শুক্রবার, ২৬ জুলাই ২০২৪, ১১ শ্রাবন ১৪৩১, ১৯ মুহাররম ১৪৪৬ হিজরী

সারা বাংলার খবর

কোটালীপাড়ার জনসভায় আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের

বিএনপি ক্ষমতায় এলে মুক্তিযোদ্ধাদের রাজাকার আর রাজাকারদের মুক্তিযোদ্ধা বানাবে

কোটালীপাড়া ( গোপালগঞ্জ) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩, ১২:৫৪ পিএম

কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন বিএনপি ক্ষমতায় গেলে মুক্তিযোদ্ধাদের রাজাকার বানাবে। রাজাকারদের মুক্তিযোদ্ধা বানাবে। রাজাকারদের স্বাধীনতা, একুশে পদক দেবে। নারীদের অবস্থা হবে আফগানিস্তানের মতো। ইউনিভার্সিটিতে পড়া হবে না। আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের শনিবার দুপুরে গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলার সাদুল্যাপুর ইউনিয়নের ভাঙ্গারহাট তালিমপুর-তেলিহাটি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে উপজেলা আওয়ামীলীগ আয়োজিত জনসভায় বক্তব্যে এ কথা বলেন।

কোটালীপাড়া উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি ভবেন্দ্রনাথ বিশ্বাসের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আয়নাল হোসেন শেখ এর সঞ্চালণায় সভায় আওয়ামীলীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রধান অতিথির ভাষণ প্রদান করেন।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘বিএনপি ক্ষমতায় গেলে নারীদের চাকরি হবে না। বোরকা পরে ঘরের কোনায় বসে থাকতে হবে। কারণ বিএনপি যাদের সাথে রাজনীতি করে তারা বাংলাদেশকে আফগানিস্তান বানাতে চায়।’

তিনি বলেন, ‘সাম্প্রদায়িকতা, জঙ্গিবাদের বিশ্বস্ত ঠিকানা বিএনপি। তারা আগুন দিয়ে মানুষ পুড়িয়ে মারে, স্কুল পুড়িয়ে দেয়। এই আগুন সন্ত্রাসের মূল হোতাদের আর ক্ষমতায় আসতে দেয়া হবে না।’বর্তমান সরকারকে সংখ্যালঘু বান্ধব উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, আপনারা ভয় পাবেন না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ওপর আস্থা রাখুন। শেখ হাসিনা যতদিন আছেন, আপনাদের আপনজন তার চেয়ে বেশি এই দেশে আর কেউ নেই। আস্থা রাখুন তার প্রতি।

তিনি বলেন, শেখ হাসিনা ক্ষমতায় থাকলে আপনাদের সব অধিকার বাস্তবায়ন হবে। কারও কথায় প্রলুব্ধ হবেন না। নড়চড় করবেন না। বিপদে শেখ হাসিনাই পাশে থাকে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, আজকে বিএনপি আন্দোলন শুরু করেছে। পথ হারিয়ে পথিক এখন দিশেহারা। এখন গণআন্দোলন থেকে পদযাত্রায়। বিএনপির পতনযাত্রা শুরু হয়েছে। তারা শেখ হাসিনাকে সহ্য করতে পারে না। পদ্মা সেতুকে সহ্য করতে পারে না। তিনি বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ্য করে বলেছেন দুর্নীতির অভিযোগে আপনি দন্ডিত আজকে আপনার ছেলে তারেক রহমান মানিলন্ডারিং মামলায় সাজাপ্রাপ্ত আসামি,সাজাপ্রাপ্ত আসামীরা নির্বাচন করতে পারবেনা। নির্বাচনে না এলে বিএনপির অস্তিত্ব টিকবে না। বিএনপির সাথে জনগণ নেই। তাদের সঙ্গে আছে সন্ত্রাস, পেট্রোল বোমা, অগ্নিসন্ত্রাস, লাঠি। তারা সুযোগ পেলে আগুন দিয়ে মানুষ পুড়িয়ে মারবে, বাস পোড়াবে, স্কুল পুড়িয়ে দিবে। এই আগুন সন্ত্রাসের হোতা বিএনপি। এরা দেশ ও স্বাধীনতার শত্রু। এদের প্রতিরোধ করতে হবে। সবাইকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘বিএনপিকে প্রতিহত করতে হবে। এরা স্বাধীনতার শত্রু। জয় বাংলার শত্রু। ১৬ ডিসেম্বরের শত্রু। এরা ক্ষমতায় এলে জয় বাংলা নিষিদ্ধ হবে। ৭ মার্চ নিষিদ্ধ হবে।’

আওয়ামী লীগের সাধারণ সস্পাদক বলেন, ‘আপনারা প্রস্তুত আছেন। খেলা হবে। খেলা হবে আন্দোলনে। নির্বাচনেও হবে। নৌকা চলবে ভাসিয়া, ভোট দেবেন হাসিয়া। সবাই তৈরি হয়ে যান। আন্দোলনের খেলায় তারা পারবে না। তারা হেরে গেছে। নির্বাচনে না এলে তাদের অস্তিত্ব টিকবে না।এসময় কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম এমপি,বীর মুক্তিযোদ্ধা শাজাহান খানঁ এমপি,পানি স্মপদ উপ- মন্ত্রী এনামুল হক শামিম, উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য আলহাজ্ব কাজী আকরাম উদ্দীন আহমমেদ, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক আ.ফ.ম বাহাউদ্দিন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম, প্রচার সম্পাদক আব্দুস সোবহান গোলাপ, গোপালগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি মাহাবুব আলী খানঁ,সাধারণ সম্পাদক জি এম শাহাবুদ্দিন আজম। উপজেলা চেয়ারম্যান বিমল কৃষ্ণ বিশ্বাস, উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র হাজি মোঃ কামাল হোসেন শেখ, সাবেক মেয়র অহিদুল ইসলাম হাজরা, আওয়ামীলীগ মনোনীত মেয়র মতিয়ার রহমান হাজরা, সাবেক সাধারণ সম্পাদক এস এম হুমায়ুন কবির, জাহাঙ্গীর হোসেন খানঁ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন এসময় জেলা ও উপজেলা আওয়ামীলীগের শীর্ষ নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

 

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন