ঢাকা রোববার, ২৪ জানুয়ারি ২০২১, ১০ মাঘ ১৪২৭, ১০ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

মহানগর

ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মাধ্যমে নবম ওয়েজবোর্ড গঠনে বাধ্য করা হবে বিক্ষোভ সমাবেশে বিএফইউজে-ডিইউজে নেতাদের দাবি

প্রকাশের সময় : ১৩ নভেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মাধ্যমে নবম ওয়েজবোর্ড গঠনে বাধ্য করা হবে বলে জানিয়েছেন বিএফইউজে-ডিইউজে’র নেতারা।

গতকাল শনিবার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন- বিএফইউজে ও ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন- ডিইউজে আয়োজিত ‘নবম ওয়েজবোর্ড অবিলম্বে গঠন, মাহমুদুর রহমানসহ কারাবন্দী সকল সাংবাদিকের মুক্তি, বন্ধ থাকা মিডিয়া খুলে দেয়া ও সাগর-রুণীসহ সকল সাংবাদিক হত্যা-নির্যাতনের বিচারের দাবিতে এক বিক্ষোভ সমাবেশে সাংবাদিক নেতারা এসব কথা বলেন।
সাংবাদিক নেতারা বলেছেন, নবম ওয়েজবোর্ড গঠনে টালবাহানা করছে সরকার। সরকারি কর্মচারিদের বেতন দ্বিগুণ করার পর সাংবাদিকদের নতুন ওয়েজবোর্ড গঠন অনেক আগেই অপরিহার্য হয়ে পড়েছে। কিন্তু সরকার ছলচাতুরি করে কালক্ষেপণ করছে। সাংবাদিক ও সংবাদপত্রসেবীদের প্রতিনিধিত্বকারি সব সংগঠনের সমন্বয়ে অবিলম্বে নবম ওয়েজবোর্ড গঠন করতে হবে। তা না হলে সাংবাদিক, শ্রমিক কর্মচারি ঐক্যজোটের নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মাধ্যমে নবম ওয়েজবোর্ড গঠনে বাধ্য করা হবে। এক তরফাভাবে কোন কিছু করা হলে সাংবাদিক সমাজ তা মানবে না। একই সঙ্গে বন্ধ সব মিডিয়া খুলে দিয়ে সাংবাদিকদের বেকারত্বের মিছিল থামাতে হবে। মাহমুদুর রহমানসহ কারাবন্দী সাংবাদিকদের মুক্তি দিতে হবে। বিএফইউজে’র ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শামসুদ্দিন হারুন-এর সভাপতিত্বে বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- সম্মিলিত পেশাজীবী পরিষদের ভারপ্রাপ্ত আহবায়ক রুহুল আমিন গাজী, বিএফইউজে’র মহাসচিব এম. আবদুল্লাহ, সাবেক মহাসচিব এম এ আজীজ, ডিইউজে’র সভাপতি কবি আব্দুল হাই সিকদার, সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম প্রধান, জাতীয় প্রেসক্লাবের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কাদের গণি চৌধুরী, বিএফইউজে’র সহকারি মহাসচিব মোদাব্বের হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক শহীদুল ইসলাম, দফতর সম্পাদক আবু ইউসুফ, ডিইউজে’র সহ-সভাপতি খোরশেদ আলম ও সৈয়দ আলী আসফার, সাংবাদিক নেতা আবুল কালাম মানিক, জাকির হোসেন, কামার ফরিদ, ফয়েজ উল্লাহ ভূইয়া, সাখাওয়াত ইবনে মইন চৌধুরী, জসিম মেহেদী, ডি.এম. আমিরুল ইসলাম অমর প্রমুখ। সমাবেশ পরিচালনা করেন ডিইউজে’র যুগ্ম সম্পাদক শাহীন হাসনাত ।
সমাবেশে রুহুল আমিন গাজী বলেন, আজ কেউ সত্য কথা বলতে পারছে না। বললেই তাকে নানা ধরনের নির্যাতনের শিকার হতে হচ্ছে। দেশের কোনো মানুষ আজ নিরাপদে নেই। সাংবাদিকরা আজ নিরাপত্তাহীনতায় দিন কাটাচ্ছে। অনৈতিকভাবে সরকার অনেক মিডিয়া বন্ধ করে দিয়েছে।
এম আবদুল্লাহ বলেন, নবম ওয়েজবোর্ড সাংবাদিকদের কোন আবদার নয়, এটা প্রাপ্য। সরকারি কর্মচারিদের নতুন স্কেল দিয়ে বেতন দ্বিগুণ করা হয়েছে। ওয়েজবোর্ড গঠন নিয়ে তথ্য মন্ত্রণালয় গড়িমসি করছে। এ ধরনের তামাশা সাংবাদিক ও সংবাদপত্রসেবিরা ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করছে।
আব্দুল হাই সিকদার বলেন, আজ আমরা নিয়ন্ত্রিত গণমাধ্যমের যুগে বসবাস করছি। বর্তমানে মানুষের বাক স্বাধীনতা নেই।
এসবের জন্য শেখ হাসিনা সারাজীবন ইতিহাসে ঘৃণিত হয়ে থাকবে। তার সরকারের জানাজা এখন সময়ের দাবি। জাহাঙ্গীর আলম প্রধান বলেন, নবম ওয়েজবোর্ড গঠন এখন সময়ের দাবি। ওয়েজবোর্ড গঠনের ক্ষেত্রে সাংবাদিকদের রেজিস্ট্রার্ড সংগঠনের পাশাপাশি সংবাদপত্র কর্মচারি ফেডারেশন ও প্রেস শ্রমিক ফেডারেশনের প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিত করতে হবে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন