শনিবার, ২১ মে ২০২২, ০৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৯ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

সারা বাংলার খবর

ধর্ষণের ঘটনা ধামাচাপা দিতেই খুন

বরিশাল ব্যুরো : | প্রকাশের সময় : ১৭ জানুয়ারি, ২০২২, ১২:০৩ এএম

ধর্ষণের ঘটনা ধামাচাপা দিতেই বরিশালের বাবুগঞ্জে বিধবা মরিয়ম বেগমকে খুন করে তার লাশ ভাসিয়ে দেওয়ার জন্য নদীতে ফেলে দিয়েছিল ধর্ষকরা। মরিয়ম বেগমের খুনের ৪৮ ঘণ্টা পর গ্রেফতার হওয়া দুইজন অভিযুক্তের বরাত দিয়ে পুলিশ এ তথ্য জানিয়েছে।

গ্রেফতারকৃত দু’জন হচ্ছে বাবুগঞ্জের পশ্চিম ভূতেরদিয়া গ্রামের আতাহার উদ্দিনের ছেলে চা দোকানি সুমন ফকির ও একই এলাকার সেলুন ব্যবসায়ী নরেন চন্দ্র শীলের পুত্র শয়ন চন্দ্র শীল। গত শনিবার রাতে বাবুগঞ্জ থানা পুলিশ এ দু’জনকে নিজ নিজ দোকান থেকে গ্রেফতার করে। গতকাল রোবাবার জেলা পুলিশ লাইন্সে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, গ্রেফতারকৃত দু’জন পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে মরিয়ম বেগমকে হত্যার কথা স্বীকার করেছে।
গত বুধবার দিবাগত গভীর রাতে মরিয়ম বেগম পশ্চিম ভূতেরদিয়া গ্রামে নিজ বাড়িতে খুন হন। পরদিন সকাল ১০টার দিকে বাড়ির অদূরে সন্ধ্যা নদী সংলগ্ন খালে তার মৃতদেহ পাওয়া যায়। বিধবা মরিয়ম বেগম ওইরাতে বাড়িতে একাই ছিলেন।
পুলিশ জানায়, মরিয়ম বাড়িতে একা থাকার বিষয়টি জানতে পেরে গভীর রাতে ঘরে ঢুকে তাকে ধর্ষণ করে। এ ঘটনা মরিয়ম স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের কাছে বিচার দেয়ার কথা বলে। তারা দু’জন মরিয়মকে টেনে হিচড়ে ঘরের বাইরে এনে মাথায় লাঠি দিয়ে আঘাত করে হত্যা করেছে বলে স্বীকার করে। পরে লাশ বসতঘর থেকে ১০০ গজ দূরে নদী সংলগ্ন খালে ফেলে দেয়।
বাবুগঞ্জ থানার ওসি মাহবুবুর রহমান জানান, গ্রেফতারকৃতরা আদালতে স্বীকারোক্তি দেয়ার কথা জানিয়েছে। তবে স্বীকারোক্তি না দিলে রিমান্ড আবেদন করা হবে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন