ঢাকা, শুক্রবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৫ ফাল্গুন ১৪২৬, ০৩ রজব ১৪৪১ হিজরী

সারা বাংলার খবর

বেসামাল চবি ছাত্রলীগ কমিটি স্থগিত

প্রকাশের সময় : ১১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬, ১২:০০ এএম

চবি সংবাদদাতা : একের পর এক নিজেদের মধ্যে গ্রুপিং দ্বন্দ্ব ও সংঘর্ষের জের ধরে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের দুই সদস্যবিশিষ্ট কমিটি স্থগিত করা হয়েছে। মঙ্গলবার গভীর রাতে সংগঠনটির কেন্দ্রীয় কমিটি এই নির্দেশ দেয় বলে জানা যায়। পাশাপাশি চবি ছাত্রলীগের সভাপতি আলমগীর টিপু ও সাধারণ স¤পাদক ফজলে রাব্বী সুজনকে কেন বহিষ্কার করা হবে না তা তিন দিনের মধ্যে কারণ দর্শানের জন্য নির্দেশনাও দেয়া হয়েছে।
কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ ইনকিলাবকে বলেন,এখন থেকে চবি ছাত্রলীগের সকল কার্যকর্ম পরবর্তী নিদের্শ না দেওয়া পর্যন্ত স্থগিত করা হয়েছে। চলমান বিবাদের সুনির্দিষ্ট তথ্যসহ তিন দিনের ভেতর কারণ জানানোর জন্য বলা হয়েছে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকে। যদি তার তিন দিনের ভেতর দিতে ব্যর্থ হয় তাহলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
সূত্রে জানা যায়, গত বছরের ২০ জুলাই মোহাম্মদ আলমগীর টিপুকে সভাপতি ও এইচ এম ফজলে রাব্বি সুজনকে সাধারণ সম্পাদক করে দুই সদস্য বিশিষ্ট কমিটি ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। আলমগীর টিপু সিটি মেয়র ও নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাসির উদ্দিনের অনুসারী ও ফজলে রাব্বি সুজন নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক সিটি মেয়র এ বি এম মহিউদ্দিনের অনুসারী। কমিটি গঠনের পর সাত মাস আতিবাহিত না হতেই তারা নিজেরা চারবার সংঘর্ষে জড়ায়। এতে ৫০ থেকে ৬০ নেতাকর্মী আহত হয়। সবশেষ সোমবার কথা কাটাকাটির জের ধরে সংঘর্ষে লিপ্ত হয় সভাপতি ও সাধারন সম্পাদকের গ্রুপ। এসময় উভয় গ্রুপের পাঁচ কর্মী আহত হয়। এর জের ধরে মঙ্গলবার বার রাত ১২টার দিকে পুনরায় সংঘর্ষে লিপ্ত হয় উভয় গ্রুপ।
এই দিকে সোমবার দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত হওয়ার ঘটনায় দুইটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। দুটি মামলাই হাটহাজারী মডেল থানায় দায়ের করা হয়। মামলা বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন হাটহাজারী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইসমাইল হোসেন।
অন্যদিকে পর পর দুই দিন ছাত্রলীগের সংঘর্ষের ঘটনায় চার সদস্যবিশিষ্ট একটি অনুসন্ধান কমিটি গঠন করেছে বিশ^বিদ্যালয় প্রশাসন। কমিটিকে আগামী সাত দিনের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে। বন ও পরিবেশবিদ্যা ইনস্টিটিউটের অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ জসীম উদ্দিনকে আহ্বায়ক করে ও সহকারী প্রক্টর হেলাল উদ্দিন আহম্মেদকে সদস্য সচিব করে এ অনুসন্ধান কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির অন্য দুই সদস্যরা হলেন, সহকারী প্রক্টর মিজানুর রহমান ও শহিদুল ইসলাম।
বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরীর নিজ ক্ষমতা বলে গতকাল বুধবার দুপুরে এ কমিটি গঠন করেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর মোহাম্মদ আলী আজগর চৌধুরী বলেন,এসব ঘটনার কেন ঘটছে এসব তথ্য উৎঘাটনের জন্যই এ কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটিকে আগামী সাত দিনের মধ্যে ভিসি বরাবার প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন