রোববার, ২৯ জানুয়ারি ২০২৩, ১৫ মাঘ ১৪২৯, ০৬ রজব ১৪৪৪ হিজিরী

খেলাধুলা

প্রিমিয়ার হকির দু’ম্যাচেই গন্ডগোল-মোহামেডান-ঊষা ম্যাচ শেষই হয়নি!

প্রকাশের সময় : ২ জুন, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্পোর্টস রিপোর্টার : ঘরোয়া হকিতে শনির দশা যেন লেগেই রয়েছে। নানা জটিলতায় প্রায় তিনবছর সব দলের অংশগ্রহণে প্রিমিয়ার লিগ অনুষ্ঠিত হতে পারেনি। কিছুদিন আগে সংকট কেটে যাওয়ায় ফের সব দলের অংশগ্রহণে লিগ আয়োজনে সক্ষম হয় হকি ফেডারেশন। তবে এই লিগেও চলছে নানা জটিলতা। যার অন্যতম হচ্ছে খেলা চলকালে মাঠে গÐগোল করা। গতকাল গ্রীণডেল্টা প্রিমিয়ার হকি লিগে বড় দুই দলের ম্যাচেই গÐগোল হয়েছে। তবে ঢাকা মেরিনার ইয়াংস ও সোনালী ব্যাংক ম্যাচটি নিষ্পত্তি হলেও শেষ হতে পারেনি ঢাকা মোহামেডান ও ঊষা ক্রীড়া চক্র ম্যাচটি।
কাল মওলানা ভাসানী জাতীয় হকি স্টেডিয়ামে দিনের প্রথম ম্যাচে মুখোমুখী হয় মেরিনার ও সোনালী ব্যাংক। ৭০ মিনিটের এই ম্যাচটি পাঁচবার বন্ধ হয়েছে। আর প্রতিবারই পুনরায় খেলা শুরু করতে আম্পায়ার অপেক্ষা করেছেন ১০ মিনিট থেকে আধঘণ্টা পর্যন্ত। বিকেল সোয়া তিনটায় যে ম্যাচ শেষ হওয়ার কথা ছিলো, তা শেষ হয়েছে সাড়ে চারটায়। যে কারণে আলো স্বল্পতার অযুহাতে মোহামেডান-ঊষা ম্যাচটি ১৮ মিনিট কম খেলিয়ে শেষ করতে হয়।
আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত নিয়ে উত্তেজনা ছড়ানো মেরিনার-সোনালী ব্যাংক ম্যাচটি শেষ পর্যন্ত নিষ্পত্তি হয়েছে। কষ্টের জয় পেয়েছে ঢাকা মেরিনার। তারা ২-১ গোলে হারায় সোনালী ব্যাংককে। বিজয়ীদের হয়ে আশরাফুল ও আরশাদ একটি করে গোল করেন। ব্যাংকের পক্ষে এক গোলশোধ দেন তাহের আলী।
উত্তেজনা ছড়ানো প্রথম ম্যাচ শেষ হলে একই পথে হাটলো মোহামেডান-ঊষা ম্যাচটিও। সেরাদের লড়াই বলে শ্রীংকা থেকে নওশাদ নামে এক আম্পায়ারকে উড়িয়ে আনা হয়েছে। সঙ্গে তো সিঙ্গাপুরের হ্যারি ছিলেনই। আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারি বাহিনীও মোতায়ের করা ছিল স্টেডিয়ামে। কিন্তু ফেডারেশনের সব কৌশলে পানি ঢেলে দিল মেরিনার ও সোনালী ব্যাংকের ম্যাচ। সেটি কোনরকমে শেষ করার পর মোহামেডান ও উষার ম্যাচ পরিচালনা করতে আরো বেশি বেগ পেতে হয় কর্মকর্তাদের। ছোট টিমগুলি যেখানে পাঁচদফা খেলা বন্ধ করে দেড়ঘণ্টার মতো খেলা পিছিয়েছে, সেখানে বড় দলগুলোর ম্যাচ কিভাবে স্বস্তি দেবে? বাংলাদেশের হকি ইতিহাসে এই প্রথম ঘটলো যে, আম্পায়ারের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ করায় এবং তার সিদ্ধান্তে খেলোয়াড়রা কটূবাক্য ব্যাবহার করায় শ্রীলংকার আম্পায়ার নওশাদ সহযোগী আম্পায়ারকে নিয়ে মাঠ ছেড়ে টেন্টের সামনে গিয়ে চেয়ারে বসে থাকেন। যেখানে খেলোয়াড়রা কার্ড পেলে গিয়ে বসেন। এই ঘটনায় নাড়া দেয় ফেডারেশনসহ সব ক্লাব কর্মকর্তাদের। শেষ পর্যন্ত আম্পায়ারেরই জয় হয়। তার সিদ্ধান্তের প্রতি শ্রদ্ধা জানালে তারা পুনরায় খেলা চালু করেন। কিন্তু আলো স্বল্পতার কারণে খেলা শেষ করতে পারেননি। ম্যাচ শেষ হতে তখনও ২০ মিনিট বাকি। ৫০ মিনিটে ঊষা ক্রীড়া চক্র একটি পেনাল্টি কর্নার পেলে মোহামেডানের গোলরক্ষক জাহিদ গোলপোস্ট ছেড়ে অফিসিয়ালদের আলোস্বল্পতার কারণ দেখান। টেকনিক্যাল আফিসাররা বিষয়টি আমলে নিয়ে খেলা স্থগিত ঘোষণা করেন। তখন পর্যন্ত ম্যাচটি ২-২ গোলে অমীমাংসিত ছিল। উষার পক্ষে আলিম বেলাল ও কৃষ্ণ কুমার একটি করে গোল করলে মোহামেডানের হয়ে দু’গোল শোধ দেন রাসেল মাহমুদ জিমি ও মো: ইমরান। হকি ফেডারেশন সূত্র জানায় মোহামেডান-ঊষা ম্যাচটি যে কাল ১৮ মিনিট কম খেলা হয়েছে তা আজ অনুৃষ্ঠিত হবে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন