ঢাকা, বুধবার, ২১ আগস্ট ২০১৯, ০৬ ভাদ্র ১৪২৬, ১৯ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

আন্তর্জাতিক সংবাদ

মুসলিম হয়েও সিঁদুর, চূড়া পরার কারণ জানালেন নুসরাত

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৩০ জুন, ২০১৯, ৬:৩০ পিএম

অভিনয় জগতের মানুষ, লোকসভায় পশ্চিমবঙ্গের নির্বাচিত সাংসদ এই অভিনেত্রী। মুসলিম ধর্মের অনুসারী হয়েও কেন সিঁদুর পরেছেন, কেনই বা তার সাজে মুসলিম প্রথা ও পরিচ্ছদের আভাস নেই? কেনই বা হিন্দুদের মতো চুড়া পরেছেন বিয়েতে? সংসদ অধিবেশনে এই সমস্ত প্রশ্নের জবাব দিলেন ভারতীয় বাংলা চলচ্চিত্রের অভিনেত্রী ও ভারতের সাংসদ নুসরাত জাহান।

গত ২২ জুন তুরস্কের বোদরুম শহরে জৈন ধর্মের অনুসারী নিখিল জৈনকে বিয়ে করেন নুসরাত। ২৩ জুন কলকাতায় ফিরেই দুদিন পর নবনির্বাচিত সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নেন তিনি। সংসদে তাকে হিন্দু ধর্মীয় মতে সিঁদুর দিতে ও মঙ্গলসূত্র পরতে দেখা গেছে। আর মুসলিম নারী হয়ে এসব করায় ফতোয়া জারি করেছেন দেওবন্দের ‘দারুল উলুম’-এর ইমাম মুফতি আসাদ ওয়াসমি। নুসরাতের কঠোর সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘খোঁজ নিয়ে জেনেছি নুসরাত জৈন সম্প্রদায়ের একজনকে বিয়ে করেছেন। ইসলাম বলে, একজন মুসলমান শুধু মুসলমানকেই বিয়ে করতে পারেন। নুসরাতের এমন কাজ ইসলামে কখনই গ্রহণযোগ্য নয়। তিনি আরও বলেন, ‘নুসরাত একজন অভিনেত্রী। আর বরাবরই দেখে এসেছি- অভিনেত্রীরা ধর্মের অনুশাসন মানেন না, যা ইচ্ছা তা-ই করে বেড়ান। সেটিই তিনি সংসদে করে দেখালেন। মুসলিম নারী হয়ে তিনি সংসদে সিঁদুর এওবং মঙ্গলসূত্র পরে এসেছিলেন।’

দেওবন্দ ইমামের এই বক্তব্যের সমালোচনা করেছে হিন্দু কট্টরবাদীরা। এদিকে ধর্মীয় বিষয়ে নিজেকে এভাবে জড়িয়ে যেতে দেখে নিজের অভিমত জানান নুসরাত। এমন বিতর্ককে রীতিমতো খারিজ করে দিয়েছেন তিনি। সমস্ত সংকীর্ণ গোঁড়ামিকে পালটা জবাব দিয়ে তিনি বলেছেন, তিনি আসলে ‘সমন্বিত ভারতে’র প্রতিনিধি।

মাইক্রোব্লগিং সাইট টুইটারে নুসরত জাহান এক বিবৃতিতে বলেন, আমি একটি সমন্বিত ভারতকে প্রতিনিধিত্ব করি যা জাতপাত ও ধর্মের বাধার অনেক উর্ধ্বে। তিনি এখনও মুসলমানই, এবং ‘সব ধর্মকে সম্মান’ও করেন তিনি। নুসরত আরও বলেন, ‘আমি কী পরব বা পরব না এই নিয়ে কারোরই কোনও মন্তব্য করা উচিত নয়। আস্থা বিষয়টি পোশাক পরিচ্ছদের অনেক উর্ধ্বে, এটা পুরোটাই বিশ্বাস এবং সকল ধর্মের মূল্যবান মতবাদ নিজের মতো করে চর্চা করার উপরেই নির্ভর করে।’ অভিনেত্রী নুসরত জাহান শনিবার তার পোস্টের শিরোনামে লিখেছেন, ‘যে কোনও ধর্মের উগ্র মানসিকতার মন্তব্যে কান দেয়া বা প্রত্যুত্তরে প্রতিক্রিয়া প্রদান করা কেবল ঘৃণা ও হিংসার সৃষ্টি করে এবং ইতিহাস এর সাক্ষ্মী।’

সম্প্রতি ২৯ বছরের এই অভিনেত্রী তুরস্কের ব্যবসায়ী নিখিলের সঙ্গে ডেস্টিনেশন ওয়েডিং সারার পর টুইট করেছিলেন। টলিউডের অভিনেত্রী নুসরত জাহান পশ্চিমবঙ্গের বসিরহাট লোকসভা আসন থেকে তৃণমূল কংগ্রেসের হয়ে ভোটে লড়ে এবার ৩ দশমিক ৫ লাখেরও বেশি ভোট পেয়ে জয়ী হন। এপ্রিল-মে মাস ধরে চলা লোকসভা নির্বাচনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দলের মনোনীত নির্বাচনী প্রার্থীর ১৭ জন নারীর মধ্যে তিনি ছিলেন অন্যতম। সূত্র: এনডিটিভি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (4)
kkio ১ জুলাই, ২০১৯, ৬:৫৭ এএম says : 0
As per Quran the first of the three reasons why ALLAH created mankind is to be His representative on earth. Nusrat reasoning of using sidur/shakha doesn't fit here if she believes in Quran.
Total Reply(0)
শফিউর রহমান ১ জুলাই, ২০১৯, ১১:০৯ এএম says : 0
যে যত কথা বলুক নুসরাত এখন আর মুসলমান নয় । তাকে মুসলমান বলে সিকৃতি দেওয়া হলে তা হবে বোকামি । যে ধর্ম মানেনা তাকে মুসলমান থেকে ভয়কোট করা উচিত বলে আমি মনে করি । এরা মুসলমানের শএু ।
Total Reply(0)
সালাহ উদ্দিন মাহমুদ ৪ জুলাই, ২০১৯, ৯:৩৪ এএম says : 0
যে মনে প্রানে হিন্দুদের কৃষ্টি কালচারকে পছন্দ করে, নিজের মন মত ধর্মকে মানে, ব্যাখ্যা করে ও অনুসরণ করে (যেমন-বিবাহ, এটা ইসলামের সাথে খেল তামাশারই নামান্তর) সে আর যাই হোক ইসলামের উপর নেই। অন্য ধর্মাবলম্বীর সামনে ইসলামী বিধানকে ব্যঙ্গ করে উপস্হাপন করে নিজে ইসলাম থেকে খারিজ হয়ে গেছে।
Total Reply(0)
মোয়াজ্জেম হোসেন সজীব ৯ জুলাই, ২০১৯, ৯:৩৬ পিএম says : 0
প্রকৃতভাবে বিচার করলে দেখা যায় নুসরাত ইসলামের দুশমোন
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন