বুধবার, ১০ আগস্ট ২০২২, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৯, ১১ মুহাররম ১৪৪৪

স্বাস্থ্য

ডায়াবেটিস রোগীদের মারাত্মক খাবার

| প্রকাশের সময় : ৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২২, ১২:১২ এএম

ডায়াবেটিসের সমস্যা ইদানীং অনেকটাই বেড়ে গিয়েছে। প্রায় প্রতি ঘরেই ডায়াবেটিসের রোগী দেখা যায়। যদিও অনেকাংশে এটি বংশগত রোগ, কিন্তু তারপরও পরিবারে ডায়াবেটিস রোগের ইতিহাস না-থাকলেও অনেকেই এই রোগে আক্রান্ত হতে পারেন। ডায়াবেটিস রোগীদের বেশ কিছু সাবধানতা অবলম্বন করে চলতে হয়। খাওয়া-দাওয়া থেকে শুরু করে জীবনযাপনের একটি নির্দিষ্ট রুটিন মেনে চললেই এই রোগটি নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব। বেছে এবং পরিমিত খেয়ে জীবন যাপনে সচেতনতা অবলম্বন করতে হয় ডায়াবেটিস রোগীদের। কিছু খাবার খাওয়া ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য অনেক বেশি ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়ায়। আজকের এই প্রতিবেদনে এমনই কিছু ক্ষতিকর খাবার সম্পর্কে জানানো হল-

সাদা চাল : সাদা চালের ভাত যত বেশি খাওয়া হয় তত বেশি টাইপ-২ ডায়াবেটিসের সম্ভাবনা বেড়ে যায়। প্রায় ৩,৫০,০০০ মানুষের উপর গবেষণায় দেখা গিয়েছে প্রতিদিন সাদা চালের ভাত নিয়মিত খাওয়ার ফলে প্রায় ১১ শতাংশ টাইপ-২ ডায়াবেটিসের ঝুঁকি বাড়ে। তাই ডায়াবেটিসে আক্রান্ত রোগীরা কতটুকু ভাত খাওয়া স্বাস্থ্যকর তা জানতে নিজের স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের শরাণাপন্ন হোন।

ক্র চাইনিজ খাবার : চাইনিজ খাবারে রয়েছে অনেক বেশি ফ্যাট, ক্যালোরি, সোডিয়াম, কার্বোহাইড্রেট যা হুট করেই দেহের সুগারের মাত্রা অনেক বেশি বাড়িয়ে তোলে। বিশেষ করে অরেঞ্জ, সুইট অ্যান্ড সাওয়ার ধরনের খাবার ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য অনেক বেশি ক্ষতিকর।

ক্র বোতলজাত ফলের জুস: স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর বলে আপনি কি সোডা বাদ দিয়ে ফলের জুস পান করেন? তাহলে জেনে রাখুন, বোতলজাত ফলের জুস পান করা এবং সোডা পান করার মধ্যে বিশেষ পার্থক্য নেই। কারণ ফলের জুসে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে চিনি ও ক্যালোরি যা ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর ।
ক্র কলা ও তরমুজ : তাজা ফলমূল খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য হিতকর। কিন্তু ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য তাজা সব ফল স্বাস্থ্যকর নয়। কলা এবং তরমুজের মতো ফলে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে চিনি যা রক্তে সুগারের মাত্রা বাড়ায়। তাই এ খাবারগুলো থেকে দূরে থাকাই ভালো।

ক্র রিফাইন্ড সিরিয়াল : সুইটেন্ড ব্রেকফাস্ট সিরিয়াল ধরনের খাবারগুলো ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর। এ ছাড়া ইনস্ট্যান্ট ওটমিল জাতীয় খাবার যত কম খাওয়া যায় ততই ভালো।

আফতাব চৌধুরী
সাংবাদিক-কলামিস্ট।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন