ঢাকা শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১১ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

বিক্ষোভে পুলিশের নৃশংসতা ফ্রান্সে

ব্রিটেনে দাঙ্গা পুলিশের ওপর বিক্ষোভকারীদের হামলা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৫ জুন, ২০২০, ১২:০১ এএম

ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসে বর্ণবাদ বিরোধী অধিকারকর্মীদের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়েছে পুলিশের। বিক্ষোভকারীদের ওপর পুলিশ নৃশংসতা চালিয়েছে বলে তাদের দাবি। প্যারিসে এমন বিক্ষোভ আয়োজন নিষিদ্ধ ছিল। কিন্তু তা উপেক্ষা করে রাজপথে নেমে পড়েন বিক্ষোভকারীরা। এ সময় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ সৃষ্টি হয়। তারা পুলিশের বিরুদ্ধে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। জবাবে তাদের দিকে কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপ করেছে পুলিশ। উল্লেখ্য, যুক্তরাষ্ট্রে মার্কিন যুবক জর্জ ফ্লয়েডের হত্যাকান্ডকে কেন্দ্র করে বিশ^জুড়ে বøাক লাইভস ম্যাটার বিক্ষোভের ডাক দেয়া হয়। তারই অংশ হিসেবে প্যারিসে এদিন বিক্ষোভ আয়োজন করা হয়। প্যারিসে এই বিক্ষোভ আয়োজন করা হয় ‘জাস্টিস ফর আদামা’র ব্যানারে। উল্লেখ্য, ২০১৬ সালে ফরাসি পুলিশের হেফাজতে মারা যান কৃষ্ণাঙ্গ আদামা ট্রেওরে। তার স্মৃতিকে স্মরণ করে এমন ব্যানারে বিক্ষোভ আয়োজন করা হয়। এ খবর দিয়ে অনলাইন বিবিসি বলছে, নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে শনিবার বিকেলে প্যারিসের কেন্দ্রীয় অঞ্চলে প্যালেস ডি লা রিপাবলিকে সমবেত হন প্রায় ১৫ হাজার বর্ণবাদ বিরোধী বিক্ষোভকারী। তারা সেøাগান দিতে থাকেন ‘নো জাস্টিস, নো পিস’। অর্থাৎ ন্যায়বিচার না হলে শান্তি ফিরবে না। ফ্রান্স প্রজাতন্ত্রের প্রতীক মারিয়ানে ম‚র্তির ওপর চড়ে বসেন বিক্ষোভকারীদের কেউ কেউ। এই বিক্ষোভে অংশ নিয়েছিলেন আদামা ট্রেওরে’র বোন আশা ট্রেওরে। তিনি সামাজিক, বর্ণবাদ এবং পুলিশি নৃশংসতার নিন্দা জানিয়েছেন। আশা ট্রেওরে বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রে যা যা ঘটছে তাই এখন ঘটছে ফ্রান্সে। এখানেও আমার ভাইয়েরা মারা যাচ্ছে। নিষেধাজ্ঞা সত্তে¡ বিক্ষোভকারীদের সমবেত হতে দেয় পুলিশ। তবে বিক্ষোভ এক পর্যায়ে অপেরা এলাকার দিকে অগ্রসর হতে চেষ্টা করে। কিন্তু তাতে বাধা দেয় পুলিশ। বিক্ষোভের কারণে স্থানীয় ব্যবসা বাণিজ্য ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে এমন আশঙ্কায় পুলিশ পরিকল্পিত এই বিক্ষোভ সামনে অগ্রসর হতে নিষেধাজ্ঞা দেয়। কিন্তু প্যালেস ডি লা রিপাবলিকের কাছে বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়। সেখানে কাঁদানে গ্যাস ছোড়ে পুলিশ। অপর দিকে, ব্রিটেনের লন্ডনে বর্ণবাদবিরোধী আন্দোলনের বিরুদ্ধে জমায়েত হওয়া বিক্ষোভকারীরা পুলিশের ওপর ইটপাটকেল ছুড়েছে। বিক্ষোভকারীরা বলছেন, বর্ণবাদবিরোধী বিক্ষোভকারীদের হাত থেকে রাজধানীর ভাস্কর্যগুলোকে রক্ষার জন্যই তারা মাঠে নেমেছেন। খবর বিবিসির। উগ্র ডানপন্থীসহ বেশ কয়েকটি সংগঠনের দাবি, ব্রিটেনের ইতিহাসকে রক্ষা করার জন্য তারা সবাইকে লন্ডনে সমবেত হওয়ার ডাক দিয়েছেন। লন্ডনের মেট্রোপলিটন পুলিশ এ ধরনের সমাবেশের ব্যাপারে শুক্রবার কিছু শর্তারোপ করেছিল। বিক্ষোভের সময় শত শত শ্বেতাঙ্গ লন্ডনে যুদ্ধের স্মৃতিসৌধ সেনোটাফ এবং পার্লামেন্ট ভবনের কাছে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধকালীন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী উইনস্টন চার্চিলের ভাস্কর্যের কাছে জড়ো হন। এ সময় দাঙ্গা পুলিশের সঙ্গে তাদের বেশ কয়েকটি জায়গায় সংঘর্ষ হয়। শ্বেতাঙ্গরা ইংল্যান্ড ইংল্যান্ড সেøাগান দিতে থাকেন। এর পর উগ্র ডানপন্থী কয়েকটি বড় দল লন্ডনের ট্রাফালগার স্কয়ার এলাকায় অবস্থান নেয়। তাদের একটি দল হাইড পার্ক এলাকায় ঢুকে পড়ার চেষ্টা করলে পুলিশ তাদের আটকে দেয়ার চেষ্টা করে। এ সময় ওই পার্কে একটি শান্তিপ‚র্ণ বর্ণবাদবিরোধী বিক্ষোভ চলছিল। বর্ণবাদবিরোধী আন্দোলন বø্যাক লাইভস ম্যাটার্সের আয়োজকরা মানুষকে এসব সমাবেশ এড়িয়ে চলার পরামর্শ দিয়েছেন। বর্ণবাদবিরোধী বিক্ষোভের সময় লন্ডনসহ বেশ কয়েকটি শহরে ঐতিহাসিক ব্যক্তিত্বদের ভাস্কর্য বিকৃত করা হয়। বিবিসি।

 

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন