ঢাকা রোববার, ২৪ জানুয়ারি ২০২১, ১০ মাঘ ১৪২৭, ১০ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

দাবায়ে রাখা যায় না, সেটা প্রমাণ করেছি : শেখ হাসিনা

এমডি পদের লোভে পদ্মা সেতু প্রকল্প বন্ধের ব্যবস্থা করেছিল

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৩ জানুয়ারি, ২০২১, ১২:০১ এএম

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, নিজেদের অর্থায়নে পদ্মা সেতু করার সিদ্ধান্তই সারা বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি পরিবর্তন করে দিয়েছে। বাংলাদেশ পরনির্ভরশীল না। বাংলাদেশের মানুষ সম্পর্কে জাতির পিতা বলেছিলেন কেউ দাবায়ে রাখতে পারবা না। আমাদের যে দাবায় রাখা যায় না, সেটা আমরা প্রমাণ করেছি। পদ্মা সেতু প্রকল্পকে প্রশ্নবিদ্ধ করার পেছনে আমাদের দেশেরই স্বনামধন্য কিছু লোক জড়িত ছিল, যেটা আমাদের দুর্ভাগ্য।

গতকাল সোমবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে ভার্চুয়াল মন্ত্রিসভা বৈঠকের সূচনা বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন। গণভবন থেকে প্রধানমন্ত্রী ও সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ প্রান্ত থেকে মন্ত্রীরা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বৈঠকে যোগ দেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ২০২১ সালের প্রথম মিটিং আমরা করছি। সবাইকে ইংরেজি নববর্ষের শুভেচ্ছা। এই বছরটা আমাদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। ২০২০ সালে আমরা আমাদের মহান নেতা সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন করছি।

আর সেই সাথে ২০২১ সালে এসে জাতির পিতার জন্ম শতবার্ষিকীর সঙ্গে আবার আমরা স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন করতে যাচ্ছি। সেই জন্য বাংলাদেশের জন্য এটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তিনি বলেন, একটি ব্যাংকের সামান্য একটি এমডি পদের লোভে একটি দেশের সার্বিক উন্নয়নে যেটি বিরাট ভূমিকা রাখতে পারে, যে পদ্মা সেতু আমাদের দক্ষিণের ২২টি জেলার মধ্যে সরাসরি সংযোগ স্থাপনের মাধ্যমে জিডিপি প্রবৃদ্ধি শতকরা ২ শতাংশ বাড়িয়ে দিতে পারে সেটি বন্ধের ব্যবস্থা নিয়েছিল। যাহোক একটি আঘাত আসলে হয়তো মানুষ সচেতন হয় এবং নিজের কাজ করা শেখে, আমরা সেটাই শিখেছি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ঐ আঘাতটা আসাতে আমরা হতাশ না হয়ে বরং সেটাকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে গ্রহণ করে নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু করার ঘোষণা দেই এবং যেটা আজকে বাস্তবে রূপ নিয়েছে। জনগণের ভোটে আওয়ামী লীগ দীর্ঘকাল দেশ পরিচালনার সুযোগ পাওয়াতেই বাংলাদেশ আজ মর্যাদাপূর্ণ, স্বনির্ভর এবং উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে গড়ে উঠছে। সারাবিশ্ব এখন বাংলাদেশকে সম্মানের চোখে দেখছে। যেটি অতীতে ছিল না এবং বাংলাদেশ নাম বললেই ঝড়, বন্যা আর দারিদ্র্যের দেশ বলে বিশ্বে অনেকে মনে করত। বিশ্বে এই বাংলাদেশ দারিদ্র্য বিমোচন, কর্মসংস্থান, স্বাস্থ্য সুরক্ষাসহ মানুষের জীবন মান উন্নয়নে আজকে দৃষ্টান্ত সৃষ্টি করেছে যা আমাদের অব্যাহত রাখতে হবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের সীমিত সম্পদ এবং বিশাল জনসংখ্যাকে কাজে লাগিয়েই তাঁর সরকার দেশকে আত্মমর্যাদাশীল করে গড়ে তুলতে চায়। আমাদের যতটুকু আছে তা নিয়েই দেশের যে বিশাল জনগোষ্ঠী রয়েছে তাদের কর্মক্ষম করে তুলব। আমাদের উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রেখে নিজেদের আত্মমর্যাদাশীল জাতি হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে হবে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (7)
সোলায়মান ১২ জানুয়ারি, ২০২১, ২:৪৩ এএম says : 1
বিশ্বে এই বাংলাদেশ দারিদ্র্য বিমোচন, কর্মসংস্থান, স্বাস্থ্য সুরক্ষাসহ মানুষের জীবন মান উন্নয়নে আজকে দৃষ্টান্ত সৃষ্টি করেছে যা আমাদের অব্যাহত রাখতে হবে।
Total Reply(0)
MD Motear Rahaman Moti ১২ জানুয়ারি, ২০২১, ২:৪০ এএম says : 1
জাতির জনক বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এক যুগে বাংলাদেশ এগিয়েছে অনেক যুগ,এ ধারা অব্যাহত রাখতে স্বাধীনতা প্রিয় সকল শক্তি ও জনগণকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে স্ব স্ব অবস্থান থেকে একযোগে কাজ করে যেতে হবে এবং বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে আরো শক্তিশালী করে উন্নত ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মানে সকলকে অবদান রাখতে হবে। জয় বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু।
Total Reply(0)
MD Rofikul Islam ১২ জানুয়ারি, ২০২১, ২:৪১ এএম says : 1
জয় বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু
Total Reply(0)
Sheikh Sakhawat Hossain Uzzal ১২ জানুয়ারি, ২০২১, ২:৪১ এএম says : 1
সঠিক পথ সঠিক সিদ্ধান্তের জন্য আজ আপনি মানবতাময়ী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী।
Total Reply(0)
Md Riaz Uddin ১২ জানুয়ারি, ২০২১, ২:৪২ এএম says : 1
জয় বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু। বাংলাদেশ এগিয়ে যাবে শেখ হাসিনার হাত ধরে।
Total Reply(0)
MD.BORATUZZAMAN ১২ জানুয়ারি, ২০২১, ৯:৩৬ এএম says : 0
Amader Ma Jononi...Apnk Daklei Kno Jani Abeg Ase Jai Amr....Apniei Pokrito Des Premik,,,,Akdin Besse apnr Netritte Amra Agea jabo onk Dor Inshallha....
Total Reply(0)
Tareq Sabur ১২ জানুয়ারি, ২০২১, ১২:০১ পিএম says : 0
এটাও প্রমান হয়েছে সারাদেশের মানুষ অবিশ্ষাস ও নিরাপত্তাহিনতায় ভুগছে। শাসকের জন্য এর চেয়ে বড় অকৃতকার্যতা আর কি হতে পারে? দেশের মানুষ স্বাধীনভাবে বাচতে চায়।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন