ঢাকা রোববার, ২৪ জানুয়ারি ২০২১, ১০ মাঘ ১৪২৭, ১০ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

সিন্ধিয়ার পর কংগ্রেস ছাড়লেন ১৯ বিধায়ক

মধ্যপ্রদেশে গভীর সঙ্কটে কমল নাথ সরকার

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১১ মার্চ, ২০২০, ১২:০১ এএম

বিজেপি নেত্রী ও জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়ার আত্মীয়া যশোধরা সিন্ধিয়া জানালেন, আমি খুব খুশি এবং ওঁকে অভিনন্দন জানাই। এটি ঘরে ফিরে আসা। মাধবরাও সিন্ধিয়া জনসংঘতে তার রাজনৈতিক জীবনের স‚চনা করেছিলেন। জ্যোতিরাদিত্যকে কংগ্রেসে অবহেলা করা হচ্ছিল। অপরদিকে মুখ্যমন্ত্রী কমল নাথ মধ্য প্রদেশের রাজ্যপালকে ছয়জন মন্ত্রীকে অবিলম্বে অপসারণের সুপারিশ করলেন। বিজেপি নেতা শিবরাজ সিংহ চৌহান সাংবাদিকদের জানালেন, কংগ্রেস নেতা এবং প্রবীণ বিধায়ক বিসাহু লাল সাহু আমাদের সাথে আছেন এবং বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন। ২০ বিধায়কের ইস্তফার পর নতুন অঙ্ক মধ্যপ্রদেশে মধ্যপ্রদেশে মোট আসন সংখ্যা ২৩০, বর্তমানে খালি রয়েছে ২ আসন, কংগ্রেস থেকে ইস্তফা দিলেন ২০ বিধায়ক বর্তমানে বিধায়ক সংখ্যা ২০৪। ২০ বিধায়কের ইস্তফার পর ম্যাজিক ফিগার ১০৫ কংগ্রেসের বর্তমান বিধায়ক সংখ্যা ৯৫ বিজেপির বর্তমান বিধায়ক সংখ্যা ১০৭ বিএসপি-২, এসপি-১, নির্দল ৪। ১৯ জন কংগ্রেস বিধায়কের ইস্তফার পর, মধ্যপ্রদেশ বিধানসভায় এখন মোট বিধায়কের সংখ্যা ২০৯, ম্যাজিক ফিগার ১০৫, কংগ্রেস ছিল ৯৫, বিজেপি ছিল ১০৭, নির্দল ৪, বসপা ২, সপা ১। এর ফলে মধ্যপ্রদেশে সংখ্যালঘু হয়ে পড়ল কমলনাথের সরকার। জ্যোতিরাদিত্যর সঙ্গেই বিজেপিতে যোগ দেবেন কংগ্রেসের ১৯ জন বিধায়ক। মানুষের কাজ করতে চেয়েছিলাম। কংগ্রেসে থেকে তা করা সম্ভব হচ্ছিল না, ইস্তফা পত্রে উল্লেখ জ্যোতিরাদিত্যর। শিবরাজ সিংহ চহŸান বললেন, যখন সিন্ধিয়াজি কংগ্রেসে ছিলেন, তখন কোনও কোনও কংগ্রেস নেতার কাছে তিনি মহারাজা ছিলেন, এখন তিনি মাফিয়া? এটা দ্বিচারিতা। কংগ্রেস নেতা দিগিগ¦জয় সিং বলেন, আমাদের কাছে প্রমাণ আছে যে তিনটি চার্টার্ড বিমান কংগ্রেস বিধায়কদের বেঙ্গালুরুতে নিয়ে গিয়েছিল, তা বিজেপিই ব্যবস্থা করে দিয়েছিল। এটি মধ্যপ্রদেশের লোকেদের রায়ের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র, কারণ কমলনাথ মাফিয়াদের বিরুদ্ধে কাজ করেছেন। অধীর রঞ্জন চৌধুরি বলেন, ‘কংগ্রেসে গুরুত্বপ‚র্ণ ও সম্মাননীয় পদে ছিলেন সিন্ধিয়া। সম্ভবত তিনি মোদির দেওয়া মন্ত্রিত্বের প্রস্তাবের দ্বারা প্রলুব্ধ হয়েছেন। আমরা জানি তার পরিবার বিজেপির সঙ্গে কয়েক দশক ধরে যুক্ত...তবুও এটি একটি বড় ক্ষতি।’ সঙ্কট মোকাবিলায় আহমেদ পটেল এবং কে সি বেণুগোপালের সঙ্গে বৈঠক হয় সোনিয়ার। মধ্যপ্রদেশে কংগ্রেস সরকার পড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা, প্রতিক্রিয়ায় জানা অধীর চৌধুরী। বিজেপি স‚ত্রে খবর, এর আগে প্রধানমন্ত্রী ও অমিত শাহর বৈঠকে রাজ্যসভার টিকিট এবং কেন্দ্রীয় মন্ত্রিত্ব দাবি করেন জ্যোতিরাদিত্য। রবিবার মধ্যপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিংহ চৌানের সঙ্গেও বৈঠক করেন সিন্ধিয়া। জ্যোতিরাদিত্যর সঙ্গেই ইস্তফা দিলেন কংগ্রেসের আরও ১৯ বিধায়ক। বিধানসভার অধ্যক্ষের কাছে পাঠালেন ইস্তফাপত্র। জল্পনা শেষ, কংগ্রসে ছাড়লেন জ্যোতিরাদিত্য। প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে বৈঠকের পরই ইস্তফা। এবিপি।

 

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন