বুধবার, ০৫ অক্টোবর ২০২২, ২০ আশ্বিন ১৪২৯, ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী

সারা বাংলার খবর

বাল্যবিয়ে : ভ্রাম্যমান আদালত দেখে পালালেন সবাই, দুজনকে জেল- জরিমানা

খুলনা ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ১৯ আগস্ট, ২০২২, ৭:৫৬ পিএম

১২ বছর বয়সী মাদ্রাসা ছাত্রীকে চলছিল বউ সাজানোর কাজ। অন্যদিকে, অতিথি আপ্যায়নের ব্যবস্থা চলছিল। বর পক্ষ হাজির। বিয়ের সব আয়োজনই সম্পন্ন, ঠিক এমন সময় হাজির ভ্রাম্যমান আদালত। সাথে সাথে বিয়ে বন্ধ হয়ে যায়। পালিয়ে যায় বরপক্ষ। মাদ্রাসা ছাত্রীর মা কে ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা এবং বরের খালাতো ভাইকে ৮ মাসের কারাদন্ড ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা। বৃহষ্পতিবার দুপুরে খুলনার তেরখাদা উপজেলায় এ ঘটনা ঘটে।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আসাদুজ্জামান জানান, উপজেলার ইখড়ি চড়পাড়া এলাকায় ১২ বছর বয়সী সপ্তম শ্রেণীর ওই মাদ্রাসা ছাত্রীর বিয়ের আয়োজন চলছিল। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে সেখানে অভিযান চালানো হয়। ভ্রাম্যমান আদালতের উপস্থিতি টের পেয়ে কনের পিতা শফিকুল কাজূ, বর আলমগীর ও বরের পিতা আব্দুর রশিদ পালিয়ে যান। ভ্রাম্যমান আদালতের চাপের মুখে সেখানে হাজির হন মেয়ের মা খুকু মনি ও বরের খালাত ভাই আলম। বাল্য বিবাহ নিরোধ আইন ২০১৭ মোতাবেক কনের মা কে ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা এবং বরের খালাতো ভাই মফিজকে ৮ মাসের কারাদন্ড ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।
ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আসাদুজ্জামান বলেন, বাল্য বিবাহ নিরোধে এ অভিযান অব্যহত থাকবে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মোঃ নাজমুল হক, ইউপি চেয়ারম্যান কে এম আলমগীর হোসেন ও থানার এস আই মোঃ মনিরুজ্জামান।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন