সোমবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২১, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ৩০ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

সারা বাংলার খবর

পূজামণ্ডপে কোরআন রাখা ইকবালকে কুমিল্লায় এনে চলছে জিজ্ঞাসাবাদ

কুমিল্লা থেকে সাদিক মামুন | প্রকাশের সময় : ২২ অক্টোবর, ২০২১, ৩:৩৯ পিএম

কক্সবাজার সমুদ্র সৈকত এলাকা থেকে গ্রেফতার হওয়া আলোচিত যুবক ইকবাল হোসেনকে কড়া পাহারায় কুমিল্লায় এনে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ।শুক্রবার (২২ অক্টোবর)দুপুর ১২টার দিকে ইকবালকে বহন করা পুলিশের গাড়ি কুমিল্লা পুলিশ লাইন্সে পৌঁছায়। এরআগে ভোর সাড়ে ৬টার দিকে কক্সবাজারের পুলিশ সুপার কার্যালয় থেকে তাকে নিয়ে কুমিল্লার উদ্দেশে রওনা হন কুমিল্লার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. সোহান সরকারের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল।

কুমিল্লা নগরীর নানুয়াদিঘী পাড়ে একটি অস্থায়ী একটি পূজামন্ডপে ইকবাল হোসেন নামের ওই যুবক পবিত্র কোরআন শরীফ রাখে। আর ঘটনাকে কেন্দ্র করে দেশের বিভিন্ন স্থানে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের মন্দির, পূজামন্ডপ ও বাড়ি ঘরে হামলা ভাংচুর ও সহিংসতার ঘটনা ঘটে।
এদিকে স্থানীয় সাংবাদিকদের অনুরোধে বেলা সাড়ে ১২টার দিকে ইকবালকে কেবল ফটো ও ভিডিও ধারনের জন্য সাংবাদিকদের সামনে আনা হয়। এ সময় তার মাথায় হেমলেট ও শরীরে বুলেটপ্রুফ জ্যাকেট ছিল।
কুমিল্লার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এম তানভীর আহমেদ সাংবাদিকদের বলেন, আমরা ইকবালকে ঘটনার বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করার পরই এ বিষয়ে গণমাধ্যমে বিস্তারিত জানানো হবে। তবে এটা কখন করা হবে সময় নির্ধারণ হয়নি।
এদিকে পুলিশ জানায়, বৃহস্পতিবার রাত ১১ টার দিকে জেলা পুলিশের একটি টিম ইকবালকে কুমিল্লায় আনতে রওনা দিয়ে ভোরে কক্সবাজার পৌঁছায়। কিছু আনুষ্ঠানিকতা শেষে তাকে নিয়ে শুক্রবার সকাল পৌনে ৭টার দিকে কুমিল্লার পথে যাত্রা শুরু করে পুলিশের ওই টিম।
কুমিল্লার পুলিশ সুপার ফারুক আহমেদ সাংবাদিকদের জানান, ইকবালকে আনা হয়েছে। তাকে ঘটনার বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। আমরা সিসিটিভি ফুটেজে যে ইকবালকে শনাক্ত করে ছিলাম এটা সেই ইকবাল। গত ১৩ অক্টোবর ভোর রাতে নগরীর নানুয়া দীঘির পাড় এলাকার একটি পুজামন্ডপে পবিত্র কোরআন রেখেছিল এই ইকবাল।সিসিটিভির ফুটেজে ধরা পড়ে ইকবালই পাশের দারোগাবাড়ি মসজিদ থেকে কোরআন শরীফ নিয়ে গভীররাতে মন্ডপে রাখেন।পূজামন্ডপের ওই ঘটনায় কুমিল্লা নগরীসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ে।
পূজামন্ডপে পবিত্র কোরআন শরীফ রাখার ঘটনায় প্রধান অভিযুক্ত ইকবালকে ঘটনার পর থেকে হন্যে হয়ে খুঁজছিলেন পুলিশ ও গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরা। অবশেষে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যারাতে কক্সবাজার সমুদ্রসৈকত এলাকায় ঘুরাফেরা করার সময় ইকবাল হোসেনকে সেখানকার পুলিশের একটি দল আটক করে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন