শনিবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২৩, ১৪ মাঘ ১৪২৯, ০৫ রজব ১৪৪৪ হিজিরী

সারা বাংলার খবর

টাঙ্গাইল, কুড়িগ্রাম ও ধামরাইয়ে ইট ভাটা মালিকদের মানববন্ধন

জিগজ্যাগ ইটভাটার ছাড়পত্র লাইসেন্স প্রাপ্তি ও কয়লা সঙ্কট সমাধানের দাবি

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৮ নভেম্বর, ২০২২, ১২:০০ এএম

ইট প্রস্তুত ও ভাটা স্থাপন (নিয়ন্ত্রণ) আইন ২০১৩ এবং ইট প্রস্তুত ও ভাটা স্থাপন নিয়ন্ত্রণ (সংশোধন) আইন ২০১৯ বর্ণিত জিগজ্যাগ ইটভাটার ছাড়পত্র ও লাইসেন্স প্রাপ্তি এবং বর্তমানে কয়লা সঙ্কট সমাধানের দাবিতে গতকাল মানববন্ধন করেছে টাঙ্গাইল, কুড়িগ্রাম ও ধামরাইয়ের ইট প্রস্তুতকারী মালিক সমিতি। আমাদের সংবাদদাতাদের পাঠানো তথ্যে খবর বিস্তারিত।
টাঙ্গাইল জেলা সংবাদদাতা জানান, ইটভাটার ছাড়পত্র ও লাইসেন্স প্রাপ্তি এবং বর্তমানে কয়লা সঙ্কট সমাধানের দাবিতে মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান করেছে বাংলাদেশ ইট প্রস্তুতকারী মালিক সমিতি টাঙ্গাইল জেলা শাখা। গতকাল রোববার দুপুরে টাঙ্গাইল জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে জেলার বিভিন্ন উপজেলার ইট প্রস্তুতকারী মালিক সমিতি ও শ্রমিকরা এই মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে। মানববন্ধন চলাকালে সময় বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ইট প্রস্তুতকারী মালিক সমিতির সহ-সভাপতি ও জেলা শাখার সভাপতি ফিরোজ হায়দার খান, জেলার সাধারণ সম্পাদক ফারুক হোসেন, সহ-সভাপতি শাহজাহান আলী সরকার ও শাহজাহান আলী ভূইয়া, সহ-সাধারণ সম্পাদক মঞ্জুরুল কাদের বাবুল ও সোহেল মিয়া, সাংগঠনিক সম্পাদক মুক্তার আলী সিদ্দিকী প্রমুখ।
কুড়িগ্রাম জেলা সংবাদদাতা জানান, বাংলাদেশ ইট প্রস্তুতকারী মালিক সমিতি, কুড়িগ্রাম জেলা শাখা গতকাল দুপুরে কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে ঘণ্টাাব্যাপী মানববন্ধন করেছে। পরে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। এ মানব বন্ধনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ইট প্রস্তুতকারী মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. লুৎফর রহমান বকসী।
সাধারণ সম্পাদক বলেন, ২০১৩সনে ইট ভাটা নিয়ন্ত্রণ আইনের জিগজ্যাগ ভাটা বৈধ পদ্ধতির উল্লেখ্য থাকলেও উক্ত আইনের ৮(৩) (ঙ) এবং ৮(৩) (খ) উপ-ধারায় “দুরত্ব নির্দিষ্ট” করণে দেশের অধিকাংশ জিগজ্যাগ ইটভাটা অবৈধ হয়ে পড়ে ফলে মালিকগণ ছাড়পত্র ও লাইসেন্স পাচ্ছেন না। উক্ত আইনের ৮(৩) (ঙ) এবং ৮(৩) (খ) উপ-ধারায় বাংলাদেশের কোথাও ইটভাটা স্থাপনের স্থান পাওয়া যাবে না।
এছাড়াও মানব বন্ধনে বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ ইট প্রস্তুতকারী মালিক সমিতি, কুড়িগ্রাম জেলা শাখার সভাপতি মো. গোলাম মোস্তফা, আব্দুল হাই রঞ্জু, মো. শাহজাহান মিয়া, আহসানুল ইসলাম রিটু প্রমুখ। মানববন্ধন শেষে জেলা প্রশাসকের নিকট স্মারকলিপি প্রদান করে নেতৃবৃন্দ।
ধামরাই (ঢাকা) উপজেলা সংবাদদাতা জানান, ঢাকার ধামরাইয়ে মানববন্ধন করেছেন ইটভাটার মালিক ও শ্রমিকরা। গতকাল বিকালে উপজেলার সোমবাগ ইউনিয়নের ডাউটিয়া এলাকায় ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের দু’পাশে মানববন্ধন হয়।
ধামরাই উপজেলা ইটভাটা মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রশিদ বলেন, প্রতিটি ভাটার বেশিরভাগ মালিকরাই ব্যাংক ঋণ অথবা আত্মীয়-স্বজনদের কাছ থেকে টাকা ধার করে নিয়ে ইটভাটা শুরু করা হয়। আমাদের প্রতিটি ইটভাটায় ২০০-৩০০ শ্রমিক কাজ করে। এখন হঠাৎ করেই যদি ভাটা বন্ধ করে দেয়া হয় তাহলে এই শতাধিক শ্রমিকেরা কি করবে এবং ভাটার মালিকরা কিভাবে ঋণ পরিশোধ করবেন?

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন