সোমবার, ০৮ আগস্ট ২০২২, ২৪ শ্রাবণ ১৪২৯, ০৯ মুহাররম ১৪৪৪ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

গর্ভপাত অধিকার আইন রহিত বিক্ষোভে উত্তাল যুক্তরাষ্ট্র

বিক্ষোভ-প্রতিবাদের আহ্বান বাইডেনের বাতিলের বিরোধিতা করলেন ওবামা ঈশ্বরের সিদ্ধান্ত বললেন ট্রাম্প

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৬ জুন, ২০২২, ১২:০১ এএম

গর্ভপাতের অধিকার আইন বাতিলকে কেন্দ্র করে তোলপাড় চলছে যুক্তরাষ্ট্রে। বিক্ষোভ-প্রতিবাদে উত্তাল হয়ে উঠেছে নিউইয়র্কসহ দেশটির বিভিন্ন স্থান। এ রায়ের ফলে এখন থেকে দেশটির আর কোনো নারী গর্ভপাতের ক্ষেত্রে আইনি সুরক্ষা পাবেন না।

শুক্রবার গর্ভপাত অধিকার আইন বাতিল করেছে মার্কিন সুপ্রিম কোর্ট। এদিন প্রায় ৫ দশকের পুরনো গর্ভপাত সংক্রান্ত আইন বাতিলে ঐতিহাসিক রায় দেয় আদালত। শীর্ষ আদালতের ৯ বিচারকের মধ্যে ৬ জনই গর্ভপাত অধিকার প্রত্যাহারের পক্ষে রায় দেন। এ বিষয়ে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেন, সুপ্রিম কোর্টের এমন সিদ্ধান্তের পর আমি স্তম্ভিত। আদালত মানুষের সাংবিধানিক অধিকার কেড়ে নিয়েছে। গর্ভপাত বহু মার্কিন নাগরিকদের কাছে মৌলিক একটি অধিকার। আদালত এমন একটি সিদ্ধান্ত দিয়েছেন, যার ফলে নারীরা এখন ধর্ষকের সন্তানও জন্ম দিতে বাধ্য হবেন। ১৯৭৩ সালে রো ভার্সেস ওয়েড নামের একটি মামলাকে কেন্দ্র করে যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে গর্ভপাতের অনুমতি দেয়া হয়। এরপর থেকেই বিতর্ক চলে আসছিলো গর্ভপাতের অনুমোদন নিয়ে। যুক্তরাষ্ট্রের ১৩টি রাজ্য আগে থেকেই গর্ভপাতকে অপরাধ হিসাবে গণ্য করতে আইন ও সংবিধান সংশোধনের মতো পদক্ষেপ নিয়েছে। সুপ্রিম কোর্টের রায়ের পর বাকি রাজ্যগুলো শিগগিরই নতুন আইন পাস করবে।

এদিকে আদালতের এ সিদ্ধান্তের তীব্র সমালোচনা করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনসহ দেশটির শীর্ষ নেতারা। প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, এতে তিনি স্তম্ভিত। যুক্তরাষ্ট্রের জন্য আজ এক দুঃখের দিন। দেশ এক চরম ঝুঁকিপূর্ণ এবং বিপজ্জনক পথে পা রাখল। তবে শান্তি বজায় রেখে বিক্ষোভ-প্রতিবাদ করার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

হোয়াইট হাউজে সাংবাদিকদের সামনে বাইডেন বলেন, ‘আদালত আগে যা কখনোই করেনি সেটিই এখন করেছে। আদালত বিশেষত সাংবিধানিক অধিকার কেড়ে নিয়েছে, যেটি বহু আমেরিকানের কাছে খুবই মৌলিক একটি অধিকার’। ‘আদালতের রায় এতটাই নির্মম যে, নারী এবং মেয়েরা একজন ধর্ষকের সন্তানও জন্ম দিতে বাধ্য হবে’, বলেন তিনি। বাইডেন মনে করেন, ‘রো বনাম ওয়েড’ এমন একটি সিদ্ধান্ত ছিল, যাতে নারীর গর্ভপাতের পথ বেছে নেয়ার অধিকার এবং রাজ্যের এ বিষয়টি পরিচালনা করার এখতিয়ারের মধ্যে একটা ভারসাম্য বজায় ছিল। আর তা বেশির ভাগ মার্কিনির কাছে ‘গ্রহণযোগ্যও’ ছিল। কিন্তু এবারের সিদ্ধান্তকে ‘ভুল’ আখ্যা দেন বাইডেন। তবে তিনি বলেন, ‘এখানেই শেষ নয়’। যুক্তরাষ্ট্রে গর্ভপাতের অধিকার নিয়ে লড়ে যাওয়া মানুষদের ‘এখনও শেষ কথা বলার বাকি আছে’। বিবিসি জানায়, বক্তব্যের শেষে বাইডেন সবাইকে এবং সর্বোপরি গর্ভপাত বিতর্কের সব পক্ষকে শান্তি বজায় রেখে বিক্ষোভ-প্রতিবাদ করার আহ্বান জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, সহিংসতা গ্রহণযোগ্য নয়। হুমকি, ভয়ভীতি কোনো ভাষা বা কথা নয়। সবশেষে যুক্তরাষ্ট্রের নারীদের উদ্দেশে বাইডেন বলেন, তিনি জানেন- তারা (নারীরা) এখন অনেক বেশি কঠিন পরিস্থিতির সম্মুখীন হবেন। এ সময়ে নারীদের কথা শুনবেন, তাদেরকে সমর্থন দেবেন এবং পাশে থাকবেন বলে আশ্বাস দেন বাইডেন। যেসব রাজ্যে বর্তমানে গর্ভপাতের ওপর কড়াকড়ি আছে সেখানকার নারীরা চাইলে দেশের অন্য জায়গায় গিয়ে এ ব্যাপারে সহায়তা পেতে পারেন বলে জানান বাইডেন।

তিনি বলেন, আমার প্রশাসন এ মৌলিক অধিকারকে সমর্থন করবে। কোনো নারীর ভ্রমণের অধিকারে কোনো কর্মকর্তা হস্তক্ষেপ করতে পারবেন না। তাছাড়া, জন্মনিরোধক বড়ি এবং গর্ভপাতের জন্য ওষুধ যাতে নারীরা পান সেদিকে প্রশাসন লক্ষ্য রাখবে বলে জানান বাইডেন। সুপ্রিম কোর্টের সিদ্ধান্তের ফলে যুক্তরাষ্ট্রে মাতৃমৃত্যু হার বেড়ে যেতে পারে বলেও বাইডেন আশঙ্কা প্রকাশ করেন।

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা মার্কিন সুপ্রিম কোর্টের যুগান্তকারী গর্ভপাত অধিকার আইন বাতিল নিয়ে মুখ খুলেছেন। এ আইন বাতিলের বিরোধিতা করে তিনি বলেন, এটা ‘অপরিহার্য স্বাধীনতা’। ওই আইন বাতিলের ব্যাপারে শুক্রবার টুইটারে দুই কন্যার সন্তানের বাবা লেখেন, আজ সুপ্রিম কোর্ট শুধুমাত্র প্রায় ৫০ বছরের নজিরকে উল্টে দেয়নি, এটি লাখ লাখ আমেরিকানদের অপরিহার্য স্বাধীনতাকে আক্রমণ করে, রাজনীতিবিদ এবং মতাদর্শীদের ইচ্ছার কাছে ব্যক্তিগত সিদ্ধান্তকে বাতিল করে দিয়েছে।

প্রসঙ্গত, মার্কিন সুপ্রিম কোর্ট দেশব্যাপী গর্ভপাতকে বৈধতা দেওয়া প্রায় ৫০ বছরের পুরোনো একটি আইনি সিদ্ধান্ত বদলে দিয়েছেন। ফলে দেশটির নারীরা আর গর্ভপাতের আইনি অধিকার পাবেন না।
শুক্রবার এ সংক্রান্ত রায় ঘোষণা করে আদালত। এই রায়ের ফলে যুক্তরাষ্ট্রের প্রায় অর্ধেক রাজ্যেই গর্ভপাত নিষিদ্ধ হওয়ার পট প্রস্তুত হল। প্রতিটি রাজ্যই এখন নিজস্বভাবে গর্ভপাত নিষিদ্ধ করার পদক্ষেপ নিতে পারবে। ১৯৭৩ সালে যুক্তরাষ্ট্রের সুপ্রিম কোর্টের ‘রো বনাম ওয়েড’ নামের ঐতিহাসিক রায়ে মার্কিন নারীদের গর্ভপাতে বৈধতা দেওয়া হয়েছিল।

যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এ রায়ের প্রশংসা করে বলেছেন, ঈশ্বর এই সিদ্ধান্ত দিয়েছেন (গড মেড দ্য ডিসিশন)। ফক্স নিউজে এক সাক্ষাৎকারে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট আরো বলেন, সংবিধান অনুসরণ করে অধিকার ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে যেটা আরো আগেই হওয়া উচিত ছিল। এ ফলাফলে তার কোনো অবদান আছে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে ট্রাম্প বলেন, তিনি ক্ষমতায় থাকাকালে সুপ্রিমকোর্টে কনজারভেটিভ পার্টি তিনজন বিচারক নিয়োগ দিয়েছিল। আজকের (গতকাল) সিদ্ধান্ত ‘জীবন’ এর জন্য এক প্রজন্মের বড় বিজয়। প্রতিশ্রুতি মোতাবেক তিনি সবকিছু করেছিলেন, সে কারণে এ রায় সম্ভব হয়েছে বলেও দাবি করেন তিনি। সূত্র : এএফপি, রয়টার্স, পলিটিকো।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন