ঢাকা মঙ্গলবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৭ আশ্বিন ১৪২৭, ০৪ সফর ১৪৪২ হিজরী

খেলাধুলা

এই প্রথম ‘বাদ’ সৌম্য-তাসকিন

| প্রকাশের সময় : ৮ জানুয়ারি, ২০১৮, ১২:০০ এএম

ইমরান মাহমুদ : একজনের অভিষেক ২০১৪ সালে, অন্য জনের পরের বছর ২০১৫ তে। তার পর থেকে একটি ম্যাচেও নির্বাচকদের চোখের আড়াল হননি দু’জনের কেউই। কোচ চন্ডিকা হাতুরুসিংহের পুরো ‘শাসনামলেই’ ফর্ম না থকেলেও দলে অবাঞ্চিত হননি তাদের কেউই। এবার নতুন এক অভিজ্ঞতা হল ৩২টি করে ওয়ানডে খেলা সেই তাসকিন আহমেদ ও সৌম্য সরকারের। ২০১৪ সালের ১ ডিসেম্বর মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডে দিয়ে আন্তর্জাতিক অভিষেক হওয়া সৌম্যকে কখনো পারফরম্যান্সের কারণে ওয়ানডে স্কোয়াডের বাইরে থাকতে হয়নি। ২০১৫ সালের নভেম্বরে জিম্বাবুয়ে সিরিজটা খেলতে পারেননি চোটের কারণে। ২০১৬ সালের অক্টোবরে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তিন ম্যাচ সিরিজে একটি ওয়ানডে না খেলা হলেও ড্রেসিংরুমে অন্তত ছিলেন। এবারই প্রথম সৌম্য বাদ পড়লেন পারফরম্যান্সের কারণে। ২০১৪ সালের জুনে মিরপুরে ভারতের বিপক্ষে উজ্জ্বল অভিষেকের পর শুধু চোটের কারণে তাসকিনের হাতছাড়া হয়েছে তিনটি ওয়ানডে সিরিজ। পারফরম্যান্সের কারণে এবারই প্রথম স্কোয়াডের বাইরে ২২ বছর বয়সী পেসার। আসন্ন তিন-জাতি টুর্নামেন্টের জন্য গতকাল ঘোষিত ১৬ সদস্যের বাংলাদেশ দলে রাখা হয়নি এই দু’জনের কাউকেই।
গত বছর জুনে চ্যাম্পিয়নস ট্রফি থেকে অক্টোবরে দক্ষিণ আফ্রিকা সফর- ৫ ওয়ানডে খেলে মাত্র ৪ উইকেট পেয়েছেন তাসকিন। এর মধ্যে টানা তিন ম্যাচে ছিলেন উইকেটশূন্য। সৌম্যর অবস্থা অনেকটা একই। এই ছন্দ ফিরে পান তো এই হারান! তাসকিনের মতো তিনিও গত চ্যাম্পিয়নস ট্রফি ও দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে ছিলেন ভীষণ নিষ্প্রভ। ৬ ওয়ানডেতে রান করেছেন ৪২, দুই অঙ্ক ছুঁতে পেরেছেন একবারই। সর্বোচ্চ করেছেন ২৮ রান, ১ জুন ওভালে, ইংল্যান্ডের বিপক্ষে।
ছন্দ হারিয়ে ফেলা সৌম্য-তাসকিনকে দলে না রাখা নিয়ে প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিনকে দিতে হয় প্রশ্নের উত্তর। তবে তার সোজা-সাপ্টা ব্যাখ্যা, ‘সৌম্যর প্রতিভা নিয়ে কোনো প্রশ্ন নেই। যেহেতু তার ধারাবাহিকতার অভাব, কিছুদিনের বিরতি দিয়েছি ওকে। আমাদের পুলেই সে আছে। আশা করি ছন্দে ফিরবে, ধারাবাহিকতা ধরে রাখবে। তখন তাকে আমরা বিবেচনা করব। তাসকিনেরও একই অবস্থা। গত দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে তার পারফরম্যান্স সন্তোষজনক ছিল না। কিছুদিন বড় দৈর্ঘ্যরে ক্রিকেট খেলার দরকার আছে তার।’
দক্ষিণ আফ্রিকায় বাংলাদেশ দলে ছিলেন, এবার বাদ পড়েছেন লিটন দাসও। ২০১৫ সালে নয়টি ওয়ানডে খেলেন লিটন। পঞ্চাশ ছুঁতে পারেননি একবারও, সর্বোচ্চ ৩৬। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ঘরোয়া সিরিজের পর বাদ পড়েন এই সংস্করণের দল থেকে। সবশেষ প্রোটিয়াদের বিপক্ষে তিন ম্যাচের সিরিজে করেছিলেন ৪১ রান। লিটনকে ওয়ানডেতে বিবেচনা না করা নিয়ে মিনহাজুল বললেন, ‘লিটনকে সব সময় টেস্টে বিবেচনা করি। ও দক্ষিণ আফ্রিকায় টেস্টে ভালো করেছিল বলে ওয়ানডেতে রেখে দিয়েছিলাম। সেখানে অন্য কাউকে নিলে আসা-যাওয়ার ব্যাপার ছিল। কন্ডিশনে মানিয়ে নেওয়ার ব্যাপারও ছিল। বড় দৈর্ঘ্যরে ক্রিকেটেই তাকে আমরা বিবেচনা করে থাকি।’
এছাড়া বাদ পড়াদের তালিকায় আছে মোসাদ্দেক হোসেন, মুমিনুল হকের মতো বড় নাম। তবে এই দুজনের জন্য থাকছে টেস্টে ফেরার সুযোগ। আগামীকাল থেকে শুরু হচ্ছে লঙগার ভার্সনের বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগ (বিসিএল)। এদিন বিকেএসপিতে ইসলামী ব্যাংক ইস্ট জোন মুখোমুখি হবে প্রাইম ব্যাংক সাউথ জোনের। এই ম্যাচ ইসলামী ব্যাংকের হয়ে খেলতে দেখা যাবে মুমিনুলকে। সেই একই কারণে ছড়ে দেয়া হয়েছে মোসাদ্দেককেও। প্রথম রাউন্ডের প্রথম দিনেই মুমিনুলের প্রতিপক্ষ হয়ে খেলবেন প্রাইম ব্যাংকের হয়ে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন