শনিবার, ২১ মে ২০২২, ০৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৯ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

মহানগর

আপিল বিভাগে চার বিচারপতি

বিশেষ সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১০ জানুয়ারি, ২০২২, ১২:০০ এএম

হাইকোর্ট বিভাগ থেকে আপিল বিভাগে নিয়োগপ্রাপ্ত তিন বিচারপতি শপথ নিয়েছেন। গতকাল রোববার সকাল পৌনে ১১টায় তাদের শপথ বাক্য পাঠ করান প্রধান বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী। শপথ নেয়া তিন বিচারপতি হলেন,বিচারপতি বোরহান উদ্দিন, বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম এবং বিচারপতি কৃষ্ণা দেবনাথ। এ ছাড়া হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি এফআরএম নাজমুল আহসানকেও আপিল বিভাগের বিচারপতি নিয়োগ দেয়া হয়েছে। কিন্তু তিনি করোনা আক্রান্ত। চিকিৎসাধীন থাকায় সুস্থ হয়ে ফিরে আসার পর তাকে শপথ বাক্য পাঠ করানো হবে।

এদিকে সুপ্রিম কোর্টের স্পেশাল অফিসার ব্যারিস্টার মোহাম্মদ সাইফুর রহমান জানান, শপথ গ্রহণের পরপরই নবনিযুক্ত তিন বিচারপতি প্রথমে সাভারস্থ জাতীয় স্মৃতিসৌধ এবং পরে ধানমন্ডিস্থ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জানান।
এর আগে আজ সকালে নিয়োগ দেয়া হয় আপিল বিভাগের চার বিচারপতি। এ বিষয়ে আইনমন্ত্রণালয় প্রজ্ঞাপন জারি করে। প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের সংবিধানের ৯৫(১) অনুচ্ছেদে প্রদত্ত ক্ষমতাবলে রাষ্ট্রপতি বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট, হাইকোর্ট বিভাগে কর্মরত চারজন বিচারককে তাদের শপথ গ্রহণের তারিখ থেকে বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট আপিল বিভাগের বিচারক হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন।
এ নিয়োগের মধ্য দিয়ে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের বিচারপতি সংখ্যা দাঁড়ালো ৮ এ। এর মধ্যে গত ৩০ ডিসেম্বর আপিল বিভাগের দ্বিতীয় সিনিয়র বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকীকে প্রধান বিচারপতি নিয়োগের পর অবসরে রয়েছেন আপিল বিভাগের সিনিয়র বিচারপতি মোহাম্মদ ইমান আলী। তিনি কবে ফিরবেন-তা নিশ্চিত করতে পারছেন না কেউ। ফলে আপিল বিভাগে কার্যত: ৭ বিচারপতি রয়েছেন। তবে নবনিযুক্ত করোনা আক্রান্ত বিচারপতি শপথ নিতে না পারায় প্রধান বিচারপতিসহ ৬ জনকে নিয়ে বিচার কার্যক্রম চালাতে হবে আপিল বিভাগকে।
আদালত সূত্র জানায়, আপিল বিভাগের ৮ বিচারপতির মধ্যে সিনিয়র বিচারপতি মোহাম্মদ ইমান আলীর বয়স ৬৭ বছর পূর্ণ হলে স্বাভাবিক অবসরে যাবেন ২০২৩ সালের ১ জানুয়ারি। একই বছর ২৬ সেপ্টেম্বর অবসরে যাবেন প্রধান বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী। ২০২৩ সালের ১ জুলাই অবসরে যাবেন আপিল বিভাগের বিচারপতি মো:নুরুজ্জামান ননী। বিচারপতি ওবায়দুল হাসান অবসরে যাবেন ২০২৬ সালের ১১ জানুয়ারি। আপিল বিভাগে নবনিযুক্ত বিচারপতিদের মধ্যে সিনিয়র হচ্ছেন বিচারপতি এফ.আর.এম.নাজমুল আহসান। তার জন্ম ১৯৫৫ সালের ১৫ মে। ২০১২ সালে তিনি হাইকোর্টের বিচারপতি হিসেবে স্থায়ী নিয়োগ পান। বয়স ৬৭ হলে তিনি সবার আগে অবসরে যাবেন। বিচারপতি বোরহানউদ্দিনের জন্ম ১৯৫৭ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি। ২০১০ সালের ১৬ নভেম্বর তিনি হাইকোর্ট বিভাগের স্থায়ী বিচারপতি নিযুক্ত হন। ২০২৪ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি তার অবসরে যাওয়ার কথা রয়েছে।
বিচারপতি এম.ইনায়েতুর রহিমের জন্ম ১৯৬০ সালের ১১ আগস্ট। ২০১১ সালের ৬ জুন তিনি হাইকোর্ট বিভাগের স্থায়ী বিচারপতি নিযুক্ত হন। বর্তমানে তার বয়স ৬২ বছর। তিনি অবসরে যাবেন ২০২৭ সালের ১১ আগস্ট অবসরে যাবেন। বিচারপতি কৃষ্ণা দেবনাথের জন্ম ১৯৫৫ সালের ১০ অক্টোবর। তিনি ১৯৮১ সালে মুন্সেফ হিসেবে বিচার বিভাগীয় সার্ভিসে যোগদান করেন। জেলা ও দায়রা জজ থাকাকালে ২০১০ সালের ১৮ এপ্রিল তিনি হাইকোর্ট বিভাগের অতিরিক্ত বিচারপতি নিযুক্ত হন। ২০১২ সালে একই বিভাগে স্থায়ী বিচারপতি নিযুক্ত হন। ২০২৪ সালের ১০ অক্টোবর তিনি অবসরে যাবেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন