মঙ্গলবার, ০৯ আগস্ট ২০২২, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৯, ১০ মুহাররম ১৪৪৪ হিজরী

সারা বাংলার খবর

কমলনগরের প্রাথমিক শিক্ষকের পাঁচ ছেলে মেয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে-প্রশংসায় ভাসছেন পরিবার।

কমলনগর (লক্ষ্মীপুর) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৩০ জুন, ২০২২, ৬:০৪ পিএম

লক্ষ্মীপুরের কমলনগর উপজেলার চর লরেন্স ইউনিয়নের মাস্টার ছায়েদ উল্লাহ ও শামীমা আক্তার দম্পতির পাঁচ ছেলে মেয়ে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করার গৌরব অর্জন করেছেন।ইতোমধ্যে জেলাজুড়ে প্রশংসার জোয়ারে ভাসছেন পরিবারটি।

মাস্টার ছায়েদ উল্লাহ সাহেব নোয়াখালীর সুবর্ণচরের দক্ষিণ ওয়াপদা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক হিসেবে সফলতার সহিত শিক্ষকতা করে বর্তমানে তিনি অবসরে আছেন।

তার একমাত্র মেয়ে জান্নাতুল ফেরদৌস ২০২১-২০২২ শিক্ষাবর্ষের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের 'খ' ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় ৫৯৯ তম হওয়ার মধ্য দিয়ে ভর্তির সুযোগ পেয়ে মোট পাঁচ ছেলে মেয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করার গৌরব অর্জন করে।

শুরুটা ২০০৭ সালে, মাস্টার ছায়েদ উল্লাহ সাহেব বলেন ওই বছর তার বড় ছেলে জনাব শামসুল আলম দিপু ২০০৭-০৮ সেশনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগে ভর্তি হন, এবং কৃতিত্বের সাথে সিজিপিএ ৩.৬২ (আউট অফ ৪.০০) পেয়ে স্নাতক এবং সিজিপিএ ৩.৭৫(আউট অফ ৪.০০) পেয়ে স্নাতকোত্তর শেষ করেন। পরবর্তীতে ৩৫ তম বিসিএস পরীক্ষার মাধ্যমে ক্যাডার হিসেবে চাকুরী শুরু করেন, পরবর্তীতে শামছুল আলম বিসিএস চাকুরী ছেড়ে দিয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকে যোগদান করেন, এবং বর্তমানে তিনি সরকারের আর্থিক গোয়েন্দা সংস্থা বাংলাদেশ ফাইন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্ট ইউনিটে সহকারী পরিচালক হিসেবে প্রেষণে কর্মরত আছেন।


এর পর পরিশ্রম ও কঠোর অধ্যবসায়ের মাধ্যমে মাস্টার ছায়েদ উল্লাহ সাহেবের দ্বিতীয় ছেলে শাজাহান সিরাজ আল মামুন ২০১০-২০১১ সেশনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের লোক প্রশাসন বিভাগে ভর্তির জন্য নির্বাচিত হন, এবং ২০১৬ সালে কৃতিত্বের সহিত লোকপ্রশাসন বিভাগ থেকে প্রথম শ্রেণীতে অনার্স ও মাস্টার্স ডিগ্রি অর্জন করেন। বর্তমানে শাজাহান সিরাজ আল মামুন কর্মসংস্থান ব্যাংকের লক্ষ্মীপুর শাখায় সিনিয়র অফিসার হিসেবে কর্মরত আছেন। পরবর্তী বছরই তার তৃতীয় ছেলে আশরাফুল ইসলাম শহীদ ২০১১- ২০১২ সেশনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগে ভর্তির জন্য নির্বাচিত হন এবং ২০১৭ সালে ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগ থেকে কৃতিত্বের সহিত প্রথম শ্রেণীতে অনার্স ও মাস্টার্স ডিগ্রি অর্জন করে আশরাফুল ইসলাম শহীদ বর্তমানে বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংকের লক্ষ্মীপুর আঞ্চলিক শাখায় সিনিয়র অফিসার হিসেবে কর্মরত আছে।

তার চতুর্থ ছেলে শরীফুল ইসলাম বিজয় ২০১৬-২০১৭ সেশনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে রাষ্ট্র বিজ্ঞান বিভাগে ভর্তি হয়ে বর্তমানে মাস্টার্সে অধ্যয়নরত আছে। এবার মাস্টার ছায়েদ উল্লাহ সাহেবের একমাত্র ছোট মেয়ে ২০২১-২০২২ সেশনের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষায় ৫৯৯ তম হয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির জন্য নির্বাচিত হয়। এ নিয়ে জানতে চাইলে মাস্টার ছায়েদ উল্লাহ সাহেব বলেন, আমার পাঁচ ছেলে মেয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করার গৌরব অর্জন করায় আমি সর্বপ্রথম মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের কাছে শুকরিয়া আদায় করছি। তিনি আরও বলেন, আমি দীর্ঘ ৩০ বছর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করেছি, আমি আমার ছেলে মেয়েদেরকে সুশিক্ষিত করার জন্য সর্বদাই সচেষ্ট ছিলাম। আমার ছেলে মেয়েরা কঠোর পরিশ্রম আর অধ্যবসায়ের মাধ্যমে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রাচ্যের অক্সফোর্ড খ্যাত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করার গৌরব অর্জন করেছে, আমি আপনাদের সবার কাছে আমার সন্তানদের ভবিষ্যতের জন্য দোয়া চাই।

এদিকে একই পরিবারের পাঁচ ভাই-বোন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করার খবরে কমলনগরে ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করেছে। এবং কমলনগরের সাধারণ ও শিক্ষিত সমাজ এই সফলতার জন্য তাদেরকে অভিনন্দন জানাচ্ছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন