বৃহস্পতিবার, ২৬ মে ২০২২, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৪ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

সারা বাংলার খবর

কলেজছাত্রকে পুলিশ পুত্রের হাতুড়িপেটা

রাজাপুর ও ঝালকাঠি সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ২৬ নভেম্বর, ২০২১, ১২:০৩ এএম

ঝালকাঠির রাজাপুরে সিফাতুল ইসলাম তামিম (১৮) নামে এক কলেজছাত্রকে তুলে নিয়ে হাতুড়িপেটা করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত বুধবার সন্ধ্যায় উপজেলার সত্যনগর এলাকার একটি স্কুলের কক্ষে দু’ঘণ্টা আটকে রেখে তাকে নির্যাতন করা করে পুলিশের এএসআই’র ছেলে অপু মৃধা (৩০) ও তার সহযোগিরা। গুরুতর অবস্থায় তামিমকে রাজাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। নির্যাতনকারী অপু মৃধা উপজেলার সদর ইউনিয়নের সত্যনগর এলাকার বাসিন্দা ও বরিশালের বিমানবন্দর থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক এএসআই মো. ইদ্রিস মৃধার ছেলে। আহত তামিম বরিশাল পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের প্রথম বর্ষের ছাত্র ও উপজেলা সদরের বাঘরী এলাকার মো. খলিলুর রহমানের ছেলে।
আহত তামিম জানায়, গত মঙ্গলবার উপজেলার বাইপাস মোড় এলাকায় দুই দল এসএসসি পরীক্ষার্থী মধ্যে সংঘর্ষের প্রস্তুতি নেয়। বিষয়টি বুঝতে পেরে তামিম দু’পক্ষকে সরিয়ে দেয়। এদের মধ্যে এক পক্ষ নির্যাতনকারী অপু মৃধার সহযোগীরা ছিল। এতে ক্ষিপ্ত হয় তারা। গত বুধবার রাতে অপু তার সহযোগীদের নিয়ে দুইটি মোরটসাইকেলে এসে থানার পশ্চিম পাশের খেলার মাঠ থেকে তামিমকে তুলে নিয়ে সত্যনগর এলাকায় একটি বিদ্যালয়ের কক্ষে আটকে টানা দু’ঘণ্টা হাতুড়ি ও লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। পরে খবর পেয়ে রাতেই বিদ্যালয়ের আহতাবস্থায় স্বজনরা তামিমকে উদ্ধার করে।
অপু মৃধা এলাকায় চিহ্নিত সন্ত্রাসী হিসেবে পরিচিত বলে জানিয়েছে স্থানীয়রা। তাঁর বিরুদ্ধে এর আগেও একাধিক নির্যাতনের অভিযোগে মামলা রয়েছে।
তামিমের বাবা মো. খলিলুর রহমান বলেন, ‘আমার ছেলেকে হাতুড়ি ও রড দিয়ে নির্মমভাবে নির্যাতন করা হয়েছে। এতে ছেলের পিঠে হাতুড়ির আঘাতে ক্ষত হয়। আমি থানায় মামলা করতে গিয়েছিলাম। পুলিশ বলেছে, আগে তদন্ত করে দেখে মামলার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। আমি এই ঘটনার বিচার চাই।’ রাজাপুর থানার ওসি পুলক চন্দ্র রায় বলেন, আহত যুবকের বাবা রাতে থানায় এসেছিলেন। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। যদি মামলা নেওয়ার মত হয়, তাহলে মামলা হবে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন