ঢাকা, সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১ আশ্বিন ১৪২৬, ১৬ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী।

প্রবাস জীবন

‘প্রত্যেক প্রবাসীকে বাংলাদেশের আর্থ সামাজিক উন্নয়নে ভূমিকা রাখতে হবে’

ফাউন্ডেশন অফ গ্রেটার জৈন্তা, নিউইয়র্ক-এর সংবর্ধনা সভায় বক্তারা

যুক্তরাষ্ট্র সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৯:৫৯ এএম

ফাউন্ডেশন অফ গ্রেটার জৈন্তা,নিউইয়র্ক গত ২রা সেপ্টেম্বর সোমবার সিটির ওজনপার্কের ফুলকলি রেষ্টুরেন্টে লন্ডন থেকে আগত নর্থ লন্ডনের মসজিদে আয়শা টুটিনহাম এর সম্মানিত ইমাম, ইসলামিক সোসাইটি অফ কানাইঘাট ইউকের ভাইস প্রেসিডেন্ট,মিডিয়া ব্যক্তিত্ব মাওলানা সায়েম নূরুর রহমান চৌধুরীকে সংবর্ধিত করেছে ।

সংগঠনের সভাপতি মাওলানা রশীদ আহমদ এর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক জামিল আনসারীর সঞ্চালনায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে মেহমান হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট সমাজসেবক আলতাফ হোসাইন, সাংবাদিক আলম চৌধুরী,বিএমএমসিসি ইসলামিক স্কুলের সিনিয়র শিক্ষক মাওলানা মমতাজুল করীম ও খালেদ হোসাইন।অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ফাউন্ডেশন অফ গ্রেটার জৈন্তা,নিউইয়র্ক এর সহ সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আলী,প্রচার সম্পাদক মহসীন মাসরুর,কার্যনির্বাহী সদস্য মৌলভী আলা উদ্দিন প্রমsখ।

সংবর্ধিত অতিথি মাওলানা সায়েম নূরুর রহমান চৌধুরী বলেন, প্রত্যেক প্রবাসীকে বাংলাদেশের আর্থ সামাজিক উন্নয়নে ভুমিকা রাখতে হবে।তিনি বলেন, প্রবাসে কমিউনিটির উন্নয়নে ও মননে সকল বাংলাদেশীরা এক এবং অভিন্ন। তাকে নিউইয়র্কে সম্মান জানানোর জন্য ফাউন্ডেশন অফ গ্রেটার জৈন্তা, নিউইয়র্ককে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, তিনি অতি সাধারণ মানুষ।নিজে এভাবে লোকিকতায় বিশ্বাস করেন না । প্রবাসে এসে বাংলাদেশকে ভুলে যাননি বরং নিজের মাটি ও দেশের গর্বিত ইতিহাসকে সব সময় সবার উর্ধে তোলে ধরার চেষ্টা করেছেন।

তিনি আরো বলেন,আমি বিশ্বের রাজধানী হিসেবে খ্যাত নিউইয়র্ক সফরে এসে সেখানে বসবাসরত বৃৃৃহত্তর জৈন্তাবাসী যে ভালবাসা দেখালো, তাতে মনে হয়েছে যেনো আমি চলে গিয়েছি প্রিয় জন্মভূমি সিলেটে।

বৃহত্তর জৈন্তার সন্তানেরা এই কর্মব্যাস্ত নগরীতেও সবকিছু ছেড়ে দিয়ে সার্বক্ষনিক খোঁজ খবর নিয়ে যে ভালবাসার বন্ধনে আবদ্ধ করলো তা আমার হৃদয়ে গাঁথা থাকবে আজীবন।ফাউন্ডেশন অফ গ্রেটার জৈন্তা, নিউইয়র্ক ঘরোয়াভাবে যে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করলো, তা সত্যিই অতূলনীয়।আসলেই বৃহত্তর জৈন্তা মায়ের প্রবাসী সন্তানেরা অন্তর থেকে যে ভালবাসা দেখিয়েছেন তা দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে চিরদিন। দোয়া করি সবাই ভাল থাকুন, ঐক্যবদ্ধ থাকুন,পাশাপাশি পরিবারের ও এলাকার আর্থসামাজিক কল্যাণে নিয়োজিত থাকুন।


সভাপতির বক্তব্যে ফাউন্ডেশনের সভাপতি মাওলানা রশীদ আহমদ সংবর্ধিত অতিথি মাওলানা সায়েম চৌধুরীর ভূঁয়সী প্রশংসা করেন।তিনি সিলেটের গর্ব আখ্যায়িত করে বলেন,উনি দীর্ঘদিন ধরে নর্থ লন্ডনে বাংলাদেশী কমিউনিটির সেবা করে যাচ্ছেন। তিনি সংবর্ধিত অতিথির প্রবাস জীবনের উত্তরোত্তর সাফল্য কামনা করে বলেন,প্রবাসীরা বাংলাদেশের গৌরবের ইতিহাসের অংশ। তাদের বাদ দিয়ে বর্হিবিশ্বে প্রবাসীদের গর্বের ইতিহাস লেখা সম্ভব নয় ।
অনুষ্টানে মাওলানা সায়েম নূরুর রহমান চৌধুরীকে সংগঠনের মনোগ্রাম সম্বলিত একটি প্লেক উপহার প্রদান করা হয়।
উল্লেখ্য যে মাওলানা সায়েম নূরুর রহমান চৌধুরী ব্যক্তিগতভাবে এক সপ্তাহের সংক্ষিপ্ত সফরে নিউইয়র্ক আসেন এবং এটি তার প্রথম আমেরিকা সফর।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন