বুধবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২২, ১২ মাঘ ১৪২৮, ২২ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

আফগান বিমানবন্দরে সহায়তা করুন

আফগানিস্তানকে বিপর্যয়ে ফেলেছে যুক্তরাষ্ট্র : রাশিয়া ইউরোপীয় ইউনিয়নকে তালেবান

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৩০ নভেম্বর, ২০২১, ১২:০২ এএম

আফগানিস্তানের মানবিক পরিস্থিতি নিয়ে ‘গুরুতর উদ্বেগ’ উত্থাপন করে সপ্তাহান্তের আলোচনায় আফগানিস্তানের বিমানবন্দর চালু রাখতে ইউরোপীয় ইউনিয়ন কর্মকর্তাদের সাহায্য চেয়েছিল তালেবান। গত রোববার বিলম্বে দেয়া এক বিবৃতিতে একথা জানিয়েছে
উভয় পক্ষই আলোচনার জন্য কাতারের রাজধানী দোহায় সিনিয়র কর্মকর্তাদের পাঠায়, যা গতকাল সোমবার থেকে শুরু মার্কিন ও তালেবানের মধ্যে দুই সপ্তাহের আলোচনার ঠিক পূর্ব আগে একই স্থান দোহাতে অনুষ্ঠিত হয়েছিল।
ইইউ’র ইউরোপিয়ান এক্সটার্নাল অ্যাকশন সার্ভিস (ইইএএস) তার বিবৃতিতে বলেছে যে, ‘সংলাপটি অন্তর্বর্তীকালীন (তালেবান) সরকারের প্রতি ইইউর স্বীকৃতি বোঝায় না, তবে এটি ইইউ এবং আফগান জনগণের স্বার্থে ইইউ’র অপারেশনাল কর্মসূূচির অংশ’।
অন্তর্বর্তীকালীন পররাষ্ট্রমন্ত্রী আমির খান মুতাক্কির নেতৃত্বে তালেবান প্রতিনিধিদলে ছিলেন শিক্ষা ও স্বাস্থ্য বিষয়ক অন্তর্বর্তী মন্ত্রী, কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ভারপ্রাপ্ত গভর্নর এবং পররাষ্ট্র, অর্থ ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং গোয়েন্দা অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা।
ইইউ পক্ষের নেতৃত্বে ছিলেন আফগানিস্তানের জন্য ইইউ’র বিশেষ দূত টমাস নিকলাসন, মানবিক সহায়তা, আন্তর্জাতিক অংশীদারিত্ব এবং অভিবাসন পরিচালনাকারী ইইএএস এবং ইউরোপীয় কমিশনের পরিষেবার কর্মকর্তারা।
ইইউ বিবৃতিতে বলা হয়েছে, তালেবান আফগানদের জন্য ‘সাধারণ ক্ষমার’ প্রতিশ্রæতিতে অটল থাকার কথা দিয়েছে যারা আগস্ট মাসে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং তার মিত্রদের দ্রæত প্রস্থান এবং সরিয়ে নেয়া পর্যন্ত দুই দশকের পশ্চিমা-ভিত্তিক শাসনের সময় এটির বিরুদ্ধে কাজ করেছিল।
তালেবান পক্ষও আফগানদের এবং বিদেশীদের যদি তারা ইচ্ছা করে চলে যাওয়ার অনুমতি দেওয়ার জন্য পুনরায় প্রতিশ্রæতিবদ্ধ, তবে ‘বিমানবন্দর পরিচালনার জন্য সহায়তার অনুরোধ করে’ যাতে তাদের চলে যাওয়ার পথ সহজ হয়।
বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘আফগানিস্তানে শীতকাল আসার সাথে সাথে মানবিক পরিস্থিতির অবনতি নিয়ে উভয় পক্ষই গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে’।
ইইউ পক্ষ তালেবানকে একটি ‘অন্তর্ভুক্তিমূলক সরকার’ গঠনে, গণতন্ত্র প্রতিপালনে, মেয়েদের স্কুলে পড়াশোনার সমান সুযোগ নিশ্চিত করতে এবং আফগানিস্তানকে ‘অন্যদের নিরাপত্তার জন্য হুমকিস্বরূপ’ যে কোনো গোষ্ঠীর ঘাঁটি হিসাবে কাজ করতে নিবৃত্ত হওয়ার আহŸান জানায়।
বিবৃতিতে আরো বলা হয়েছে যে, তালেবানরা যদি ইউরোপীয় ইউনিয়নের শর্ত পূরণ করে, তাহলে তা আফগানিস্তানের অর্থ সঙ্কটে পড়া নতুন শাসকদের জন্য অতিরিক্ত অর্থায়ন আনলক করতে পারে, তবে শুধুমাত্র ‘আফগান জনগণের প্রত্যক্ষ সুবিধার জন্য’।
বিবৃতি অনুসারে, তালেবান পুনর্ব্যক্ত করেছে যে, তারা ‘ইসলামী নীতির সাথে সঙ্গতি রেখে’ মানবাধিকার বজায় রাখবে এবং বন্ধ হয়ে যাওয়া ক‚টনৈতিক মিশনগুলোকে স্বাগত জানাবে।
আফগানিস্তানকে বিপর্যয়ে ফেলেছে যুক্তরাষ্ট্র : রাশিয়া
আফগানিস্তানে বর্তমান সঙ্কটের জন্য যুক্তরাষ্ট্রকে দায়ী করেছে রাশিয়া। ওয়াশিংটনই আফগানিস্তানকে বড় মানবিক বিপর্যয়ের মধ্যে ফেলেছে বলে মন্তব্য করেছেন রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মারিয়া জাখারোভা।
মুখপাত্র মারিয়া বলেন, আফগানিস্তনের সঙ্কট আরো বাড়ছে। পরিস্থিতি উত্তরণে যুক্তরাষ্ট্র যে প্রতিশ্রæতি দিয়েছে তা উপহাস ছাড়া কিছুই নয়। তাদের সম্পদ কখন ছাড় দেবে তাও স্পষ্ট করেনি দেশটি।
রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, যুক্তরাষ্ট্র আফগানিস্তান ছেড়ে যাওয়ায় এখন তালেবান সরকারের সঙ্গে সুসম্পর্ক গড়ে তুলবে মস্কো। রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞ মেহদি আফজালি বলেন, মধ্য এশিয়ায় নিজেদের নিরাপত্তার স্বার্থে তালেবানকে সন্তুষ্ট করতে চায় রাশিয়া।
আরেক বিশেষজ্ঞ আজিজ মুজাদিদি মনে করেন, যুক্তরাষ্ট্রের উচিত আফগান জনগণ ও দেশটির সরকারের ইচ্ছাকে সম্মান করা। ফলে উভয়ের মধ্যেই সুসম্পর্ক বজায় থাকবে।
আফগানিস্তানের সঙ্কটে স¤প্রতি রাজধানী কাবুলে সামরিক বিমানে ত্রাণ সহায়তা পাঠিয়েছে রাশিয়া। রুশ মুখপাত্র মারিয়া জাখারোভা বলেন, ‘আফগান জনগণের জন্য ৩৬ টনের খাবার এবং মৌলিক সহায়তা পাঠানো হয়েছে। দেশটিতে ভবিষ্যতেও সহায়তা অব্যাহত রাখবে মস্কো’। গত ১৫ আগস্ট রাজধানী কাবুল দখল করে নেয় তালেবান সরকার। এরপরই দেশটিতে সহায়তা বন্ধ করে দেয় অনেকে। ফলে মানবিক বিপর্যয়ের মধ্যে পড়েছে আফগান জনগণ। সূত্র : এক্সপ্রেস ট্রিবিউন ও রয়টার্স।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন