ঢাকা বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৮ আশ্বিন ১৪২৭, ০৫ সফর ১৪৪২ হিজরী

সারা বাংলার খবর

বুড়িগঙ্গা নদী থেকে ২ শিশুর লাশ উদ্ধার

প্রকাশের সময় : ৪ আগস্ট, ২০১৬, ১২:০০ এএম

কেরানীগঞ্জ উপজেলা সংবাদদাতা : ঢাকার কেরানীগঞ্জে বুড়িগঙ্গা নদী থেকে পৃথক ঘটনায় গতকাল (বুধবার) সকালে দুই শিশুর লাশ উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ। লাশ দুইট উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে  প্রেরণ করা হয়েছে ।
কেরানীগঞ্জ মডেল থানার পুলিশ উপ-পরিদর্শক মোঃ শাহাদাৎ হোসেন জানান, লোক মারফত খবর পেয়ে বুড়িগঙ্গা নদীর কামরাঙ্গীরচর মাদবর বাজার ঘাট এলাকায় ভাসমান অবস্থায় ইয়াসিন (১১) নামে এক স্কুলছাত্রের লাশ উদ্ধার করা হয়। নিহত ইয়াসিনের বাবার নাম আক্তার হোসেন ঝন্টু।  ইয়াসিন কামরাঙ্গীরচরের জননী কিন্ডার গার্টেন এন্ড স্কুলের চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্র। তারা কামরাঙ্গীরচরের ওসমান মিয়ার ঘাট এলাকায় দেলোয়ার হোসেনের বাড়িতে ভাড়া থাকতো।  নিহতের মামা মোঃ বদর উদ্দীন মিঠু জানান, গত সোমবার বিকেলে ইয়াসিন খেলার কথা বলে বাড়ি থেকে বের হয়ে আর ফিরে আসেনি। বিভিন্ন জায়গায় তাকে খোঁজাখুঁজি করা হচ্ছিল। গতকাল সকালে বুড়িগঙ্গা নদীর মাদবর চর ঘাটে ভাসমান লাশের খবর পেয়ে সেখানে গিয়ে ইয়াসিনের লাশ শনাক্ত করা হয়। শিশুটির পরিবার অভিযোগ করেছে যে, তার মা রাণী বেগম ইয়াসিন নিখোঁজের পরপরই কামরাঙ্গীরচর থানায় গিয়েও পুলিশের কোন সহযোগিতা পাননি। বেশ কয়েকবার থানায় গেলেও কর্তব্যরত কর্মকর্তা এসআই আনন্দ তার নিখোঁজ হবার জিডি গ্রহণ করেননি। এছাড়া লাশ উদ্ধারেও গড়িমসি করে।  
অপরদিকে সকালে বুড়িগঙ্গা নদীর সদরঘাট এলাকা থেকে ভাসমান অবস্থায় ইমরান হোসেন (১২) নামে এক প্রতিবন্ধী শিশুর লাশ উদ্ধার করে দক্ষিণ থানার নৌ-ফাঁড়ির পুলিশ । তার মায়ের নাম রেনু বেগম। নৌ-ফাঁড়ির ইনচার্জ মোঃ শামছুুল আলম জানান, তারা ঢাকার বাদামতলী এলাকায় ভাড়া থাকে। গত মঙ্গলবার ইমরান বুড়িগঙ্গা নদীতে গোসল করতে নেমে নিখোঁজ হয়। একদিন পর ইমরানের লাশ বুড়িগঙ্গা নদীর সদরঘাটে ভেসে উঠলে লোকজনের মাধ্যমে খবর পেয়ে  ইমরানের মা রেনু বেগম তার লাশ শনাক্ত করেন। তাদের গ্রামের বাড়ি পটুয়াখালী জেলার বাউফল থানার বাশপাড়া গ্রামে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন