বুধবার, ১০ আগস্ট ২০২২, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৯, ১১ মুহাররম ১৪৪৪

সারা বাংলার খবর

শিক্ষার সকলস্তরে ইসলামী শিক্ষা বাধ্যতামূলক করতে হবে

মুফতী সৈয়দ ফয়জুল করীম

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৭ ডিসেম্বর, ২০২১, ৬:৫৯ পিএম

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর নায়েবে আমীর মুফতি সৈয়দ মুহাম্মাদ ফয়জুল করীম শায়খে চরমোনাই বলেছেন, ইসলামী তাহজীব তামাদ্দুন ধ্বংস করে বিজাতীয় সংস্কৃতি প্রসারে কাজ চলছে। সিলেবাস থেকে ইসলামী শিক্ষা কৌশলে তুলে দেয়ার নীল নকশা চলছে। এ জন্য এসএসসি ও এইচএসসিতে ইসলামী শিক্ষা বিষয়ে কোন পরীক্ষা হবে না। এটাকে ঐচ্ছিক হিসেবে রাখা হয়েছে। ৯২ ভাগ মুসলমানের দেশে ইসলাম নিয়ে এধরণের নোংরামীর কোন মানে হয় না। তিনি সিলেবাসে ইসলামী শিক্ষা বিষয়ে পরীক্ষা নিতে কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানান।

মুফতী ফয়জুল করীম বলেন, ইসলামপ্রিয় মুসলমানদেরকে এদিকে সেদিক ছুটোছুটি না করে ইসলামকে রাষ্ট্রীয়ভাবে বিজয়ী করার আন্দোলনে ফিরে আসতে হবে। তিনি বলেন, মানুষ দলে দলে ইসলামের পতাকাতলে আসতে শুরু করেছে। এখন প্রয়োজন ওলামায় কেরামকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার। ইসলামপ্রিয় জনতা এক হলে দেশে ইসলাম বিজয়ী হবে, তাতে কোন সংশয় বা সন্দেহ নেই।

রোববার রাতে পটুয়াখালী জেলার হেতালিয়া বাধঘাটে অনুষ্ঠিত ওয়াজ মাহফিল ও হালকায়ে জিকিরে প্রধান অতিথির বক্তব্যে নায়েবে আল্লামা মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ ফয়জুল করীম শায়খে চরমোনাই এসব কথা বলেন। সম্মেলনে লক্ষ জনতার উপচেপড়া ভীড় পরিলক্ষিত হয়। সম্মেলনে শহরের ওলামায়ে কেরাম এবং মসজিদের ইমামগণ উপস্থিত ছিলেন। ইসলামী আন্দোলনের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এতথ্য জানানো হয়েছে।

মুফতী সৈয়দ ফয়জুল করীম বলেন, শান্তি ও সম্প্রীতির সমাজ গড়তে ইসলামী অনুশাসনের কোন বিকল্প নেই। এদেশের আপামর জনতাকে সাথে নিয়ে ইসলামী খেলাফত প্রতিষ্ঠার জন্য কাজ করতে হবে।

মুফতী ফয়জুল করীম বলেন, আজ যারা নারী অধিকার ও মানবাধিকারের কথা বলে, তারাই নারীদের অসম্মান করে এবং মানবাধিকার বেশি লঙ্ঘন করেন। এমতাবস্থায় সকলকে ইসলামের বিধিবিধান অনুসরণ অনুকরণ করতে হবে।

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন