মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০, ১৬ শাবান সানি ১৪৪৫ হিজরী

সারা বাংলার খবর

সোনারগাঁয়ে শ্রমিক দুর্ঘটনাকে কেন্দ্র করে মহাসড়ক ৩ ঘণ্টা অবরোধ, গাড়ি ভাঙচুর

প্রকাশের সময় : ২১ আগস্ট, ২০১৬, ১২:০০ এএম

সোনারগাঁ উপজেলা সংবাদদাতা : নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও পৌরসভার টিপরদী এলাকায় অবস্থিত চৈতী কম্পোজিট নামের একটি পোশাক তৈরির কারখানার এক নারী শ্রমিকের সড়ক দুর্ঘটনাকে কেন্দ্র করে শনিবার সকালে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক ৩ ঘণ্টা অবরোধ করে রাখে শ্রমিকরা। এ সময় উত্তেজিত শ্রমিকরা রাস্তায় দুপাশে আগুন জ্বালিয়ে বিক্ষোভ কর্মসূচির পালন করে কয়েকটি যানবাহন ভাংচুর করে। পরে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সুষ্ঠু বিচারের আশ্বাসে অবরোধ তুলে নেয় তারা।
শ্রমিকরা জানায়, গত শুক্রবার বিকেলে চৈতী কম্পোজিট গার্মেন্টের কল্পনা রানী নামের এক সুয়িং অপারেটন ফেরার উদ্দেশে গার্মেন্ট থেকে বের হয়ে ঢাকা মহাসড়ক পার হওয়ার সময় একটি দ্রুতগামী যাত্রীবাহী বাস তাকে ধাক্কা দিয়ে রাস্তার পাশে ফেলে দেয়। পরে তার সাথে থাকা অন্য শ্রমিকরা মারাত্মক আহত শ্রমিককে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে। খবর পেয়ে ওই গার্মেন্টের অন্য শ্রমিকরা রাস্তায় বেরিয়ে আসার চেষ্টা করলে কর্তৃপক্ষের উন্নত চিকিৎসা ও ক্ষতিপূরণ দেয়ার হবে এমন আশ্বাসে তারা কাজে ফিরে যায়। এদিকে আহত কল্পনারানীকে ঢাকা মেডিকেলে ভালো চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে না এ খবর পেয়ে শনিবার সকালে শ্রমিকরা কাজে যোগদান না করে তারা মহাসড়ক অবরোধ করে রাখে। এ সময় তারা মহাসড়কের দু’পাশের আগুন জ্বালিয়ে সকাল ৯টা থেকে ১১টায় অবরোধ করে কয়েকটি গাড়ি ভাঙচুর করে। খবর পেয়ে কাঁচপুর হাইওয়ে পুলিশের সহকারী পুলিশ সুপার (ট্যাফিক) বদলুল আলম, সোনারগাঁ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) ওবাইদুল হক ও ইন্ডাষ্ট্রিয়াল পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে তাদেরকে শান্ত করার চেষ্টা করে। পরে পুলিশ মালিক পক্ষের সাথে কথা বলে শ্রমিকদের দাবি দাওয়া পূরণ করা হবে প্রশাসনের এমন আশ্বাসে শ্রমিকরা মহাসড়ক থেকে কাজে যোগদান করে।
কাঁচপুর হাইওয়ে ওসি শরিফুল আলম জানান, গত শুক্রবার বিকেলে এক নারী শ্রমিক দুর্ঘটনাকে কেন্দ্র করে ও তারা দীর্ঘদিন যাবৎ ওই দুর্ঘটনা কবলিত স্থানে একটি ফুটওভার ব্রিজ নির্মাণ, একটি অ্যাম্বুলেন্স ও শ্রমিকদের ক্ষতিপূরণসহ কয়েকটি দাবি উপস্থাপন করেছে। আমরা তাদেরকে আশ্বস্ত করিছি। মালিক পক্ষের সাথে এ বিষয়ে কথা বলে আপনাদের দাবিগুলো পূরণের চেষ্টা করব। পরে তারা তাদের অবরোধ তুলে নেয়। আমরা পরে মালিক পক্ষের সাথে কথা বলেছি তারা আমাদের আশ্বস্ত করেছে যে অতি শিগগিরই তারা এসব দাবিগুলো পূরণের চেষ্টা করবে।

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন