সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৩ মাঘ ১৪২৯, ১৪ রজব ১৪৪৪ হিজিরী

সারা বাংলার খবর

সখিপুরে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে উপজেলা বিএনপির সভাপতি সাজুর পদত্যাগ

সখিপুর (টাঙ্গাইল) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৫ ডিসেম্বর, ২০২২, ৯:২৮ পিএম

টাঙ্গাইলের সখিপুর উপজেলা বিএনপির সভাপতির পদ থেকে পদত্যাগের ঘোষণা দিয়েছেন শাজাহান সাজু। আজ সোমবার বিকেলে তাঁর ফেসবুকে আইডি থেকে একটি পোস্ট দিয়ে পদত্যাগের ঘোষণা দেন তিনি। ‘শারীরিক অসুস্থতা’ ও ‘পারিবারিক’ কারণে পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে তিনি ওই পোস্টে উল্লেখ করেছেন। সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে শিগগিরই এ বিষয়ে বিস্তারিত জানানোর ঘোষণাও দিয়েছেন পোস্টে।

চলতি বছরের ২৯ অক্টোবর সম্মেলনের মাধ্যমে দ্বিতীয়বারের মতো উপজেলা বিএনপির সভাপতির দায়িত্ব পান শাজাহান সাজু। এর আগে তিনি উপজেলা বিএনপিসাধারণ সম্পাদক পদেও ছিলেন।পদত্যাগের বিষয়ে জানতে চাইলে শাজাহান সাজু বলেন, ‘শারীরিক অসুস্থতা ও পারিবারিক কারণে পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’ আন্দোলন ও মামলার ভয়ে সভাপতির পদ থেকে পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন কি না, জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘মামলা-হামলা আমি কোনো দিনই ভয় করি না। তবে দলে কিছু সমস্যা আছে। এ বিষয়ে আপনাদের সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে বিস্তারিত জানাব।’

নাম প্রকাশ না করার শর্তে উপজেলা বিএনপির শীর্ষস্থানীয় চার নেতা বলেন, সখিপুর উপজেলা বিএনপি ও এর সহযোগী সংগঠনের ওপর কেন্দ্রীয় বিএনপির কার্যনির্বাহী কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান আহমেদ আজম খানের অযাচিত হস্তক্ষেপ এবং স্বেচ্ছাচারিতার প্রতিবাদে শাজাহান সাজু পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। শাজাহান সাজুর ঘনিষ্ঠ কয়েকজন ব্যক্তিও একই কথা বলছেন। তবে ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে পদত্যাগের ঘোষণাকে ‘নাটক’ বলে মন্তব্য করেছেন উপজেলা বিএনপির দুজন নেতা।প্রসঙ্গে পৌর বিএনপির সভাপতি নাসির উদ্দিন বলেন, ‘ব্যক্তিগত কাজে আমি এলাকার বাইরে আছি। তাই এ বিষয়ে মন্তব্য করা ঠিক হবে না।’

জেলা বিএনপিসাধারণ সম্পাদক ফরহাদ ইকবাল মুঠোফোন বলেন, ‘বিষয়টি আমার জানা নেই। বিষয়টি জেনে পরবর্তী সময়ে আপনাকে জানানো হবে।’

অযাচিত হস্তক্ষেপ ও স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগের বিষয়ে জানতে কেন্দ্রীয় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আহমেদ আজম খানের মুঠোফোন নম্বরে একাধিকবার কল করা হলেও তাঁর কোনো সাড়া মেলেনি।প্রসঙ্গত, গত ৩০ নভেম্বর সখিপুর উপজেলায় বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের ৮৮ নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। সখিপুর থানার উপপরিদর্শক মোহাম্মদ আলী বাদী হয়ে মামলাটি করেন। মামলার পর ৩০ নভেম্বর রাতেই বিএনপির চার নেতা-কর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গ্রেপ্তার নেতা-কর্মীরা হলেন উপজেলা বিএনপির সহসভাপতি আবদুর রাজ্জাক ওরফে বাবু (৪৫), উপজেলা কৃষক দলের সভাপতি বিল্লাল হোসেন (৫০), পৌর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবুর রহমান ওরফে টিপু (৪৫) ও উপজেলা যুবদলের যুগ্ম আহ্বায়ক রুবেল চৌধুরী (৫০)।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন