ঢাকা, মঙ্গলবার, ১১ আগস্ট ২০২০, ২৭ শ্রাবণ ১৪২৭, ২০ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

সারা বাংলার খবর

শরণখোলায় নির্মানাধীন বাঁধ পরিদর্শনে সেনাবাহিনীর জিওসি

শরণখোলা (বাগেরহাট) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৭ জুলাই, ২০২০, ৭:৪৫ পিএম

বাগেরহাটের শরণখোলায় সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে নির্মানাধীন বেড়িবাঁধ পরিদর্শন করেছেন ৭ পদাতিক ডিভিশনের জিওসি মেজর জেনারেল আবুল কালাম মোহাম্মদ জিয়াউর রহমান এনডিসি পিএসসি। আজ মঙ্গলবার সকাল ১১ টায় উপজেলার সাউথালী ইউনিয়নের ভাঙন কবলিত গাবতলা ও বগী এলাকা ঘুরে কাজের অগ্রগতি সম্পর্কে খোঁজ খবর নেন এবং বালুর বস্তার দিয়ে ডাম্পিং কাজের উদ্ধোধন করেন। এসময় তিনি ঘুর্ণিঝড় আম্পানে ক্ষতিগ্রস্ত ২০ পরিবারকে ত্রাণ সহায়তা দেন।
পরিদর্শকালে তার সাথে ২৮ পদাতিক বিগ্রেডিয়ার জেনারেল মো. আল মাসুম, মেজর মো. সাদেকিন, বাগেরহাটের পুলিশ সুপার পঙ্কজ কুমার রায়, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. রিয়াজুল ইসলাম, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সরদার মোস্তফা শাহিন, পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. নাহিদুজ্জামান উপস্থিত ছিলেন।
সংশ্লিষ্টরা জানান, বিশ্ব ব্যাংকের অর্থায়নে উপকূল রক্ষা প্রকল্পের (সিআরপি) আওতায় নির্মানাধীন বেড়িবাঁধের প্রায় ২ কিলোমিটার গত ২০ মে ঘুর্ণিঝড় আম্পানে সম্পূর্ণ বিলিন হয়ে যায়। পাঁচটি গ্রাম প্লাবিত হয়ে শত শত মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এরপর বাঁধের ক্ষয়ক্ষতি দেখতে পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী কর্ণেল (অব.) জাহিদ ফারুক শরণখোলায় আসেন। এসময় তিনি এলাকাবাসীর ক্ষয়ক্ষতি লাঘবে দ্রুত ওই বাঁধ নির্মাণে সেনাবাহিনীকে দায়িত্ব দেন।
গত ৫ জুন সেনাবাহিনীর ২৮ পদাতিক ব্রিগেডের তত্ত্বাবধানে ক্ষতিগ্রস্ত ১৭০০ মিটার বাঁধ নির্মাণের কাজ শুরু করে। তারা গত এক মাসের মধ্যে বাঁধের বিভিন্ন স্থানে বল্লি, ড্রামশিট ও জিওব্যাগ দিয়ে ঝুঁকিমুক্ত করেন। আট কোটি টাকা ব্যায় সাপেক্ষে ভেঙে যাওয়া বাঁধ নির্মাণে চারটি প্যাকেজের মাধ্যমে ঠিকাদার নিয়োগ দেয়া হয়েছে।
এ ব্যাপারে বাঁধ সংলগ্ন গ্রামবাসী আ. খালেক, জাহাঙ্গীর ফরাজী, জাকারিয়া সরদার বলেন, প্রায় ৫ বছর আগে থেকে চায়নার ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠনের মাধ্যমে বেড়িবাঁধের কাজ শুরু হলেও তারা আমাদের ঝুঁকিপূর্ণ এলাকায় কোন কাজ করেনি। যার কারণে বাঁধের এই অংশে প্রতি বছর ভেঙে আমাদের বাড়ি-ঘর নদীতে বিলিন হয়ে গেছে। সেনাবাহিনী দ্রুততার সাথে কাজ করায় তারা স্বস্তি ফিরে পান।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন