বৃহস্পতিবার, ১৯ মে ২০২২, ০৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৭ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

ইভিএম ভোট চুরির বাক্স

সাংবাদিকদের তৈমূর আলম খন্দকার

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৭ জানুয়ারি, ২০২২, ১২:০০ এএম

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভীর কাছে হেরে স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার বলেছেন, ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ভোট চুরির বাক্স। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ইচ্ছার প্রতিফলন হয়েছে এ নির্বাচনে। সরকার, প্রশাসন, পুলিশ ও ইভিএম মেকানিজমের মাধ্যমে পরাজিত করা হয়েছে তাকে। নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণার পর নিজ বাসায় এক প্রতিক্রিয়ায় সাংবাদিকদের তৈমূর আলম খন্দকার এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, এ সরকারের দ্বারা কোন সুষ্ঠু নির্বাচন করা সম্ভব নয়।ইভিএম এর মাধ্যমে সুষ্ঠু নির্বাচন কখনো সম্ভব নয়। নির্বাচন কমিশন ও পুলিশের নিয়ন্ত্রণে এ নির্বাচন কখনো সুষ্ঠু হবে না। নির্বাচনে প্রতিনিয়ত পুলিশ আমাকে হেনস্থা করেছে। নারায়ণগঞ্জের পুলিশের এসপি আমার লোকজন গ্রেফতার করেছে। এসপি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ইচ্ছার প্রতিফলন ঘটিয়েছে।

নির্বাচন সুষ্ঠু হওয়া, এজেন্টদের বের করে না দেয়াসহ বিভিন্ন বিষয়ে তৈমূর বলেন, নির্বাচনে ভোটাররা কেন্দ্রে এসেছিল ভোট দিতে কিন্তু ইভিএম ¯েøা থাকার কারণে অনেকেই ভোট দিতে পারেনি। তিনি আরো বলেন, এটা নারায়ণগঞ্জ, এখানে তৈমূর আলমের এজেন্টদের কেন্দ্র থেকে বের করে দেয়া এতো সহজ না।

তৈমূর আলম খন্দকার বলেন, এটা আমাদের নয়, সরকারের পরাজয়। জনগণের ভালোবাসায় আমরা জয়ী, তাদের প্রতি, মিডিয়ার প্রতি আমরা কৃতজ্ঞ। তিনি বলেন, আপনারা দেখবেন, আমি ঘটনাগুলো আপনাদের জানিয়েছি। সিদ্ধিরগঞ্জ থানার আমার সমন্বয়ককে কাগজসহ গ্রেফতার করা হয়। তার মাধ্যমেই শুরু হয় এবং আমার লোকজন প্রতিদিনই গ্রেফতার হতে থাকে। হেফাজতের মামলা দেওয়া হয়েছে সকলকে। এদের মধ্যে হিন্দু লোকও আছে। এখন দেখা যায়, মুসলমান তো করেই হিন্দুরাও হেফাজত করে। আজ সকাল থেকে আটজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বন্দরের সমন্বয়ককে গ্রেফতার করা হয়েছে। আমার চিফ এজেন্টের বাড়িতে অভিযান চালানো হয়েছে। এ অবস্থায় একটা মানুষ স্বতন্ত্র দাঁড়িয়ে কীভাবে ঠিক থাকতে পারে। তারপরও জনগণ আমাকে সমর্থন দিয়েছে। আমি সকলকে ধন্যবাদ জানাই।

তিনি আরও বলেন, ঢাকার মেহমানদের অতিরঞ্জিত কথার পরে গ্রেফতার শুরু হয়েছে। জাহাঙ্গীর কবির নানককে যখন জিজ্ঞেস করা হয়, তখন তিনি বলেছিলেন, ১২ ও ১৩ নম্বর ওয়ার্ড তাদের জন্য ঝুকিপূর্ণ। ১৩ নম্বর ওয়ার্ডে আমি থাকি, আমার ভাই তিনবারের কাউন্সিলর। আর ১২ নম্বর ওয়ার্ড সরকারি এমপির ওয়ার্ড। আমি বললাম, সরকারই যদি তার এমপির কেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ মনে করে তাহলে আমার কিছু করার নেই। আমার কোনো ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্র নেই।

হাতি প্রতীকে ভোট করা এই প্রার্থী বলেন, সেলিনা হায়াৎ আইভীর বিষয়ে আগেও মন্তব্য করিনি, এখনও করবো না। এটা খেলা হয়েছে সরকার বনাম জনগণ, সরকার বনাম তৈমূর আলম খন্দকার। আমি সিটি করপোরেশনের জন্য কী করেছি, তা তাকে জিজ্ঞেস করেন। নারায়ণগঞ্জবাসী এগুলো জানে। বিএনপি আমার রক্তের সাথে মিশে গেছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (8)
মোহাম্মদ দলিলুর রহমান ১৭ জানুয়ারি, ২০২২, ৫:৫৪ এএম says : 0
আমি বলেছিলাম হবেন না এরা দিবে না,এই দেশ পুরুষ শাসিত দেশ নয়,পুরুষ মহিলা থেকেও অদম্য।
Total Reply(0)
Mizanur Rahman ১৭ জানুয়ারি, ২০২২, ৬:৩৭ এএম says : 1
প্রদত্ত ভোটের ৩৩% পাইত আইভি আর তৈমূর পাইত ৬৬%। দুর্নীতিগ্রস্ত দেশে ইভিএম বেমানান।
Total Reply(0)
Samrat Hasan Sujon ১৭ জানুয়ারি, ২০২২, ৬:৩৮ এএম says : 0
তাহলে সরকারের পাতানো নির্বাচনে বেধৈতা কেনো দিলেন অংশগ্রহণ করে?
Total Reply(0)
Zakareya Ahmed ১৭ জানুয়ারি, ২০২২, ৬:৩৮ এএম says : 1
সঠিক ভোট হলে আপনার ধারে কাছেই থাকতো না।
Total Reply(0)
MD Munir Hossen ১৭ জানুয়ারি, ২০২২, ৬:৩৯ এএম says : 1
পরাজিত হলে সবাই এই কথাই বলে
Total Reply(0)
Monjur Rashed ১৭ জানুয়ারি, ২০২২, ১১:২১ এএম says : 0
Seems that Toimur Alam did not get anticipated support from his Kowmi friends. Kowmi people had chosen their own candidates other than Toimur Alam.
Total Reply(0)
মনির হোসেন মনির ১৭ জানুয়ারি, ২০২২, ১১:২৪ এএম says : 0
এর চেয়ে ভালো কিছু প্রত্যাশা করাটাও ভুল
Total Reply(0)
সফিক আহমেদ ১৭ জানুয়ারি, ২০২২, ১১:২৪ এএম says : 0
এটা হবে তা তো আগেই জানতেন!
Total Reply(0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন