ঢাকা বুধবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২০, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৬ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

সারা বাংলার খবর

সুন্দরবনের টিয়ারচরে ২২ হরিণসহ শিকারী আটক, বনে অবমুক্ত

শরণখোলা (বাগেরহাট) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৫ মে, ২০২০, ১২:৩৬ পিএম

পূর্ব সুন্দরবনের টিয়ারচর থেকে ফাঁদে আটকাপড়া অবস্থায় ২২টি হরিণসহ তিন শিকারীকে আটক করেছে বনরক্ষীরা। এসময় তাদের কাছ থেকে ৩০ কেজি হরিণের মাংস, সাতশত ফুট হরিণ ধরা নাইলনের ফাঁদ, দুইটি ট্রলার ও একটি ডিঙ্গি নৌকা উদ্ধার করা হয়। ফাঁদে আটকে পড়া হরিণগুলো তাৎক্ষনিকভাবে বনে আবমুক্ত করে বনরক্ষীরা। আটক শিকারীদের মঙ্গলবার সকালে শরণখোলা রেঞ্জ সদরে নিয়ে আসা হয়েছে।
বন বিভাগের শরণখোলা রেঞ্জে কর্মকর্তা (এসিএফ) মোঃ জয়নাল আবেদীন জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে বন বিভাগের কোকিলমনি ও জ্ঞানপাড়া টহল ফাঁড়ির দুইটি দল গত ৩/৪ দিন ধরে সুন্দরবনের বিভিন্ন এলাকায় চিরুনী অভিযান চালায়। অভিযান চলাকালীন সোমবার সকালে টিয়ারচর থেকে তিন শিকারীকে আটক করতে সক্ষম হয় তারা। এসময় শিকারীদের নিয়ে বনে তল্লাশি চালালে ২২টি চিত্রল হরিণ তাদের পেতে রাখা ফাঁদে আটকে থাকা আবস্থায় দেখতে পায় বনরক্ষীরা । তাৎক্ষনিকভাবে ফাঁদ কেঁটে হরিণ গুলো বনে অবমুক্ত করা হয়। এসময় তাদের কাছ থেকে উদ্ধারকৃত ৩০ কেজি হরিণের মাংস, সাতশত ফুট ফাঁদ, দুইটি ট্রলার ও একটি ডিঙ্গি নৌকা জব্দ করা হয়।
আটক শিকারীরা হচ্ছে, বরগুনা জেলার পাথরঘাটা উপজেলার তালুকের চরদুয়ানী গ্রামের জয়নাল খাঁর পুত্র আবুল খাঁ (৪২), কাঠালতলী বকুলতালা গ্রামের হরিপদ মিস্ত্রীর পুত্র সঞ্জয় মিস্ত্রী (৩২) ও খুলনার দাকোপ উপজেলার পানখালী গ্রামের মালেক শেখের পুত্র আসাদুল শেখ (২৫)। এদের বিরুদ্ধে বন আইনে মামলা দিয়ে জেলহাজতে প্রেরন করা হয়েছে। উদ্ধারকৃত মাংস আদালতের অনুমতি সাপেক্ষে মাটিচাপাঁ দেয়া হবে।
এসিএফ জানান, শিকারী দলের মুলহোতা পাথরঘাটা উপজেলার চরদুয়ানী গ্রামের এফরান গোমস্তার পুত্র মালেক গোমস্তা (৫৫) পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। তার বিরুদ্ধে বন বিভাগ ও বিভিন্ন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে প্রায় অর্ধশত মামলা রয়েছে। দুইমাস আগে সে জেলে থেকে বেরিয়ে এসে পুনঃরায় হরিণ শিকারের কাজে লিপ্ত হয়। এফরান গোমস্তা দীর্ঘদিন ধরে সুন্দরবনে চিহ্নিত কাঠ ও হরিণ শিকারী।
পুর্ব সুন্দরবন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মোঃ বেলায়েত হোসেন জানান, করোনা ভাইরাসের সুযোগ নিয়ে শিকারী চক্র তৎপর হয়ে উঠলে গত ১০ এপ্রিল থেকে বনরক্ষীদের টহল জোরদার করা হয়। এর আগে তাদের অভিযানে ১৭ শত ফুট হরিণ ধরা ফাঁদ ও ১০ কেজি হরিণের মাংস উদ্ধার করে বনরক্ষীরা। এ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে তিনি জানান।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন