ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৯, ৩০ আশ্বিন ১৪২৬, ১৫ সফর ১৪৪১ হিজরী

খেলাধুলা

ভ্যালেন্সিয়াকে উড়িয়ে জয়ে ফিরল বার্সেলোনা

লা লিগা

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৩:০০ এএম

ন্যু ক্যাম্পে সর্বকনিষ্ঠ খেলোয়াড় হিসেবে গোল করলেন আনসু ফাতি। নতুন ক্লাবের প্রথম জালের দেখা পেলেন ফ্রেঙ্কি ডি ইয়াং। চোট কাটিয়ে দলে ফিরে জোড়া গোল করলেন বদলি লুইস সুয়ারেজও। লা লিগায় বার্সেলোনাও ফিরেছে জয়ের ধারায়।

শরিবার রাতে নিজেদের মাঠে ভ্যালেন্সিয়াকে ৫-২ গোলে হারায় বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। আর্নেন্তো ভালভার্দের দলের হয়ে অন্য গোলটি করেন জেরার্ড পিকে।

দিনের আগের ম্যাচে ঘরের মাঠে লেভান্তেকে ৩-২ গোলে হারায় রিয়াল মাদ্রিদ। তবে রিয়াল সোসিয়াদাদের মাঠে ২-০ গোলে হেরে বসে পয়ন্ট তালিকার শীর্ষে থাকা অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ। চার ম্যাচে ৯ পয়েন্ট অ্যাটলেটিকোর। সমান ম্যাচে সমান ৮ পয়েন্ট নিয়ে দুই ও তিনে যথাক্রমে রিয়াল মাদ্রিদ ও অ্যাথলেটিক বিলবাও। সমান ম্যাচে দুই জয় ও একটি করে ড্র ও হারে ৭ পয়ন্ট নিয়ে চারে বার্সেলোনা।

নিজেদের মাঠে বার্সার শুরুটা ছিল দুর্দান্ত। গ্যালারিতে বসে ফাতি-ডি ইয়াংদের নৈপূণ্য দেখলেন লিওনেল মেসি। দ্বিতীয়ার্ধে সুয়ারেজ নামার পর বেড়ে যায় বার্সার খেলার গতি। যা প্রতিরোধ করা সম্ভব হয়নি ভ্যালেন্সিয়ার।

ম্যাচের সাত মিনিটের মধ্যে দলকে দুই গোলে এগিয়ে নেন তরুণ বার্সা ফরোয়ার্ড ফাতি। ম্যাচের দ্বিতীয় মিনিটে ডান প্রাস্ত থেকে ডি ইয়াংয়ের আড়াআড়ি ক্রস উঁচু প্লেসিং শটে লক্ষ্যভেদ করেন ১৬ বছর বয়সী নিজে। ৫ মিনিট পর আরেকটি করান ডি ইয়াংকে দিয়ে। বাম প্রান্ত দিয়ে ক্ষিপ্র গতিকে ডি বক্সে ঢুকে বুদ্ধিদীপ্ত কাট ব্যাক দেন ফাতি। বক্সের মাঝে অনেকটা ফাঁকায় থাকা ডি ইয়াং উঁচু প্লেসিং শটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন।

বলের দখল রেখে আধিপত্য ধরে রাখে স্বাগতিকরা। ২৭তম মিনিটে হঠাৎ গোছালো আক্রমণে স্কোরবোর্ডে ব্যবধান কমান কেভিন গামেইরো। রদ্রিগোর পাস জর্ডি আলবা ও ক্লেমোঁ লংলেকে ফাঁকি দিয়ে গামেইরোকে খুঁজে নেয়। ডান প্রান্ত থেকে কোনাকুনি শটে মার্ক আন্দ্রে টের স্টেগেনকে পরাস্ত করেন ফরাসি ফরোয়ার্ড। ভিএআরের সহায়তায় গোলের বাঁশি বাজান রেফারি।

দ্বিতীয়ার্ধে একের পর এক ঝড় ওঠে ভ্যালেন্সিয়ার ডি বক্সে। ৫১তম মিনিটে গ্রিজম্যানের জোরালো শট দখলে নিতে পারেননি বার্সার সাবেক গোলরক্ষক জেসপার সিলিসেন। বল তার হাতে লেগে পোস্টে বাধা পেয়ে ফিরে আসে। সিলিসেনকে টপকে ফিরতি বল জালে টুকে দেন পিকে।

৬০তম মিনিটে ফাতির বদলি নামেন সুয়ারেজ। পরের মিনিটেই বাম প্রান্তে আর্থুর মেলোর পাস পেয়ে বক্সের ঠিক বাইরে থেকে সময় নিয়ে ঠা-া মাথার শটে ব্যবধান ৪-১ করে দেন উরুগুয়ান স্ট্রাইকার।

৭০তম মিনিটে ডি ইয়াংয়ের বদলি নামেন ইভান রাকিটিচ।

৮২তম মিনিটে প্রায় একই জায়গা থেকে গ্রিজম্যানের বাড়ানো বল জালে জড়ান সুয়ারেজ।

ম্যাচের যোগ করা সময়ে চেরিশেভের ক্রসে প্লেসিং শটে নতুন ক্লাবের হয়ে প্রথম গোল করেন ম্যাক্সি গোমেজ।


বড় জয় পেলেও অস্বস্তির একটা জায়গা রয়েই গেল বার্সার। এ নিয়ে টানা ছয় ম্যাচ তারা জাল অক্ষত রাখতে ব্যর্থ হলো। বুধবার বরুশিয়া ডর্টমুন্ডের বিপক্ষে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে নিজেদের প্রথম ম্যাচে নিশ্চয় এই সমস্যা থেকে কাটিয়ে উঠতে চাইবেন ভালভার্দে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন