ঢাকা, মঙ্গলবার, ০৭ জুলাই ২০২০, ২৩ আষাঢ় ১৪২৭, ১৫ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী

সারা বাংলার খবর

এ হত্যা কান্ড মেনে নেয়া যায় না-মোজাম্মেল হক

গানম্যান কিশোরের বিরুদ্ধে হত্যা ও অস্ত্র আইনে মামলা

গাজীপুর জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৮ এপ্রিল, ২০২০, ৫:৩৩ পিএম

গাজীপুর জেলার কালিয়াকৈরে মুক্তিযুদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রী আ.ক.ম মোজাম্মেল হকের গানম্যান পুলিশের এ এস আই কিশোর কুমারের গুলিতে শহীদ নামে এক যুবক নিহত ও মইম উদ্দিন নামে এক যুবক আহত হওয়ার ঘটনায় থানায় ২টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। 

নিহত শহীদের স্ত্রী মনোয়ারা আক্তার বাদী হয়ে হত্যা এবং পুলিশ বাদী হয়ে অস্র আইনে একটি মামলা দায়ের করেন।
অপর দিকে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক
ম মোজাম্মেল হক এক বিবৃতিতে বলেছেন, এ হত্যাকান্ড গানম্যানের ব্যক্তিগত দায়। আইন অনুযায়ী তাকে বিচারের মুখোমুখি হতে হবে। আ ক ম মোজাম্মেল হক এই হত্যাকান্ডের তীব্র নিন্দা জানান এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়ার অনুরোধ জানিয়ে বলেন, গানম্যান কিশোর গত তিন দিন ডিউটিতে ছিল না। সরকারি অস্ত্র জমা না দিয়ে অপরাধ করা কোনভাবেই মেনে নেয়া যায় না। কেউ আইনের ঊর্ধ্বে নয়। কৃত অপরাধের শাস্তি তাকে অবশ্যই পেতে হবে।
বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে কুতুবদিয়া এলাকার একটি পতিত জমিতে এ হতাহতের ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর পরই কিশোর কুমার পালিয়ে যায়। তাকে গ্রেফতার করতে রাতেই পুলিশ কিশোর কুমারের শশুর বাড়ী সহ বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালায়। অবশেষে গাজীপুর জেলা পুলিশ গোপন সংবাদের ভিওিতে খবর পেয়ে শুকবার দুপুরে ঢাকা জেলার আশুলিয়া থানার শিমুলিয়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করে। এ সময় কিশোর তার বন্ধুর বাড়িতে অবস্হান করছিলেন। গাজীপুর জেলা পুলিশ জানায়, কিশোর কুমারের হেফাজত থেকে হত্যা কান্ডে ব্যবহৃত সরকারী পিস্তল ও ৬ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়েছে। কিশোর কুমার, শহিদ ও মঈম পরস্পরের বন্ধু। রাতে তারা ওই এলাকায় আড্ডা দিচ্ছিলেন। পুলিশের ধারণা, পরিকল্পিতভাবে বা নেশাগ্রস্ত হয়ে অথবা নারী সংক্রান্ত কোন বিষয় নিয়ে এ হত্যাকান্ড সংগঠিত হতে পারে।
উল্লেখ্য বৃহস্পতিবার রাতে কোনো এক বিষয় নিয়ে ঝগড়ার এক পযায়ে কিশোর তার কাছে থাকা সরকারী পিস্তল দিয়ে শহিদ ও মঈমকে গুলি করেন। এতে শহিদের বুকে গুলি লাগলে ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান। মঈনের পেটের এক পাশে গুলিবিদ্ধ হয়। গুলির শব্দ পেয়ে এলাকাবাসী ছুটে আসলে কিশোর পালিয়ে যান। খবর পেয়ে কালিয়াকৈর থানা-পুলিশ মঈনকে উদ্ধার করে সাভারের এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করে এবং শহিদের গুলিবিদ্ধ লাশ
উদ্ধার করে কালিয়াকৈর থানায় নিয়ে আসে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন