বৃহস্পতিবার, ১৯ মে ২০২২, ০৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৭ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

সারা বাংলার খবর

অবৈধ পরিবহনের দৌরাত্ম্য

কুষ্টিয়ার দৌলতপুর

স্টাফ রিপোর্টার, কুষ্টিয়া থেকে : | প্রকাশের সময় : ২০ জানুয়ারি, ২০২২, ১২:০৩ এএম

কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে অবৈধ নানা ধরনের পরিবহনের দৌরাত্ম্যে ঝুঁকিতে রয়েছে সাধারণ মানুষ। এসব অবৈধ যানের বেপরোয়া চলাচলে প্রতিনিয়ত ঘটছে দুর্ঘটনা। শ্যালো ইঞ্জিনচালিত স্টিয়ারিং, নছিমন, করিমন, আলগামন, ট্রলি, পটাক নামক এসব অবৈধ পরিবহন দেখা মেলে দৌলতপুরসহ জেলার সর্বত্র। এদের বেপরোয়া গতির চলাচলে সড়কে চলাচলরত সাধারণ মানুষের জীবন থাকে চরম ঝুঁকিতে।

অবৈধ এসব পরিবহনের সরকারি কোনো অনুমোদন না থাকলেও প্রশাসনের কর্তাব্যক্তিদের সামনেই এদের অবাধ চলাচল। কৃষকের জমি বিনাশ করে অবৈধ ইটভাটায় মাটি সরবরাহ করা অনুমোদনহীন এসব অবৈধ যান প্রশাসনের নির্বাহী কর্মকর্তা কোনো সময় আটক করলেও তার ওপর হুকুম জারি হয় স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের। আর অবৈধ যানের চালকও প্রায় অপ্রাপ্তবয়স্ক ও কিশোর বয়সী হয়ে থাকে। যার ফলে প্রায়দিনই দৌলতপুরসহ জেলার কোথাও না কোথাও ঘটে থাকে দুর্ঘটনা।
বিগত সময়ের মতো চলতি মৌসুমে চালু হওয়া অবৈধ ইটভাটায় শ্যালো ইঞ্জিনচালিত অবৈধ পরিবহনগুলো মাটি সরবরাহে হয়ে উঠেছে বেপরোয়া। মূলত স্টিয়ারিং নামে পরিচিত অবৈধ পরিবহন ভাটার ইট সরবরাহের পাশাপাশি অবৈধভাবে কাটা মাটি, অবৈধভাবে উত্তোলন করা বালু বহনের কাজে ব্যবহার হয়ে থাকে। আর এসব অবৈধ পরিবহনের ধাক্কায় দৌলতপুরসহ জেলার বিভিন্ন এলাকায় ঘটে দুর্ঘটনা, ঘটে মৃত্যু। প্রতিবছর পঙ্গুত্ববরণ করে অসংখ্য মানুষ। অবৈধ এই পরিবহনের ধাক্কায় জাতীয় হ্যান্ডবল দলের গোলরক্ষক, স্কুল পড়ুয়া শিক্ষার্থী ও কর্মজীবীসহ অনেকের মৃত্যুর খবরই নাড়া দিয়েছে সচেতনমহলকে। তারপরও থেমে থাকছেনা শ্যালো ইঞ্জিনচালিত অবৈধ যানের দৌরাত্ম্য।
সম্প্রতি শ্যালো ইঞ্জিনচালিত অবৈধ স্টিয়ারিং গাড়ির ধাক্কায় গুরুতর আহত হয়েছেন তাশরিক সঞ্চয় নামে এক গণমাধ্যমকর্মী। আহত সাংবাদিক তাশরিক সঞ্চয় জানান, সড়কগুলো খুবই অনিরাপদ হয়ে উঠেছে। এখানে রাস্তার পাশে নির্দেশনা চিহ্ন নেই। ফুটপাতও এই অবৈধ গাড়ির দখলে আছে। আর এসব স্টিয়ারিং গাড়ির ধাক্কায় বা চাপায় প্রতিবছর উদ্বেগজনক হারে হতাহতের ঘটনা ঘটছে। পুলিশ ও প্রশাসনের সামনেই এসব অবৈধ ও ভয়ঙ্কর গাড়ি দৌলতপুর উপজেলার রাস্তাঘাট দাপিয়ে বেড়াচ্ছে।
মালবাহী অন্যান্য ট্রাকও অনিয়ন্ত্রিতভাবে বা বেপরোয়া গতিতে চলাফেরা করছে। বৃহত্তর জনস্বার্থে এগুলোর দিকে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নজর দেয়া জরুরি বলে তিনি উল্লেখ করেন।সাধারণ মানুষের জীবনের নিরাপত্তা ও প্রাণহানি রোধে এসব অবৈধ পরিবহন বন্ধে প্রয়োজন প্রশাসনের হস্তক্ষেপ। আর এমনটাই মনে করে সর্বমহল।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন