন্তব্যে পৌছানো হবে সে বিষয়ে প্রস্তুতি চলছে।

তিনি বলেন, এতোদিন স্থল-সমুদ্র ও বিমানবন্দরে যাত্রীদের স্ক্রিনিং কার্যক্রম পরিচালিত হয়েছে। কিন্তু প্রতিবেশী দেশ ভারত থেকে আসা মৈত্রীর যাত্রীরা এতোদিন ছিল স্ক্রিনিংয়ের বাইরে। এই ট্রেনটি সপ্তাহে চারদিন আসে। বেনাপোল হয়ে আসলেও এই ট্রেনের যাত্রীরা নামে ঢাকা ক্যান্টনম্যন্ট রেলওয়ে স্টেশনে। গত মঙ্গলবার থেকে এই ট্রেনের যাত্রীদের স্ক্রিনিংয়ের আওতায় আনা হয়েছে। পাশপাশি ভারত থেকে দর্শনা হয়ে খুলনা একটি ট্রেন যায়। সেটিও স্ক্রিনিংয়ের আওতায় আনা হয়েছে।

প্রফেসর সেব্রিনা বলেন, এতদিন বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা চীনে এই ভাইরাস নিয়ে ক্লোজলি মনিটর করছিল, এখন এই কার্যক্রমে জাতিসংঘও যুক্ত হয়েছে। তারা একটি টিম গঠন করেছে, যেটা ইউএন মেনেজম্যান্ট টিম হিসেবে কাজ করবে। যদিও নেতৃতে থাকছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাই। এই দলে আরও যোগ হয়েছে ওয়ার্ল্ড অর্গানাইজেশন অব অ্যানিমেল এবং ফুড এগ্রিকালচারাল অর্গানাইজেশন (এফএও)। বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার বরাত দিয়ে তিনি বলেন, নতুন এই ভাইরাসের ভ্যাকসিন পেতে এখনও ১৮ মাস সময় লাগবে। তাই আমাদের হাতে প্রতিষেধক আসতে বেশ কিছু সময় প্রয়োজন। তাই একে রুখতে প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থাই একমাত্র উপায়।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (5)
Dulal Molla ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১:২৩ এএম says : 0
হে মহান পালনকর্তা আমাদের জীবনের মালিক মহান রব্বুল আলামিন,আকাশ এবং জমিনের মালিক মহানতম আল্লাহ তুমি আমাদের হেফাজত কর!আমিন
Total Reply(0)
Sheak Bahadur ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১:২৪ এএম says : 0
ভালো থেকো ভাই, নিরাপদে থাকো সিঙ্গাপুরে
Total Reply(0)
AR Al-amin Hossain Roky ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১:২৪ এএম says : 0
এই ভাইরাসের কোন ঐষধ কী নেই...?
Total Reply(0)
নীল প্রজাপতি ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১:২৫ এএম says : 0
আল্লাহ আমাদের করোনাভাইরাস থেকে হেফাজত করো।
Total Reply(0)
রিদওয়ান বিবেক ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১:২৭ এএম says : 0
হে আল্লাহ ক্ষমা করো, আক্রান্ত ক্যক্তিকে দারুন সার্ভিস নাও।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন