ঢাকা রোববার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৫ আশ্বিন ১৪২৭, ০২ সফর ১৪৪২ হিজরী

সারা বাংলার খবর

রামপাল বাংলাদেশ-ভারতের সম্পর্ক বিনষ্ট করবে : আ স ম রব

প্রকাশের সময় : ১৬ অক্টোবর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : বাগেরহাটের রামপালে কয়লাভিত্তিক তাপ-বিদ্যুৎ কেন্দ্র বাংলাদেশ ও ভারত দুই দেশের সম্পর্ক বিনষ্ট করবে বলে মন্তব্য করেছেন স্বাধীনতার পতাকা উত্তোলক ও জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল- জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর রব। তিনি বলেন, সরকার যদি ক্ষমতার মোহগ্রস্ততায় একগুঁয়েমি বা জেদ করে এ প্রকল্প থেকে সরে না দাঁড়ায় তাহলে বাংলাদেশের জনগণের মাঝে ভারতবিরোধী মনোভাব বেড়ে উঠবে। যা দু’দেশের সম্প্রীতি ও সৌহার্দ্যপূর্ণ সম্পর্ককে বিনষ্ট করবে। গতকাল শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জেএসডি আয়োজিত এক সমাবেশ ও মানববন্ধন অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।
আ স ম রব বলেন, রামপালের বিদ্যুৎ প্রকল্প নিয়ে ভারত, বাংলাদেশের দুই দেশের মানুষের মাঝেই উদ্বেগ দেখা দিয়েছে এবং এ প্রকল্প বাতিলের দাবি উঠছে। ইউনেসকোসহ সারা বিশ্বের পরিবেশবাদীরাও এ প্রকল্প বন্ধ করার আবেদন জানিয়েছে। তিনি বলেন, আমরা ভারত সরকারকেও অনুরোধ করব এ প্রকল্প বন্ধ করে ভ্রাতৃপ্রতিম সম্পর্ক বিনষ্ট না করার উদ্যোগ নেয়ার জন্য। সরকার জেনেশুনে জনগণকে ভারত বিরোধিতায় ইন্ধন জোগানো কোনো ক্রমেই গ্রহণযোগ্য হবে না। এ প্রকল্প বাতিল করে সরকার দ্রুত দেশের পক্ষে অবস্থান নেবেÑ এটাই দেশবাসীর প্রত্যাশা। রব বলেন, স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানগুলোকে দলের অঙ্গ শাখায় পরিণত করা হচ্ছেÑ জনগণের প্রতিষ্ঠান দখল করা হচ্ছে। বিদ্যুৎ-গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির অপচেষ্টা বন্ধ করতে হবে। এছাড়া রাষ্ট্রের উচ্চ পর্যায় থেকে তৃণমূল পর্যন্ত ঘুষ-দুর্নীতি-নিয়োগ ও দখল বানিজ্যসহ হত্যা, গুম, খুন, অপহরণ করে দেশকে রাজনৈতিকভাবে দেউলিয়া করে দিচ্ছে। দেশবাসী জনগণকে এসবের বিরুদ্ধে দ্রুত প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে।
জেলা পরিষদ নির্বাচনের আগে পরিষদের ক্ষমতা ও করণীয় নির্ধারণ, রামপাল থেকে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণের স্থান পরিবর্তন, সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ নির্মূলে জাতীয় ঐক্য গঠন ও গ্যাস-বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধির অপতৎপরতা বন্ধ করার দাবিতে সারা দেশে এ কর্মসূচি পালন করে দলটি। জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে কেন্দ্রীয় কর্মসূচিতে সভাপতিত্ব করেন দলটির সভাপতি আ স ম আবদুর রব। সমাবেশে আরও উপস্থিত ছিলেন দলটির সাধারণ সম্পাদক আবদুল মালেক রতন, এমএ গোফরান, আতাউল করিম ফারুক, মো. সিরাজ মিয়া, মিসেস তানিয়া ফেরদৌসী, শহীদ উদ্দিন মাহমুদ স্বপন প্রমুখ। সমাবেশ শেষে একটি মিছিল জাতীয় প্রেসক্লাব থেকে শুরু করে বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এসে শেষ হয়।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন