ঢাকা, সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১ আশ্বিন ১৪২৬, ১৬ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী।

সারা বাংলার খবর

১০ টাকা কেজি চাল বিক্রি শাজাহানপুরে ডিলার নিয়োগে দলীয়করণ ও অনিয়ম : স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা আটক

প্রকাশের সময় : ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

বগুড়া অফিস : বগুড়ার শাজাহানপুর উপজেলায় হত দরিদ্রদের জন্য সরকার নির্ধারিত ১০ টাকা কেজি দরে চাল বিক্রির ফেয়ার প্রাইস প্রকল্পে ডিলার নিয়োগে দলীয় করণ ও অনিয়মের মাধ্যমে ডিলার নিয়োগকে কেন্দ্র করে সরকারি দলের নেতাকর্মীদের মাঝেই ব্যাপক উত্তেজনা বিরাজ করছে। উপজেলার প্রত্যেক ইউনিয়নে ২টি করে ৯টি ইউনিয়নে মোট ১৮টি ডিলারশিপের সবগুলোই দেওয়া হয়েছে সরকারি দলের নেতাকর্মীদেরকে। অপরদিকে গতকাল শুক্রবার ১০টাকা কেজি চাল বিক্রয়ের উদ্ধোধনের দিনেই ওজনে কম দেওয়ার কারণে আটক করা হয় মাঝিড়া ইউনিয়নের ডিলার উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি রুবেল সরকারকে। পরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মাদ শাফিউল ইসলাম ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে ওই ডিলার ও স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা রুবেল সরকারের ১০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।
জানা গেছে, ১৮ টি ডিলার নিয়োগের বিপরীতে ৩৯টি আবেদন জমা পড়ে। উপজেলা হতদরিদ্র তালিকা যাচাই কমিটি যাচাই বাছাই শেষে সরকার দলীয় ১৮ জন নেতাকর্মীকে ডিলার নিয়োগ দেন। এর মধ্যে ডিলার নিয়োগ প্রাপ্ত উল্লেখ্যযোগ্য নেতারা হলেন, আড়িয়া ইউনিয়নের উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি আলমগীর হোসেন স্বপন, চোপীনগর ইউনিয়নে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মোল্লা, মাঝিড়া ইউনিয়নে উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি রুবেল সরকার, মাদলা ইউনিয়নে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি আব্দুল বারী মন্ডল, আশেকপুর ইউনিয়নে জেলা ছাত্রলীগের সাবেক উপ-বিভাগীয় সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, আমরুল ইউনিয়নে উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আসাদুজ্জামান লিটন, খরনা ইউনিয়নে ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সভাপতি বাহারাম বাদশা, খোট্রাপাড়া ইউনিয়নে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা আবুল বাশার ও গোহাইল ইউনিয়নে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুর রহমানের পুত্র আব্দুল হাকিম । ডিলার নিয়োগে অনিয়ম করা হয় আড়িয়া ইউনিয়নে। এ ইউনিয়নে খাদ্য অধিদপ্তরের নীতিমালা উপেক্ষা করে বগুড়া পৌরসভার ১৩নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি আলমগীর হোসেন স্বপনকে ডিলার হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। যা নিয়ে চরম বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছে। এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও হতদরিদ্র তালিকা যাচাই কমিটির সভাপতি মোহাম্মাদ শাফিউল ইসলামের সাথে একাধিক বার মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি। উপজেলা হতদরিদ্র তালিকা যাচাই কমিটির সদস্য সচিব ও উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক ওমর ফারুক জানান, খাদ্য অধিদপ্তরের নীতিমালা মেনেই সব ডিলার নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন