ঢাকা শনিবার, ০৬ মার্চ ২০২১, ২১ ফাল্গুন ১৪২৭, ২১ রজব ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

নির্বাচন প্রক্রিয়ার পরিবর্তন না হলে সহিংসতা বন্ধ করা সম্ভব নয়

এ নির্বাচনকে অংশগ্রহণমূলক বলা যায় না সাংবাদিকদের ইসি মাহবুব

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৭ জানুয়ারি, ২০২১, ১২:০০ এএম

পৌরসভা নির্বাচনে সহিংসতা ক্রমাগত বেড়ে চলছে বলে স্বীকার করে নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার বলেছেন, নির্বাচন প্রক্রিয়ার পরিবর্তন না হলে এই সহিংসতা বন্ধ করা সম্ভব নয়। সহিংসতার ঘটনায় নির্বাচন কমিশন এককভাবে দায়ী নয়, তবে নির্বাচন কমিশন এ দায় এড়াতে পারে না। এ নির্বাচনকে অংশগ্রহণমূলক বলা যায় না।

গতকাল শনিবার সাভার সরকারি কলেজ প্রাঙ্গণে নির্বাচন পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন। মাহবুব তালুকদার বলেন, একটি মাত্র কেন্দ্রে ছাড়া কোথাও ধানের শীষ প্রতীকের কোনো এজেন্ট নেই। কোনো এজেন্ট আমি দেখতে পাইনি। একটি মাত্র দলের ছাড়া আর কারও পোস্টারও আমি দেখিনি। তিনি বলেন, আমি আশা করেছিলাম নির্বাচন অংশগ্রহণমূলক হবে এবং সেটি হলে নির্বাচনের কমিশনের জন্যে স্বস্তির বিষয় হতো।

ইসি মাহবুব বলেন, সরকার ও বিরোধীদল সকলের যদি পোলিং এজেন্ট ও পোস্টার দেখতাম তাহলে আমি আশাবাদী হতাম। ভোটারের উপস্থিতি আমার কাছে আশাব্যাঞ্জক নয়। যদি দেখতাম নির্বাচনে ভোট বেশি দেওয়া হচ্ছে- তাহলে খুব খুশি হতাম। দেশে বিভিন্ন কেন্দ্রে অপ্রীতিকর ঘটনার তথ্য তুলে ধরে তিনি বলেন, নির্বাচনী সহিংসতা থেকে আমাদের বেরিয়ে আসতে হবে। সহিংসতা আমাকে খুব কষ্ট দেয়।

মাহবুব তালুকদার বলেন, আমি সাভার পৌরসভার তিনটি ভোটকেন্দ্রের ১৮টি বুথ পরিদর্শন করেছি। দুপুর ১টা পর্যন্ত ওই সব ভোটকেন্দ্রে ৭ হাজার ৩১১ জন ভোটারের মধ্যে ১ হাজার ২৩২ জন ভোট দিয়েছেন। ৩টি বুথে আমি ৩ জন বিরোধী দলীয় প্রার্থীর পোলিং এজেন্ট দেখতে পাই। কিন্তু অন্য কোথাও এজেন্ট ছিলেন না। এছাড়া সাভার পৌর এলাকায় আমি বিরোধী দলীয় প্রার্থীর কোনো পোস্টার দেখতে পাইনি। এ অবস্থায় এই নির্বাচনকে অংশগ্রহণমূলক বলা যায় না। যে কোনো নির্বাচন অংশগ্রহণমূলক না হলে তা সিদ্ধ হয় না। তিনি বলেন, পৌরসভার নির্বাচনে ক্রমাগত সহিংসতা বেড়ে চলেছে। সহিংসতা ও নির্বাচন একসঙ্গে চলতে পারে না। নির্বাচন প্রক্রিয়ার পরিবর্তন না হলে এই সহিংসতা বন্ধ করা সম্ভব নয়। এ বিষয়ে সবার ঐকমত্য আবশ্যক। যে কোনো নির্বাচনের চেয়ে মানুষের জীবন অনেক বেশি মূল্যবান।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন