ঢাকা, সোমবার , ১৮ নভেম্বর ২০১৯, ০৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

পিকচার আভি বাকি হ্যায় : মোদি

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৭:৪২ পিএম

'ইয়ে শ্রেফ ট্রেইলার থা, পিকচার আভি বাকি হ্যায়' (এটা শুধু ট্রেইলার ছিলো, সিনেমা এখনও বাকি আছে!)। 'ওম শান্তি ওম' সিনেমায় শাহরুখ খানের মাতাল অবস্থায় দেওয়া এই ডায়লগে অনেকদিন মেতে ছিলো পুরো উপমহাদেশ। সামনে বিশেষ কিছু আছে, বোঝাতে গেলেই চোখে মুখে রহস্য এঁকে অনেকেই বলে ওঠেন, 'পিকচার আভি বাকি হ্যায়।' সরকারের ১০০ দিন পূর্তিতে প্রধানমন্ত্রী মোদিও জনগণের জন্য ভবিষ্যতের ইঙ্গিত দিয়ে শাহরুখের ডায়লগেই নিজের অভিব্যক্তি প্রকাশ করলেন।
ঝাড়খণ্ডের রাঁচিতে নির্বাচনী প্রচারে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেন, 'নির্বাচনের আগে, আমি একটি শক্তিশালী এবং কর্মমুখী সরকারের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলাম... একটা সরকার, যা আগের থেকে আরও গতিশীল, যে সরকার আপনাদের প্রত্যাশা পূরণের জন্য লড়াই করবে। আমাদের সরকারের ১০০ দিন শুধুমাত্র একটি ট্রেলার ছিল, পুরো সিনেমা আসতে এখনও বাকি আছে।'
দ্বিতীয়বার ক্ষমতায় এসে বিতর্কিত কিছু বিল কয়েক সপ্তাহের মধ্যে পাশ করিয়েছে সরকার। এর মধ্যে তাৎক্ষণিক তিন তালাক বিল, তথ্য জানার অধিকার আইনের (সংশোধনী) বিল উল্লেখযোগ্য। ৫ আগস্ট জম্মু ও কাশ্মীর থেকে বিশেষ রাজ্যের মর্যাদা প্রত্যাহার করেছে কেন্দ্রীয় সরকার, পাশাপাশি রাজ্যটিকে ভেঙে দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে পরিণত করা হয়েছে। সর্বশেষ নতুন করে নাগরিকপঞ্জী তালিকা করে বহিরাগতদের দেশ থেকে সরানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে মোদি সরকার।
প্রধানমন্ত্রী দাবি করেন, সমস্ত ক্ষেত্রে দেশের উন্নয়ন এবং যারা দেশকে লুট করেছে তাদের শাস্তি দিতে বদ্ধপরিকর তার সরকার। তিনি বলেন, 'উন্নয়ন আমাদের প্রতিশ্রæতি এবং লক্ষ্যও বটে। দেশ এর আগে কখনও উন্নয়নের এত দ্রæত গতি দেখেনি।' তাঁর কথায়, 'একই সময়ে, দুর্নীতির ওপর আঘাত শুরু হয়েছে। যারা মানুষকে লুটের চেষ্টা করেছে তাদের সঠিক জায়গায় পাঠানো হবে।'
তবে ১০০ দিনে বিজেপির কার্যকলাপকে অন্যভাবেই দেখছে বিরোধী দল কংগ্রেস। কংগ্রেসের পক্ষ থেকে বলা হয়, 'বিজেপির দ্বীতিয় দফা সরকারের প্রথম ১০০ দিনকে তিনটি শব্দে বর্ণনা করা যায়: স্বৈরাচারিতা, বিশ্ঙ্খৃলা এবং নৈরাজ্য।' দেশের শিল্পক্ষেত্রে অবনমন এবং যেভাবে দেশের প্রবৃদ্ধির হার প্রথম তিনমাসে যেভাবে ৫ শতাংশে নেমে এসেছে, তা নিয়েও সমালোচনা করে কংগ্রেস।
দলটির পক্ষ থেকে আরও বলা হয়, 'রেকর্ডভাবে ২ শতাংশের নিচে বৃদ্ধি নেমেছে ৮টি ক্ষেত্রে এবং আমাদের অর্থমন্ত্রী এখনও মানছেন না যে, আমাদের অর্থনীতি অবাধে নামছে। যদি বিজেপি এভাবে উপেক্ষা এবং কৌশল চালাতে থাকে, তাহলে আমরা মন্দার দিকে এগিয়ে যাব।'
এছাড়া বিজেপির বিরুদ্ধে প্রতিহিংসার রাজনীতির অভিযোগ তোলে কংগ্রেস। কয়েক সপ্তাহ আগেই, আর্থিক কেলেংকারির অভিযোগে গ্রেফতার করা হয় কংগ্রেস নেতা পি চিদাম্বরম এবং ডিকে শিবকুমারকে। সে প্রসঙ্গেই বিজেপির বিরুদ্ধে, সিবিআই ও এনফোর্মসেন্ট ডিরেক্টরেটের মতো সংস্থাগুলিকে কাজে লাগিয়ে বিরোধী নেতাদের টার্গেট করার অভিযোগ তুলেছে কংগ্রেস।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
Jahangir ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১১:২৪ পিএম says : 0
Picture will see Indian people. GDP 5 So given concentration in economy, All of investors will leave India they don't want to give lose. Cow can't save your economy. Cow boy says cow's are save them. Foolish peoples believed it. If cow can make economy strong make cow based economy. Cow is only animal as goat, Hen,sheep.Cow can not make mother think it foolish Indian people. They are taking advantage from making fool of you. Cow can die,make shoe by cow you all of use it. So where is your honour of cow. If cow's can mother who is father bull? Think it once again. They said they are patriotic but see your economy is it true? Index indicate another meaning. Every citizens have to prayers in their religion. Man can not live alone. All religious can be happy in one country. Think where born your friend who is Christan, Muslim,bado,in India? If any Hindu born in USA UK Britain, they through them in India? Will you happy if it is happened? So beware of BJP stop their activities. Protest them they wants to make you unhappy.
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন