বৃহস্পতিবার, ২০ জানুয়ারী ২০২২, ০৬ মাঘ ১৪২৮, ১৬ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

মহানগর

চাক্তাই খাতুনগঞ্জের পানিবদ্ধতা নিরসনে সাত দফা দাবি কঠোর কর্মসূচি দেয়ার হুঁশিয়ারি ব্যবসায়ীদের

প্রকাশের সময় : ৭ আগস্ট, ২০১৬, ১২:০০ এএম

চট্টগ্রাম ব্যুরো : নগরীর প্রধান বাণিজ্যকেন্দ্র চাক্তাই-খাতুনগঞ্জ ও আছাদগঞ্জের পানিবদ্ধতা নিরসনে কর্ণফুলীর ড্রেজিং, প্রতিরক্ষা বাঁধ ও ¯øুইস গেট নির্মাণসহ সাত দফা দাবি জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। গতকাল (শনিবার) পানিবদ্ধতা নিরসনের দাবিতে সকাল ১১টা থেকে ১২টা পর্যন্ত দোকান ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রেখে মানববন্ধন ও সমাবেশ করেন ব্যবসায়ীরা। চাক্তাই-খাতুনগঞ্জ আড়তদার সাধারণ ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতি আয়োজিত কর্মসূচিতে ব্যবসায়ীরা পানিবদ্ধতা নিরসনে প্রয়োজনে আরও কঠোর কর্মসূচি দেয়ার হুঁশিয়ারি দেন। মানববন্ধন চলাকালে সেখানকার সব ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রেখে ব্যবসায়ী ও শ্রমিকরা সড়কে অবস্থান নেন। খাতুনগঞ্জের হাজী হক সুপার মার্কেটের সামনের সড়কে করা অস্থায়ী পান্ডেল থেকে ব্যবসায়ী নেতারা বক্তব্য রাখেন।
মানববন্ধন চলাকালে সমাবেশে সভাপতির বক্তব্যে কল্যাণ সমিতির সভাপতি সোলায়মান বাদশা বলেন, প্রধানমন্ত্রী ও পানিসম্পদমন্ত্রীকে বলতে চাই, এখানকার ব্যবসায়ীরা ভোগ্যপণ্য আমদানি-রফতানির ব্যবসা করলেও পুরোপুরি বঞ্চিত। পানিবদ্ধতার কারণে কোটি টাকার পণ্য নষ্ট হয়। তাই ব্যাংকের দেনা শোধ করতে না পেরে কেউ কেউ দেউলিয়া হয়ে যায়। পানিবদ্ধতা নিরসনে প্রয়োজনে আরও কঠোর কর্মসূচি দেয়ার হুশিয়ারি দিয়ে সোলায়মান বাদশা বলেন, ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন কখনো বিফলে যায় না। এরপর তিনি সাত দফা দাবি ঘোষণা করেন।
সাত দফার মধ্যে রয়েছেÑকর্ণফুলী ড্রেজিং করে নাব্যতা ফেরানো ও নদী থেকে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ, স্থায়ী প্রতিরক্ষা বাঁধ নির্মাণ, খালের মুখে ¯øুইস গেইট এমন পদ্ধতিতে স্থাপন যাতে পণ্যবাহী ট্রলার ও নৌকা প্রবেশ করতে পারে, জঙ্গিবাদ থেকে চাক্তাই-খাতুনগঞ্জকে রক্ষা, গণশৌচাগার স্থাপন, কমিউনিটি হল নির্মাণ ও নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত করা।
ব্যবসায়ীদের নির্ধারিত কর্মসূচির শেষ মুহূর্তে বেলা ১২টায় সমাবেশ স্থলে আসেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র বলেন, ব্যবসায়ীরা যে দাবিতে পথে নেমেছে তা ন্যায্য ও যৌক্তিক। অতীতে দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা না নেয়ায় এ সমস্যা প্রকট হয়েছে। চাক্তাই খাল খনন করলেই সমস্যার সমাধান হবে না উল্লেখ করে নাছির বলেন, এখন কম পানিতে পানিবদ্ধতা হচ্ছে, তখন বেশি পানিতে হবে। আশার আলো দেখছি। পানি সম্পদমন্ত্রী কর্ণফুলী নদীর তীরে বেড়িবাঁধ নির্মাণ প্রকল্পে রাজি হয়েছেন। দেড় মাসের মধ্যে এর ডিপিপি চূড়ান্ত হবে। পাঁচ মাসের মধ্যে প্রকল্পের চূড়ান্ত অনুমোদন হবে। ওই প্রকল্পের অধীনে নগরীর ২৬টি খালের মুখে ¯øুইস গেট নির্মাণ হবে জানিয়ে মেয়র নাছির বলেন, সর্বসাকুল্যে দুই মাসের মধ্যে কর্ণফুলীতে ড্রেজিংও শুরু হবে।
সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মীর গ্রæপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবদুস সালাম, চট্টগ্রাম চেম্বারের সাবেক পরিচালক আলমগীর পারভেজ, বক্সিরহাট ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর জামাল হোসেন, ব্যবসায়ী নেতা জাহাঙ্গীর আলম, নুরুদ্দিন ও মো. সাহাবুদ্দিন। গত বুধবার থেকে চট্টগ্রামের সবচেয়ে বড় ভোগ্যপণ্যের এ পাইকারি বাজারে জোয়ারের সময় পানিবদ্ধতার সৃষ্টি হচ্ছে। পরে সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনকে স্মারকলিপি প্রদান করেন চাক্তাই খাতুনগঞ্জ আড়তদার সাধারণ ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির নেতৃবৃন্দ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন