ঢাকা, শনিবার, ০৪ জুলাই ২০২০, ২০ আষাঢ় ১৪২৭, ১২ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী

সারা বাংলার খবর

উন্নত পরিবেশ ও রাজনৈতিক কোলাহলমুক্ত হওয়ায় কুমিল্লা সরকারি মহিলা কলেজে বাড়ছে ছাত্রী সংখ্যা

প্রকাশের সময় : ৩ অক্টোবর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

সাদিক মামুন, কুমিল্লা থেকে : প্রতিবছরই বিপুল সংখ্যক ছাত্রী ভর্তি হচ্ছে কুমিল্লা সরকারি মহিলা কলেজে। রাজনৈতিক কোলাহলমুক্ত পরিবেশে কলেজের লেখাপড়ার মান নিয়ে ছাত্রী ও অভিভাবকরা বেশ সন্তুষ্ট। আর তাই তো সময়ের পরিক্রমায় আজ প্রায় আট হাজার ছাত্রীর স্বপ্নের শিক্ষাঙ্গনে রূপ নিয়েছে কুমিল্লা সরকারি মহিলা কলেজ।
নারী শিক্ষা প্রসারে অভাবনীয় সাফল্যের স্বাক্ষর রেখে চলেছে কুমিল্লা সরকারি মহিলা কলেজ। ৫৫ বছর ধরে শিক্ষা বিস্তারে এগিয়ে চলা কুমিল্লা সরকারি মহিলা কলেজে দেশের নামিদামী কলেজ থেকে যেমন ছাত্রী এসে ভর্তি হচ্ছে তেমনি বৃহত্তর কুমিল্লা ও নোয়াখালী অঞ্চলের ছাত্রীদের সংখ্যাও বাড়ছে। ঢাকার অন্যতম শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হলিক্রস স্কুল এন্ড কলেজের একাদশের ছাত্রী সিফাত বিনতে আলম সেখানকার ভর্তি বাতিল করে কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ডের বিশেষ অনুমতি নিয়ে কুমিল্লা সরকারি মহিলা কলেজে ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষে একাদশ বিজ্ঞানে ভর্তি হয়েছে। ওই ছাত্রীর বাবা মো. সামসুল আলম জানান, ‘মেয়ের আবদার-ইচ্ছা রক্ষা করতেই তাকে হলিক্রস থেকে কুমিল্লা সরকারি মহিলা কলেজে আনা হয়েছে। এ কলেজের শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ, নিরাপদ আবাসন ব্যবস্থা, সহশিক্ষা কার্যক্রম অন্যান্য কলেজের চেয়ে অনেক বেশি উন্নত জেনেই এখানে মেয়েকে ভর্তি করানো হয়েছে।’
কেবল হলিক্রসের ওই ছাত্রীই নয়, কুমিল্লাসহ অন্যান্য জেলার নামি কলেজ থেকেও ছাত্রীরা এখানে অধ্যয়ন করতে ভর্তি হয়ে থাকে। বর্তমান অধ্যক্ষ প্রফেসর এএসএম আবদুল ওহাবের দিক নির্দেশনায় কলেজের অতীতের সুনাম, সাফল্য ধরে রাখার লক্ষ্যে শ্রম দিচ্ছেন শিক্ষকরা। ছাত্রীরা যাতে কোচিং নির্ভর না হয়ে ক্লাসমুখি হয় এজন্য নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। কলেজে বিভিন্ন কার্যক্রমের মধ্যে রয়েছে ছাত্রী, শিক্ষক ও অভিভাবক সমাবেশ, জাতীয় দিবস উদযাপন, জঙ্গি ও সন্ত্রাসবিরোধী সমাবেশ ও মোটিভেশন, নৈতিক শিক্ষা ক্লাস নেয়া। এছাড়াও ছাত্রীদের প্রতিভা বিকাশে রয়েছে ক্রীড়া, সাংস্কৃতিক, বিতর্ক প্রতিযোগিতা ও সাহিত্য ম্যাগাজিন, দেয়াল পত্রিকা প্রকাশ এবং ছাত্রীদের জন্য নজরুল, রবীন্দ্র ও নবাব ফয়েজুন্নেসা ক্লাব রয়েছে। বর্তমান অধ্যক্ষের সৃষ্টিশীল চিন্তায় কলেজ হোস্টেলের কক্ষগুলোর নামকরণে কুমিল্লার ইতিহাস ঐতিহ্য ও বিখ্যাত ব্যক্তিদের স্মরণের বিষয়টিও ওঠে এসেছে।
কুমিল্লা শহরের ঐতিহাসিক রাণীরদিঘী থেকে মাত্র দুইশ’ গজ দক্ষিণ-পূর্ব প্রান্তে মনোহরপুর এলাকায় মনোরম পরিবেশে ৫ একর জমির ওপর ১৯৬০ সালে কলেজটি প্রতিষ্ঠিত হয়। প্রায় আট হাজার ছাত্রী কুমিল্লা সরকারি মহিলা কলেজে লেখাপড়া করছে। চট্টগ্রাম বিভাগে মেয়েদের কলেজের মধ্যে ছাত্রী সংখ্যা ও বিষয়ের দিক থেকে কুমিল্লা সরকারি মহিলা কলেজ নিঃসন্দেহে একটি অন্যতম শিক্ষাঙ্গণ। প্রায় পাঁচ কোটি টাকা ব্যয়ে দশতলা ভবনের নির্মাণ কাজ চলছে। এখানে থাকবে কলেজ অডিটরিয়াম, একাডেমিক ভবন ও শ্রেণীকক্ষ। সম্প্রতি মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের একটি প্রতিনিধি দল নতুন ভবনের কাজের অগ্রগতি ও কলেজের শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ দেখে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন।
কলেজ অধ্যক্ষ প্রফেসর এএসএম আবদুল ওহাব বলেন, ‘নারী শিক্ষার একটি অন্যতম সরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসেবে এ কলেজের অতীত সুনাম ছিল। যা পুনরুদ্ধারে আশার আলো জেগে তুলতে সক্ষম হয়েছি। ফলাফলের দিক থেকে প্রতিবছরই উন্নতির পথে এগুচ্ছে কুমিল্লা সরকারি মহিলা কলেজ। কলেজের উন্নয়ন ও শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ সৃষ্টিতে কুমিল্লার দুই কৃতি সন্তান পরিকল্পনামন্ত্রী মহোদয় আহম মুস্তফা কামাল ও সদরের এমপি মহোদয় হাজী আকম বাহাউদ্দিন বাহারের পরামর্শ ও আন্তরিক দিকনির্দেশনা রয়েছে।’

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন