সোমবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২১, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ৩০ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

সারা বাংলার খবর

পৌর মেয়র এম মোস্তফা পাঁচ বছর ছাগলনাইয়া পৌরবাসী উন্নয়নের সুফল পাচ্ছে

ছাগলনাইয়া (ফেনী) উপজেলা সংবাদাদাতা | প্রকাশের সময় : ২৫ অক্টোবর, ২০২১, ১২:২৬ পিএম

ফেনীর ছাগলনাইয়া পৌরসভার যাত্রা শুরু ২০০২ সালে। ৯টি ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত পৌরসভার আয়তন ২৮ বর্গকিলোমিটার। জনসংখ্যা ৬৫ হাজার ৭১৮ জন। মোট ভোটার ৩৩ হাজার ৯৭ জন। বর্তমান মেয়র এম মোস্তফার ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় ২০১৯ সালের মে মাসে পৌরসভাটি ‘ক’ শ্রেণিতে উন্নীত হয়। গত পাঁচ বছরে শতকোটি টাকা ব্যায়ে রাস্তঘাট ব্রীজ কালর্ভাট ও ড্রেনেজ ব্যবস্থার আশাতীত উন্নয়নে বেড়েছে নাগরিগ সুবিধা। আর উন্নয়নের এ ধারা অব্যাহত রাখতে আবারো পৌরবাসী সমর্থন চান বর্তমান মেয়র এম মোস্তফা। আগামী ২ নভেম্বর অনুষ্ঠিতব্য ছাগলনাইয়া পৌরসভা নির্বাচনে এম মোস্তফা দলীয় মনোনয়ন পেয়ে নৌকা প্রতীক নিয়ে আবারো নির্বাচন করছেন। চলমান বৈশ্বিক করোনা মহামারীতে নিজের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পৌরসভার উন্নয়ন কর্মকান্ড তদারকি পয়ঃনিস্কাশন ব্যবস্থা সচল শহর পরিচ্ছন্ন রাখা করোনায় সচেতনায় বৃদ্ধি এবং সচ্ছতার সাথে সরকারি সহায়তা বিতরণ নিশ্চিত করতে এম মোস্তফাকে সবসময় সক্রিয় দেখা গেছে। প্রতিটি ওয়ার্ডে ধারাবাহিক উন্নয়নের অংশ হিসেবে পৌর এলাকায় সড়ক পাকাকরণ, প্রসস্থকরণ, ব্রীজ কালভার্ট নির্মাণ, কবরস্থান সংস্কার, সড়কবাতি স্থাপন, পৌরসভার মসজিদ গুলোতে খাটিয়া প্রদান, মসজিদ, মক্তব, মাদ্রাসা উন্নয়নে আর্থিক সহায়তা প্রদানসহ শহরের সৌর্ন্দয্যবর্ধনে ব্যাপক ভূমিকা রেখেছেন তিনি। ২০১৬ সালের ২৫ মে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে বিএনপি’র প্রার্থী মো. আলমগীর বিএ-কে পরাজিত করে তিনি মেয়র নির্বাচিত হন। তিনি বলেন, ‘দায়িত্ব পালনের পাঁচ বছরে রাস্তাঘাটের ব্যাপক উন্নয়ন করেছি। পৌরসভাকে শতভাগ বিদ্যুতের আওতায় এনেছি। বিশুদ্ধ পানি সরবরাহের ব্যবস্থা করেছি। ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নয়ন কাজ চলছে। শহরের সৌন্দর্যবর্ধনের জন্য আল্লাহু ও মোহাম্মদ (সাঃ) এর নামে ইসলামি ভাস্কর্য নির্মাণ করা হয়েছে। মেয়র বলেন, ‘উন্নয়নমূলক কাজে আমার আন্তরিকতার কমতি নেই। শহরের জলাবদ্ধতা নিরসন, ফুটপাত দখলদারদের উচ্ছেদ, খাসজমি দখলমুক্ত করেছি। মেয়র বলেন, ‘গত ৩০ বছরে যা হয়নি তা পাঁচ বছরে করেছি। জননেত্রী শেখ হাসিনা উন্নয়নের যে রূপরেখা দিয়েছেন সে লক্ষ্যে কাজ করছি। দলমত নির্বিশেষে সবাই এখন উন্নয়নের সুফল ভোগ করছেন। কেউ বঞ্চিত হওয়ার সুযোগ নেই। তিনি বলেন, ‘নির্বাচনের সময় যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলাম তার প্রায় শতভাগ পূরণ করেছি। এ কারণে আগামীতে পৌরবাসী আমাকেই নির্বাচিত করবে বলে আমার বিশ্বাস। মেয়র বলেন, চেষ্টা করছি শতভাগ স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতার মধ্যে পৌরসভাকে পরিচালিত করতে। অনিয়মের অভিযোগ পেলেই দ্রুত ব্যবস্থা নিচ্ছি। শিক্ষার মানোন্নয়ন প্রসঙ্গে মোহাম্মদ মোস্তফা বলেন, শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি নিশ্চিত করতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রধানদের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রক্ষা করছি। কৃতী শিক্ষার্থীদের পুরস্কৃত এবং গরিব মেধাবী শিক্ষার্থীদের আর্থিক সহযোগিতা দিচ্ছি। রাতদিন কাজ করে যাচ্ছি আমরা। তিনি বলেন, ‘আমার চাওয়া-পাওয়ার কিছু নেই। শুধু মানুষের ভালোবাসা পাওয়ার জন্যই আমার ছুটে চলা। জনগণই আমার শক্তি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন