ঢাকা শুক্রবার, ২২ জানুয়ারি ২০২১, ০৮ মাঘ ১৪২৭, ০৮ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

সারা বাংলার খবর

ভাঙ্গন প্রতিরোধে দ্রুত কাজ চলছে : নূরুল আমিন রুহুল এমপি

মেঘনা-ধনাগোধা সেচ প্রকল্পের বেড়িবাধেঁ মেঘনার ভাঙ্গন এখনও ঝুঁকিমুক্ত নয়, প্রতিরোধে কাজ চলছে

মতলব উত্তর(চাঁদপুর)উপজেরা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১০:৩৪ এএম

মেঘনা -ধনাগোধা সেচ প্রকল্পের বেড়িবাধেঁ মেঘনার ভাঙ্গন এখনও ঝুঁকিমুক্ত নয়।। প্রতিরোধে বেরিবাধ এর ঝুঁকিপূর্ণ জায়গাটিতে বালুভর্তি জিও ব্যাগ ফেলে ঝুঁকি মুক্ত করার চেষ্টা চলছে।
শুক্রবার রাত সাড়ে ৯টায় চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার মেঘনা – ধনাগোধা সেচ প্রকপ্লের মূল বেড়িবাধেঁর জনতা বাজার(কাচারীকান্দি) এলাকায় মেঘনার আকস্মিক ভাঙ্গন শুরু হয় । ভাঙ্গন দেখা দিলে হাজার হাজার জনগন বালু ভর্তি বস্তা দিয়ে ভাঙ্গন ঠেকানোর কাজ শুরু করে । খবর পেয়ে এসে ভাঙ্গন রোধে কাজ করছে পানি উন্নয়ন বোর্ড,ফায়ার সার্ভিস , পুলিশ ও সেনা সদস্যরা। ভাঙ্গন খবরের পর থেকে নির্ঘুম রাত কেটেছে বাঁধবাসীর। মাইকিং করে জনগনকে ভাঙ্গন প্রতিরোধে এগিয়ে আসার আহবান জানানো হয় এবং সকলকে দোয়া করতে বলা হয়।
মেঘনা-ধনাগোদা সেচ প্রকল্পের নির্বাহী প্রকৌশলী মামুন হাওলাদার শুক্রবার রাতে সাংবাদিকদের জানান, মতলব উত্তর জনতা বাজার এলাকায় ১৫০মিটারে মেঘনার ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে । এতে ঝুঁকিতে রয়েছে মেঘনা-ধনাগোদা সেচ প্রকল্পের বাঁধ। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে তাৎক্ষণিক অবহিত করা হয়েছে বলে তিনি জানান।
রাতে এ বিষয়ে কথা হয় স্থানীয় সংসদ সদস্য অ্যাডঃ নূরুল আমিন রুহুলের সাথে। তিনি এ প্রতিবেদককে জানান, মেঘনা-ধনাগোদা সেচ প্রকল্পের চাঁদপুরস্থ কার্যালয়ের এখানে চরম গাফিলতি রয়েছে। বহু আগে প্রকল্প বাঁধের সংস্কার কাজের ডিপিপি করা হয়েছে এবং এটি এখনো চাঁদপুরেই পড়ে রয়েছে। তাদের কাজের গাফিলতির কারণেই আজ এ অবস্থা। তিনি বলেন, আমি ভাঙ্গনের বিষয়টি শোনার সাথে সাথে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানসহ সংশ্লিষ্টদের সাথে কথা বলেছি। ইতিমধ্যে ভাঙ্গন রোধে বালুর ব্যাগ ফেলার কাজ শুরু হয়ে গেছে। ইনশাল্লাহ বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটবে না। তিনি আরো বলেন, আমি পানি সম্পদ উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীমের সাথেও কথা বলেছি। দ্রুত সব ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। আতঙ্কিত হওয়ার কারণ নেই।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন